🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ বৃহস্পতিবার, ২১ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ৫ আগস্ট, ২০২১ ৷

টানা বৃষ্টি ও লকডাউনের প্রভাবে দাম নেই জাতীয় ফলের


❏ রবিবার, জুলাই ৪, ২০২১ দেশের খবর, রংপুর

অনিল চন্দ্র রায়,ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) সংবাদদাতাঃ

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে টানা বৃষ্টি ও কট্টর লকডাউনের প্রভাব পড়েছে মৌসুমী ফল চাষীদের। পানির দরে বিক্রি হচ্ছে জাতীয় ফল কাঁঠাল। এক দিকে টানা বর্ষা অন্য দিকে সরকারী ঘোষনায় এবার কট্টর বিধিনিষেধের ও কারণে ক্রেতা শূণ্য হয়ে পড়েছে উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারগুলোতে।

রোববার উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে ঘুরে দেখা গেছে, জাতীয় ফল কাঁঠাল পানির দামে বিক্রি হচ্ছে। কট্টর লকডাউনের কারণে হাট-বাজারগুলোতে ক্রেতা শূণ্য অন্য দিকে বিভিন্ন জেলা-উপজেলা থেকে মৌসুমী ফল ব্যবসায়ীরা আসতে না পাড়ায় ফল চাষী ও স্থানীয় ফল ব্যবসায়ীর এবারে লাভের মুখ দেখেনি। তারা বাধ্য হয়ে বিভিন্ন হাট-বাজারে পানির দামে জাতীয় ফল বিক্রি করছেন।

ফল চাষী নুর ইসলাম ও ইমরান হোসেন জানান,তারা প্রত্যেকের ৫ থেকে ৭ টি করে কাঁঠাল গাছ থেকে ১০ থেকে ১২ টি কাঁঠাল বালারহাট বাজারে নিয়ে এসেছে। বাজারে ক্রেতা শূণ্য হওয়ায় পানির দরে কাঁঠাল বিক্রি করেছেন। ইমরান হোসেন ১২ টি কাঁঠাল বিক্রি করেন ১০০ টাকা এবং নুর ইসলাম ১০ টি কাঁঠাল বিক্রি করেন মাত্র ৭০ টাকা।

একই বাজারে আসা ফল চাষী আব্দুর রব জানান, তার গাছের ১০ টি কাঁঠাল বিক্রি করতে নিয়ে এসেছেন কিন্তু বাজারে ক্রেতা না থাকায় দুই ঘন্টা অপেক্ষা করে মাত্র ১ টি কাঁঠাল বিক্রি করেছেন ১৫ টাকা।

উপজেলার পশ্চিমফুলমতি এলাকার ফল ব্যবসায়ী জলেয়া রহমান জানান, এ বছর ফল চাষীদের কাজ থেকে ২২ টি কাঁঠাল গাছ ৫ হাজার টাকায় ক্রয় করেছি। বৃষ্টি ও লকডাউনের কারণে বাহিরের ফল চাষীরা আসতে না পাড়ায় পানির দামে স্থানীয় হাট-বাজারে বিক্রি করছি। এযাবদ ৩ হাজার টাকা বিক্রি হয়েছে। এখনো ৯ টি গাছের কাঁঠাল আছে। এরকম বাজার দর থাকলে সব মিলে ৬ থেকে ৭ হাজার টাকা বিক্রি হওয়ার সম্ভাবনা আছে। তাই এ বছর লোকসান গুনতে হবে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাহবুবুর রশিদ জানান, একৃষি অফিসের তথ্য অনুয়াযী এ উপজেলা কাঁঠালে বাগান না থাকলেও প্রতিটি বসতবাড়ীর উঠানও জমির আইলে ফলচাষীরা জাতীয় ফল কাঁঠাল গাছ লাগিয়েছে। এ উপজেলা মোট ৪০ থেকে ৫০ হাজার জাতীয় ফল কাঁঠাল স্বাভাবিক ভাবে কাঁঠাল গাছে ধরেছে। এ বছর বৈরী আবহাওয়া কারণে গাছের কাঁঠাল আকারে ছোট হয়েছে। তারপরেও এ উপজেলা চাহিদা পুরণ করে দেশের বিভিন্ন জেলায় যায়। এবছর টানা বৃষ্টি ও কট্টর লকডাউন থাকায় বাহিরের জেলাগুলো ফল ব্যবসায়ীরা কাঁঠাল নিয়ে যেতে না পাড়ায় স্থানীয় বাজারগুলোতে পানির দরে এ সব কাঁঠাল বিক্রি করছেন।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন