• আজ শুক্রবার, ১৫ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ৩০ জুলাই, ২০২১ ৷

পেরুকে হারিয়ে কোপার ফাইনালে ব্রাজিল

neymar 5
❏ মঙ্গলবার, জুলাই ৬, ২০২১ খেলা, ফিচার

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক- দুই দলের ইতিহাস যাদের জানা, তাঁরা মোটামুটি নিশ্চিত ছিলেন, ফাইনালে উঠতে ব্রাজিলকে তেমন কাঠখড় পোড়াতে হবে না। সেটা করতেও হয়নি। প্রথম রাউন্ডেই মুখোমুখি হয়েছিল দুই দল, সেখানে নেইমারের জাদুতে পেরুকে ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছিল ব্রাজিল।

একই মাঠে দুই দলের মধ্যে অনুষ্ঠিত সেমিফাইনালে আবারও ব্রাজিলের দাপটই দেখা গেল। আর তাতেই আরেকবার নেইমারের জাদুর ওপর ভর করে পেরুর বাধা পেরোলো ব্রাজিল। নেইমারের সহায়তায় মিডফিল্ডার লুকাস পাকেতার গোলে পেরুকে ১-০ গোলে হারিয়ে কোপা আমেরিকার ফাইনালে উঠেছে স্বাগতিক ব্রাজিল।

সেই লুকাস পাকুয়েতার গোলেই জয় নিশ্চিত হলো সেলেসাওদের। কোয়ার্টার ফাইনালে চিলির বিপক্ষে যখন গোল পাচ্ছিল না ব্রাজিল, তখন এই লুকাস পাকুয়েতাই মাঠে নেমে গোল করে জেতালেন দলকে।

এবার গ্যাব্রিয়েল হেসুসের লাল কার্ড থাকার কারণে তিনি খেলতে পারছেন না সেমিফাইনালে। এ কারণে পাকুয়েতাকে দিয়েই সেমিফাইনালের একাদশ সাজান ব্রাজিলে কোচ তিতে।

সেই পাকুয়েতাই খুললেন পেরুর গোলের তালা খুললেন। ৩৪ মিনিটে নেইমারের অসাধারণ একটি পাস থেকে বাম পায়ের দুর্দান্ত শটে পেরুর জালে বল জড়িয়ে দেন লুকাস পাকুয়েতা। পেরুর বিপক্ষে এই এক গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে গেলো ব্রাজিল।

তবে প্রথমার্ধের স্কোরশিট দেখলে কোনোভাবেই ব্রাজিল কতটা প্রভাব বিস্তার করে খেলেছে তা বোঝা যাবে না। পেরুর গোলরক্ষক গ্যালাসে বারবার কঠিন দেয়ালের মত দাঁড়িয়ে না গেলে গোল হতে পারতো আরো কয়েকটি।

খেলার ৬ষ্ঠ মিনিটের মাথায় রেনান লোদির ক্রস বিপদ ডেকে আনার আগেই মাঠের বাইরে বের করে দেন কোরজো। কর্ণার পেয়ে যায় ব্রাজিল। ৮ম মিনিটেই গোলের দারুণ সুযোগ তৈরি হয়েছিল। এ সময় লুকাস পাকুয়েতা বল বাড়িয়ে দেন রিচার্লিসনের দিকে। তিনি দুর্দান্ত এক ক্রস করেন নেইমারের দিকে। কিন্তু দারুণ সুযোগ পেয়েও নেইমার সেই বলটি পাঠিয়ে দেন মাঠের বাইরে।

১৩ মিনিটের মাথায় ফ্রি-কিক থেকে ক্যাসেমিরোর জোরালো শট সোজা চলে যায় পেরুর গোলরক্ষক গ্যালাসের কাছে। তিনি প্রতিহত করলে গোল বঞ্চিত হয় ব্রাজিল। ১৫ মিনিটের মাথায় রিচার্লিসনের কাছ থেকে বল পেয়ে গোলমুখে শট নেন এভার্টন। কিন্তু তার শট প্রতিহত করে দেন গালেসে।

১৯ মিনিটের মাথায় আরও একটি দারুণ সুযোগ পেয়েছিল ব্রাজিল। কিন্তু পাকুয়েতা-নেইমার জুটির বার কয়েক চেষ্টার পরও পেরুর গোলরক্ষককে পরাস্ত করা সম্ভব হয়ি তাদের পক্ষে।

৩৪তম মিনিটে এসে অবশেষে পেরুর গোলের তালা খুললেন নেইমার এবং পাকুয়েতা। বক্সের মধ্যে অন্তত দু’জনকে কাটালেন নেইমার। এরপর বল বাড়িয়ে দিলেন পাকুয়েতার দিকে। বাম পায়ের দারুন শটে সেটি তিনি জড়িয়ে দেন পেরুর জালে।

শেষ পর্যন্ত ওই এক গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ব্রাজিল। নিশ্চিত করে নিজেদের টানা দ্বিতীয় ফাইনাল।

১০ জুলাই মারাকানায় ফাইনালে নামবে স্বাগতিক ব্রাজিল। প্রতিপক্ষ হিসেবে তারা পাচ্ছে দ্বিতীয় সেমিফাইনালে আর্জেন্টিনা বনাম কলম্বিয়া ম্যাচে জয়ী দলকে।

বুধবার ব্রাসিলিয়ায় দ্বিতীয় সেমিতে মুখোমুখি হচ্ছে দুই দল।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন