🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ শনিবার, ৯ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ২৪ জুলাই, ২০২১ ৷

আটক কিডনি পাচারকারী, উদ্ধার হলো অভিনব প্রতারনার শিকার ভিকটিম

কিডনি পাচারকারী
❏ শুক্রবার, জুন ২৫, ২০২১ খুলনা

বেনাপোল প্রতিনিধিঃ কিডনি বিক্রির উদ্দেশ্যে বেনাপোল দিয়ে ভারতে পাচারের জন্য আনা এক পাসপোর্ট যাত্রী (ভিকটিম)কে উদ্ধার করা হয়েছে।  কিডনি পাচারের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে আন্তর্জাতিক পাচারকারী চক্রের এক সদস্যকে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা।

বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) রাতে বিজিবি প্রেস বিজ্ঞপতিতে একজন কিডনি পাচারকারী আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

প্রেস বিজ্ঞপতিতে বিজিবি জানায়, কাজের প্রলোভন দেখিয়ে ইউনুছ আলী নামের এক যাত্রীকে  অভিযুক্ত আটক  আনিছুর রহমান ভারতে পাচার করছিলেন চুরি করে কিডনি বিক্রির জন্য। গোপন সুত্রে খবর পেয়ে বিজিবি ভিকটিমকে উদ্ধার করেন এবং অভিযুক্তকে আটক করেন বেনাপোল সীমান্তে  ।

কিডনি পাচারের শিকার ভুক্তভোগি পাসপোর্ট যাত্রী সিরাজগঞ্জ জেলার বেলকুচি থানার ঢুকুরিয়াবেড়া গ্রামের ইদ্রিস আলী মন্ডলের ছেলে মোহাম্মাদ ইউনুছ আলী (৩৬)। তার (পাসপোর্ট নং-ইএম-০৭৪৮৫৮৫)। আর পাচারকারী গাজিপুর জেলার মোল্লাবাড়ি রোড, হাউজপাড়া, ১৭/১১ গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন এলাকার ফজলুল হকের ছেলে আনিছুর রহমান (২৭)।

উদ্ধারের পরে  ভিকটিম  ইউনুছের ল্যাগেজ থেকে কুমিল্লা জেলার বল্লভপুর গ্রামের বাবুল মিয়ার মেয়ে রুনা বেগম (পাসপোর্ট নং এ-০০৫৪৭৮৮৮) নামে এক নারীর পাসপোর্ট উদ্ধার করা হয়।

বিজিবিকে দেয়া জবানবন্দীতে  ভুক্তভোগি ইউনুছ জানায় , আমাকে এক বছরে ৩ লক্ষ ৭০ হাজার টাকার কাজের চুক্তিতে ভারত পাঠাবে বলে আনিছুর আমাকে নিয়ে এসেছে । এরপর বিজিবির হাতে আটক হওয়ার পর জানতে পারি আমার শরীর থেকে চুরি করে কিডনি বিক্রি করার জন্য আনিছুর আমাকে ভারতে পাঠাচ্ছে।

ইউনুছ জানায়,  ভারতে যেতে রাজী না হলে গত বুধবার ঢাকায় একটি হোটেলে  মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে ভয় দেখিয়ে  ঢাকা থেকে বিমানে করে যশোর আনে আমাকে । যশোর থেকে প্রাইভেট কারে করে বেনাপোল নিয়ে আসলে আমি বিজিবিকে দেখে সুযোগ বুঝে  ঘটনা খুলে বলি। আর ওই নারীর পাসপোর্ট  আনিছুর আমার কাছে দিয়েছে ভারতে যেখানে যাব তাদের কাছে দিতে। ভারতে আমাকে যেখানে পাঠাবে সেখানে নিয়ে যাওয়ার জন্য ভারতের পেট্রাপোল চেকপোষ্টে লোক অপেক্ষা করছে। ইউনুছ আরো জানায়,  আমি ঢাকায় একটি গার্মেন্টসে কাজ করি।

অন্যদিকে পাচারকারী আনিছুর রহমান বলেন, তার সাথে তার কোম্পানির লোকের কিডনি দেওয়া বাবদ উক্ত টাকায়  চুক্তি হয়। সে মোতাবেক তাকে আমি বেনাপোল এগিয়ে দেওয়ার জন্য নিয়ে এসেছি। এছাড়া আমার কিছু জানা নেই।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন