🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ শনিবার, ৯ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ২৪ জুলাই, ২০২১ ৷

করোনাকালে এরাই রিয়েল হিরো 

Chattragram news
❏ বৃহস্পতিবার, জুলাই ৮, ২০২১ চট্টগ্রাম

জে জাহেদ, চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: করোনা ভাইরাসের চলমান ঢেউ মোকাবিলায় মাঠে লড়ছেন সবাই। তবে কিছু তরুণ সাধারণের চেয়ে একটু আলাদা। করোনা মহাসঙ্কটে তাঁরা শুধু নিজেদের কথা ভাবেননি, ভেবেছেন অন্যদের নিরাপদ ও সচেতনতার কথাও।

প্রাণঘাতী এই সংক্রমণ মোকাবেলায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এখনো শহর কিংবা উপজেলার প্রতিটি হাট-বাজার চষে বেড়াচ্ছেন কিছু অদম্য তরুণ তরুণী ও মানবিক যোদ্ধা। বলেছিলাম চট্টগ্রাম ‘কর্ণফুলী এ জে চৌধুরী কলেজ রোভার স্কাউট গ্রুপ এর সদস্যদের কথা।

নিজেদের প্রাত্যহিক জীবন ও পড়ালেখার চাপের মধ্যেও প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য করোনাকালে সচেতনতামূলক কার্যক্রম, মাস্ক ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণ, সরকারী নির্দেশনা বাস্তবায়নে সংক্রমণ থেকে রক্ষার প্রচেষ্টায় ম্যাজিস্ট্রেট এর ভ্রাম্যমান অভিযানে সহযোগিতায়-পুরো উপজেলা জুড়ে ছুটে বেড়াচ্ছেন কর্ণফুলী এ জে চৌধুরী কলেজ রোভার স্কাউট গ্রুপের সদস্যরা।

স্কাউট গ্রুপ গণজনসচেতনতা ও সেবামূলক কাজের অংশ হিসেবে-চট্টগ্রাম শহরে ডেঙ্গু প্রতিরোধ কর্মসূচি, বৃক্ষরোপন অভিযান, মৎস্যপোনা অবমুক্তকরণ, প্লাস্টিক টাইড টার্নারস চ্যালেঞ্জ ব্যাজ প্রোগ্রাম বাস্তবায়নসহ বহু জনহিতকর কর্মসূচি পালন করছেন। ইতোমধ্যে যা সর্বমহলে প্রশংসিত হয়েছে।

মানবিক সংগঠনটির রোভার স্কাউট সদস্যরা বরাবরেই বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস, জাতীয় দিবস, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস, বিশ্ব দিবস ছাড়াও আয়কর মেলা, দূর্নীতি প্রতিরোধ দিবস, ভোটার দিবস, ডিজিটাল দিবস, ট্রাফিক সপ্তাহ পালনসহ আন্তঃজেলার সকল প্রোগ্রামে সক্রিয় ভাবে কাজ করে চলেছেন।

পাশাপাশি রোভার দল ঘূর্নিঝড়-সাইক্লোন কিংবা বৈশ্বিক দূর্যোগময় মুহুর্তে স্থানীয় প্রশাসনের সাথে একাত্ম হয়ে মাঠে সহায়ক ভূমিকা পালন করেন। এতে সুবিধাবঞ্চিত মানুষের সেবায় নিজেদের দাঁড় করিয়েছেন বারংবার। ফলে, সাধারণ মানুষের কাছে এ জে চৌধুরী কলেজ রোভার স্কাউট গ্রুপ হয়ে উঠেছিলেন একটি মানবিক রোভার ইউনিট।

এছাড়াও কর্ণফুলী এ জে চৌধুরী কলেজ রোভার স্কাউট গ্রুপ চট্টগ্রাম জেলা, কর্ণফুলী উপজেলা ও কলেজ ভিত্তিক প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করে বিজয়ী হওয়ার পাশাপাশি অর্জন করেছেন নানা পুরস্কার, পদক ও অ্যাওয়ার্ড।

এ প্রসঙ্গে রোভার স্কাউট লিডার (আরএসএল) নাজনীন সুলতানা জানান, ‘শিক্ষার্থীদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি ও এই কাজে অভ্যস্ত করার জন্য আমরা ২০১৭ সালেই এই উদ্যোগ গ্রহণ করি। আমাদের চারপাশের পরিবেশ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার দায়িত্ব আমাদের সকলের। আগামীতে আরও বৃহৎ পরিসরে এ ধরনের উদ্যোগ নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।’

শিক্ষা ও অর্থ উপ-কমিটির আহবায়ক নজরুল ইসলাম টুকু বলেন, ‘নিজের দায়িত্বে সর্বদাই অবিচল থেকে কঠিন মহামারিতেও এ জে চৌধুরী কলেজের রোভার সদস্যরা লড়াই করেছেন, রাস্তায় নেমে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছেন। যেভাবে প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে তাঁরা কাজ করেছেন তা দেখে নিশ্চয় তরুণ প্রজম্ম অনুপ্রাণিত হবে। তা দেখে অনেকেই দেশ ও মানুষের সেবায় এগিয়ে আসবে।’

গভর্নিং বডির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহিনা সুলতানা বলেন, ‘করোনা সচেতনতায় সম্মুখ যোদ্ধা হিসেবে রোভার স্কাউট সদস্যরাও স্বতঃস্ফুর্তভাবে কাজ করছেন।’

কলেজের অধ্যক্ষ ও রোভার গ্রুপ সভাপতি মোঃ জসীম উদ্দীন বলেন,‘এ কলেজটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ১৯৮২ সালে। আমি অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছি ২০১৫ সালে। চট্টগ্রাম জেলা রোভার এর তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ফজলুল কাদের চৌধুরীর অনুপ্রেরণায় ২০১৭ সালেই রোভার স্কাউট ইউনিট গঠন করেছি। গভর্নিং বডির সার্বিক সহযোগিতায় এবং আরএসএল নাজনীন সুলতানা ম্যাডাম এর অক্লান্ত পরিশ্রম এর কারণেই আজ আমাদের কলেজের রোভার স্কাউট গ্রুপ এ পর্যায়ে এসেছে। এ দল গঠনে অধ্যাপক আবদুল জলিল ও আরএসএল মোঃ হাবিবুর রহমানের অবদানও অনস্বীকার্য। আশাকরি আমাদের এ প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।’

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে কর্ণফুলী এ জে চৌধুরী কলেজ রোভার স্কাউট গ্রুপ গঠন করা হয়। এরমধ্যে তিনটি দীক্ষা ২০১৮, ২০১৯, ২০২০ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বর্তমানে রোভার স্কাউট গ্রুপের ৮ স্বেচ্ছাসেবী সদস্যরা হলেন-সাইফুল ইসলাম (দলনেতা), রেজাউল করিম (সহ-দলনেতা), রিমা আক্তার ও টুম্পা আক্তারসহ আরো কয়েকজন। এদের অনেকেই বেসিক ও অনলাইন দক্ষতা ই-কোর্স সম্পন্ন করে রোভার মেট ওয়ার্কসে স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে অংশগ্রহণ করেছেন।

২০১৯ সালে কর্ণফুলী এ জে চৌধুরী কলেজ রোভার স্কাউট গ্রুপ উপজেলা শ্রেষ্ঠ রোভার দল নির্বাচিত হন। ৭৮ টি কলেজের সাথে প্রতিযোগিতা করে ৬টি বিভাগে পুরষ্কার অর্জন করে কলেজের মুখ উজ্জ্বল করেন।

রোভার গ্রুপ সভাপতি মোঃ জসীম উদ্দীন ও আরএসএল অধ্যাপক নাজনীন সুলতানা দু’জনই রোভারের ন্যাশনাল এ্যাওয়ার্ড অর্জন করেছেন। মাত্র ৪ বছরের মতো স্বল্প সময়ের কার্যক্রমে এ সাফল্য নিশ্চয় প্রশংসার দাবি রাখেন।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন