🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ বৃহস্পতিবার, ২১ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ৫ আগস্ট, ২০২১ ৷

ছোট হাতি বললে ভুল হবে না ৩৫ মনের কালো মানিককে !


❏ বৃহস্পতিবার, জুলাই ৮, ২০২১ দেশের খবর, ময়মনসিংহ

মামুনুর রশিদ, ত্রিশাল ময়মনসিংহ থেকেঃ

আসছে কোরবানির ঈদ কে সামনে রেখে কোরবানির পশু নিয়ে খামারী, ক্রেতা-বিক্রেতাদের আগ্রহ এখন চরমে। প্রতি বছর কোরবানির ঈদের আগে ওজন এবং দাম বিবেচনায় আলোচনায় উঠে আসে নানা বাহারি নামের ষাঁড় গরু।

আসছে কোরবানীর ঈদকে সামনে রেখে ময়মনসিংহে বিক্রির জন্যে ৩৫ মণ বা ১৫০০ কেজি ওজনের একটি ছোট হাতির মতো দেখতে ফ্রিজিয়ান জাতের ষাঁড় গরু পাওয়া যাচ্ছে । গরুটি শান্ত প্রকৃতির ও কালো রঙের হওয়ায় তার নাম রাখা হয়েছে কালো মানিক।

ফ্রিজিয়ান জাতের এ ষাঁড়টি গত চার বছর ধরে লালন পালন করে আসছেন উপজেলার ধানীখোলা ইউনিয়নের খামারী জাকির হোসেন সুমন। কালো মানিক ময়মনসিংহ জেলায় সবচেয়ে বাহারী তালিকার বড় গরু হিসেবে স্থান করে নিয়েছে। গরু কালো মানিকের নাম সবার মুখে মুখে।

গরুর মালিক জানান, অনেক শখ করে ৪ বছর যাবৎ এই ষাঁড়টিকে আমি দেশীয় খাবার খাইয়ে বড়ো করেছি। গরুর মালিকের দাবি জেলার মধ্যে কালো মানিক সবচেয়ে বড় গরু। ক্ষতিকর ও মোটাতাজা করনের কোনো ওষুধ প্রয়োগ ছাড়াই স্বাভাবিক খাবার খাইয়ে একে বড় করা হয়েছে। বিশাল আকারের কালো মানিককে দেখতে অনেকেই ভিড় করছেন। কখনও কখনও গরু ব্যবসায়ী ও সাধারণ ক্রেতারাও আসছেন গরুটি কিনতে। আশা করছি ৩০ লাখ টাকা দাম হবে গরুটির।

পশু চিকিৎসক কামাল উদ্দিন জানান, আমি কালো মানিককে ৪ বছর ধরে চিকিৎসা দিয়ে আসছি। গরুটি প্রাকৃতিক খাবার খড়, ঘাস, খৈল, ভূষি, ভাত, মার ইত্যাদি খাইয়ে বড় করা হয়েছে। ক্ষতিকর ও মোটাতাজা করনের কোনো ওষুধ প্রয়োগ করা হয় নাই। সম্পূর্ন প্রাকৃতিক ভাবে তৈরী করার ফলে মাংস অনেক সুস্বাদু হবে। এটি জেলার সবচেয়ে বড় গরু।

করোনার কারণে এবারের কোরবানির ঈদে দেশের বাইরে থেকে গরু আসার সুযোগ থাকছে না। তাই খামারিরা কোরবানির পশুর যথাযথ মূল্য পাবেন বলে আশা ও প্রত্যাশা করছেন।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন