যে সংবাদের শিরোনামে ‘বিব্রত’ সময়ের কণ্ঠস্বর !

কলংকিত পিতা
❏ সোমবার, জুন ২৮, ২০২১ দেশের খবর, ময়মনসিংহ, স্পট লাইট

কামরুজ্জামান মিন্টু স্টাফ রিপোর্টারঃ ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে ১৫ বছর বয়সী নিজের মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে মোস্তফা (৪০) নামে ‘হুবুহু মানুষের মত দেখতে এক অমানুষ পাষণ্ড’ পিতার বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় ওই পিতাকে গ্রামবাসী আটকের পর সোপর্দ করেছে পুলিশের হাতে।

রোববার (২৭ জুন) বিকেলে মোস্তফার বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে থানায় মামলা করেছেন মোস্তফার মা। এর আগে গত (২২ জুন) দুপুরে উপজেলার আমতৈল ইউনিয়নের চকেরকান্দা গ্রামের নিজের বসতঘরে এ ঘটনা ঘটে।

বিষয়টি সময়ের কন্ঠস্বরকে নিশ্চিত নিশ্চিত করেছেন হালুয়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহমুদুল হাসান।

ওই তরণীর পরিবার ও স্বজনরা জানান, মোস্তফা প্রায় সময় নেশা পান করতো। এসব নিয়ে পারিবারিক কলহের জেরে প্রায় ৮ বছর আগে তার স্ত্রী সংসার ছেড়ে চলে যায়। ওই মেয়েসহ মোস্তফার আরও দুই ছেলে রয়েছে। বেশ কিছুদিন যাবত মোস্তফা তার মেয়ের উপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতো। কিন্তু কেন এমন করতো কেউ বুঝতে পারেনি।

মামলার অভিযোগ ও পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, গত মঙ্গলবার দুপুরে বাড়িতে কেউ ছিলো না। এই সুযোগে মোস্তফা তার মেয়েকে জোর করে ধর্ষণ করে। এ ঘটনা যেন কাউকে না বলা হয় সেজন্য মোস্তফা তার মেয়েকে শারীরিক নির্যাতনও করে। শনিবার ২৬ জুন ঘটনার শিকার তরুনী তার কাকার বাড়িতে গিয়েছিল। সেজন্য মোস্তফা তার মেয়েকে বেধড়ক মারধর করে। পরে ওই তরুণী তার দাদীকর সব ঘটনা বলে দেয়।

রোববার সকালে মোস্তফার মা কয়েকজনকে ধর্ষণের বিষয়টি খুলে বলেন। এরপর তরুণীর দুই দাদা ও প্রতিবেশীরা এসে  লম্পট পিতা মোস্তফাকে আটক করে । পরে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে ঘটনাটি  জানিয়ে গ্রামবাসী মিলে মোস্তফাকে আটকে রেখে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

স্থানীয় একজন শিক্ষক এই ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় জানালেন, অপসংস্কৃতির চরম দৌরাত্মে দিন দিন কোথায় গিয়ে ঠেকছে কিছু মানুষের বিবেক ! অভাবটা কোথায়; মুল্যবোধে, নাকি পারিবারিক শিক্ষায় সেটা বিবেচনার সময় খুব বেশি এসেছে সবার।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান শফিক বলেন, রোববার সকালে স্থানীয়দের কাছে বিষয়টি জানতে পারি। তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘটনাটির সত্যতা পেয়েছি। পরে থানা পুলিশকে জানানোর পর পুলিশ এসে মোস্তফাকে আটক করে নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে হালুয়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মাহমুদুল হাসান সময়ের কন্ঠস্বরকে বলেন, রোববার বিকেলে মোস্তফার মা (তরুণীর দাদী) বাদী হয়ে মোস্তফার বিরুদ্ধে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন। আগামীকাল সোমবার সকালে মোস্তফাকে আদালতে তোলা হবে। সেই সাথে ওই তরুণীর ডিএনএ টেস্টের জন্য তাকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন