• আজ রবিবার, ১৭ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ১ আগস্ট, ২০২১ ৷

মির্জাপুরে দিব্যি চলছে নিষিদ্ধ অটোরিকশা-ইজিবাইক!

mirzapur 5
❏ সোমবার, জুন ২৮, ২০২১ ঢাকা

মো. সানোয়ার হোসেন, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি- নিষিদ্ধ ঘোষণার পরও টাঙ্গাইলের মির্জাপুর পৌরসদরে দিব্যি চলছে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা-ইজিবাইক। ব্যাঙের ছাতার মতো পৌরসদরে বৃদ্ধি পেয়েছে ব্যাটারিচালিত অবৈধ অটোরিকশা।

কাগজবিহীন এসব অটোরিকশায় সয়লাব হয়েছে পুরো উপজেলা। পৌর কর্তৃপক্ষের কোনো অনুমতি না থাকা সত্ত্বেও পুলিশের নিস্কিক্রয়তা মাত্রাতিরিক্ত অটোরিকশা বৃদ্ধিতে চরম যানজট, বিদ্যুৎ অপচয় ও ভোগান্তিতে রয়েছেন সাধারণ মানুষ। যদিও দুর্ঘটনা রোধে সরকার সারাদেশে গত ২১জুন ব্যাটারিচালিত রিকশা-ইজিবাইক ও ভ্যান বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়।

নির্দেশনা উপেক্ষা করে উপজেলার পৌরশহরের বিভিন্ন সড়কে স্বাভাবিক নিয়মেই চলতে দেখা গেছে নিষিদ্ধ ঘোষিত অটোরিকশা-ইজিবাইক। ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের মির্জাপুর পুরাতন ও নতুন বাসস্যান্ডে এলাকায় পুলিশের সামনেই চলতে দেখা যায় এসব নিষিদ্ধ রিকশা-ইজিবাইক। এসব ব্যাটারিচালিত রিকশা-ইজিবাইক মূল সড়কসহ অলিগলির রাস্তা দখল করে সৃষ্টি করছে যানজট ও দূর্ঘটনা।

পোষ্টকামুরী গ্রামের বাসিন্দা কালাম খান বলেন, গতি বেশি হওয়ায় উল্টে যাওয়ার আশঙ্কায় ব্যাটারিচালিত রিকশায় চড়তে ভয় লাগে। তবে পৌরসভায় এখন এত বেশি ব্যাটারিচালিত রিকশা, যে কারণে সবাই এতে উঠছেন। অনেকে সময় বাঁচানোর জন্যই এসব যানে চড়ছেন।

পৌরসভা সূত্র জানায়, সদরে ব্যাটারিচালিত রিকশা ৮শত, ইজিবাইক ২শত এবং প্যাডেলচালিত ৪০টি রিকশা রয়েছে। এর বাইরে আরও প্রায় ৫ থেকে ৬ শত অবৈধ রিকশা-ইজিবাইক রয়েছে। এসব ব্যাটারিচালিত রিকশা উচ্চ আদালতের নির্দেশে নিষিদ্ধ রয়েছে। তবে নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে এসব রিকশা ঠিকই অবাধে চলাচল করছে।

জানতে চাইলে মির্জাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ রিজাউল হক এই প্রতিবেদককে জানান, ইতিমধ্যে অটোরিকশা বন্ধের চিঠি পেয়েছি। খুব দ্রুত ব্যাটারিচালিত অবৈধ অটোরিকশা বন্ধ করার ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিষয়ে মির্জাপুর পৌরসভার মেয়র সালমা আক্তার জানান, ইতিপূর্বে বেশ কয়েকবার অবৈধ অটোরিকশা-ইজিবাইক আটক করা হয়েছিলো। কিন্তু নিয়ম না মেনে ফের রিকশা-ইজিবাইক রাস্তায় চলছে।

সরকারের নির্দেশনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে পুলিশের সহযোগিতায় অতি দ্রুত এসব বন্ধ করে দেয়া হবে বলে জানান মেয়র।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন