• আজ বুধবার, ১৩ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ২৮ জুলাই, ২০২১ ৷

উৎপাদনে বিলম্ব হবার কারনে কয়লাভিত্তিক ১০ বিদ্যুৎকেন্দ্র বাতিলের সিদ্ধান্ত


❏ রবিবার, জুন ২৭, ২০২১ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- সময়মতো উৎপাদনে আসতে না পারায় কয়লাভিত্তিক ১০টি বিদ্যুৎ প্রকল্প সরকার বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আজ রোববার সচিবালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

বাতিল হওয়া কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো হলো- পটুয়াখালী ১৩২০ মেগাওয়াট কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, উত্তরবঙ্গ এক হাজার ২০০ মেগাওয়াট সুপার থারমাল পাওয়ার প্লান্ট, মাওয়া ৫২২ মেগাওয়াট কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, ঢাকা ২৮২ মেগাওয়াট কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, চট্টগ্রাম ২৮২ মেগাওয়াট কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প।

এ ছাড়া খুলনা ৫৬৫ মেগাওয়াট কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, মহেশখালী এক হাজার ৩২০ মেগাওয়াট কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, মহেশখালী এক হাজার ৩২০ মেগাওয়াট কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, বাংলাদেশ-সিঙ্গাপুর ৭০০ মেগাওয়াট আল্ট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র ও সিপিজিসিবিএল-সুমিতোমো এক হাজার ২০০ মেগাওয়াট আল্ট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প।

এসব বিদ্যুৎ কেন্দ্র বাতিল হওয়ায় কোনো প্রভাব পড়বে কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘এগুলো অনেক দিন ধরেই বিলম্বিত হচ্ছিল, তাই বিকল্প ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। আমরা সেভাবেই পরিকল্পনা নিয়েছি। এতে কোনো সংকট তৈরি হবে না। আঞ্চলিক গ্রিড ব্যালান্সের জন্য ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। নেপাল থেকে বিদ্যুৎ আমদানির বিষয়ে চুড়ান্ত ধাপে রয়েছি। এখন আর কোনো সংকট নেই।’

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ‘অনেকে সৌর বিদ্যুতের কথা বলেন, এখনো এই বিদ্যুতের দাম বেশি। আমরা চাই সবার জন্য সাশ্রয়ী বিদ্যুৎ নিশ্চিত করতে। যত দ্রুত বিদ্যুৎ দিতে পারব, ততদ্রুত দেশের উন্নয়ন হবে।’

উল্লেখ্য, এর আগে দেশের ১০টি কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্প বাতিলের প্রস্তাব অনুমোদন করেন প্রধানমন্ত্রী। কয়েক বছর ধরে এসব প্রকল্পের নির্মাণকাজের কোনো অগ্রগতি না হওয়ায় বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় এগুলো বাতিলের প্রস্তাব দিয়েছিল।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন