• আজ শুক্রবার, ১৫ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ৩০ জুলাই, ২০২১ ৷

বয়স্ক চালককে অজ্ঞান করে অটোরিকশা ছিনতাই করতেন তারা

Mymensing news
❏ শুক্রবার, জুলাই ২, ২০২১ ময়মনসিংহ

কামরুজ্জামান মিন্টু, স্টাফ রিপোর্টারঃ টার্গেট বয়স্ক অটোরিকশা চালক, পেয়ে গেলেই রিজার্ভ নিয়ে গন্তব্যের দিকে যাত্রা। তবে, পথিমধ্যে বয়স্ক বৃদ্ধকে আপ্যায়ন করতে ভুলেন না তারা। জুসের সাথে নেশাজাতীয় দ্রব্য মিশিয়ে কৌশলে খেতে দেওয়া হতো। এরপর চালক অজ্ঞান হলেই নিরাপদ জায়গায় ফেলে দিয়ে গাড়ী নিয়ে কেটে পড়তেন চক্রটি।

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার নন্দী গ্রামের মৃত আঃ রশিদের ছেলে অটোরিকশা চালক শাহিনুর ইসলাম (৫২) নামে একজন বাড়ি থেকে বেড় হয়ে আর ফিরে আসেননি। অটোরিকশাটিও ছিলো নিখোঁজ। অবশেষে লাশ মর্গে পেয়েছিল পরিবার। অটোরিকশা নিতে ছিনতাইকারীরা তাকে হত্যা করেছে ধারণা করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন পরিবার। এরপর মাঠে নামে গোয়েন্দা পুলিশ। অবশেষে অভিযানে গ্রেপ্তার হয় দুই নারীসহ চারজন।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- কুড়িগ্রাম জেলা ভূরুঙ্গামারি উপজেলার পাথরডুবি গ্রামের আঃ হালিমের ছেলে মোঃ খোরশেদ আলম (৩৬), নেত্রকোণার কলমাকান্দা উপজেলার হাটশিরা শিবনগর গ্রামের মোঃ সুরুজ আলীর ছেলে বকুল মিয়া (২৫) ও একই এলাকার জীবন রহমানের স্রী মোছাঃ ইয়াসমিন আক্তার (২৬)। এছাড়া ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার কাদিরপুর গ্রামের ফরজুল হক ওরফে নজরুল ইসলামের স্রী মোছাঃ শেফালী বেগম (৩০)।

শুক্রবার (২ জুলাই) বিকেলে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয় থেকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে। এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার গাজীপুর হোতাপাড়া থানার মনিপুর বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, চলতি বছরের গত (১২ এপ্রিল) সকালে প্রতিদিনের মতো অটোরিকশা নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়েছিল শাহিনুর। স্বাভাবিকভাবে রাতে তার বাসায় ফেরার কথা থাকলেও সেদিন রাতে সে বাসায় ফিরেননি। খুঁজাখুঁজি করে না পেয়ে তার স্রী পারভীন আক্তার গৌরীপুর থানায় নিখোঁজের একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।

এর দুইদিন পর ১৬ এপ্রিল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেসবুক) একজনের পোষ্ট দেখে পরিবার জানতে পারেন একজন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির মরদেহ ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পড়ে আছে। এমতাবস্থায় শাহিনুরের স্রীসহ ভাইয়েরা হাসপাতাল মর্গে ছুটে গিয়ে শাহিনুরের মরদেহ শনাক্ত করেন।

এ ঘটনায় ১৯ এপ্রিল থানায় সাধারণ ডায়েরিটি হত্যা মামলা হিসেবে নথিবদ্ধ করা হয়। এ মামলাটি তদন্তের ভার আসে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের হাতে। দীর্ঘ তদন্ত করে ঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত করা হয়। এরপর গতকাল বৃহস্পতিবার গাজীপুর হোতাপাড়া থানার মনিপুর বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে দুইজন পুরুষসহ দুইজন নারীকে গ্রেপ্তার করা হয়। একইদিন তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে নেত্রকোনার দূর্গাপুর উপজেলায় অভিযান চালিয়ে দুইটি ব্যাটারীচালিত অটোরিকশা ও একটি মোবাইল জব্দ করা হয়েছে৷

এ বিষয়ে ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ওসি) শাহ কামাল আকন্দ বলেন, এর আগেও এই চক্রটি চলতি বছরের গত (২৬ জুন) ময়মনসিংহের নান্দাইলে একই কায়দায় একটি অটোরিকশা রিজার্ভ করেছিল। পথিমধ্যে চালককে চেতনানাশক খাবার খাইয়ে গাড়ীটি নিয়া পালিয়ে যায়। অটোরিকশা চালক হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়। এ ঘটনায় গতকাল বৃহস্পতিবার নান্দাইল থানায় একটি মামলা হয়েছে।

ওসি বলেন, একটি চক্রটি প্রথমে অপেক্ষাকৃত বয়স্ক অটোরিকশা চালকদের টার্গেট করতো। নিদিষ্ট স্থানের জন্য রিজার্ভ করা হতো। পথিমধ্যে চক্রটির সবাই জুস জাতীয় খাবার খায়। এসময় চালককে নেশাজাতীয় দ্রব্য মিশ্রিত জুস খাইয়ে অজ্ঞান করে অটোরিকশা নিয়ে পালিয়ে যেতো।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন