• আজ বুধবার, ১৩ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ২৮ জুলাই, ২০২১ ৷

ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব বাড়ছে, রাজধানীতে ১১ দিনে ৩৫৫ রোগী শনাক্ত

ডেঙ্গু
❏ সোমবার, জুলাই ১২, ২০২১ ফিচার

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস সংক্রমণের মধ্যেই আতঙ্ক-রূপ ধারণ করছে ডেঙ্গু। জুলাইয়ের প্রথম ১১ দিনে শুধু ঢাকায় ৩৫৫ জনের ডেঙ্গু শনাক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

এদিকে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অন্তত আড়াইশ’ রোগী। আর চলতি বছরের ১১ই জুলাই পর্যন্ত হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন ৫শ’র বেশি রোগী। তবে এ বছর এখনও ডেঙ্গুতে কারও মৃত্যু হয়নি।

কাকরাইলের ইসলামী ব্যাংক সেন্ট্রাল হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগী ভর্তি আছেন ৩৫ জন। আর মগবাজারের আদ-দ্বীন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে ২০ রোগী। আশেপাশের অন্য হাসপাতালেও ডেঙ্গু রোগী ভর্তির হার উর্ধ্বমুখী। রোগির চাপ বাড়ায় ডেঙ্গু ইউনিট খোলার কথাও ভাবছে কোন কোন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

ইসলামী ব্যাংক সেন্ট্রাল হাসপাতালের সুপারিন্টেনডেন্ট ডা. মোহাম্মদ আবু ইউসুফ বলেন, ‘ডেঙ্গু রোগীর ক্ষেত্রে আমরা প্লাটিলেট কাউন্টকে ইন্ডিকেটর হিসেবে দেখি। আমাদের প্লাটিলেট কাউন্টিং মেশিন আছে। ওটি দিয়ে আমরা প্রতিনিয়ত সুপারভাইস করছি।’

বিভিন্ন হাসপাতাল ঘুরে জানা যায়, আরামবাগ, বাসাবো, খিলগাঁও এলাকা থেকেই ডেঙ্গু রোগী আসছে বেশি। এসব এলাকায় নিয়মিত মশক নিধন অভিযান পরিচালনা হয় না বলে অভিযোগ রোগীর স্বজনদের।

এদিকে ডেঙ্গুর বাহক এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে নিয়মিত অভিযান চলছে বলে জানিয়েছে সিটি করপোরেশন।

এ বিষয়ে দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদ আহাম্মদ বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরেই মশক নিয়ন্ত্রণে কাজ করছি। নতুন কোনো উদ্যোগ না থাকলেও মশককর্মীদের কাজ কঠোরভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন লিফলেট বিতরণের পাশাপাশি সব ওয়ার্ডে নিয়মিত মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হচ্ছে।

উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, এডিস মশা, ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধের লক্ষ্যে নগরবাসীর প্রতি আমার আহ্বান ‘তিন দিনে একদিন, জমা পানি ফেলে দিন’।

তিনি বলেন, ডিএনসিসি এলাকার যেসব ডেঙ্গু কিংবা চিকুনগুনিয়া রোগী বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন, সেই তথ্য ডিএনসিসিতে সরবরাহ করা হলে সংশ্লিষ্ট রোগীর বাড়ি ও তার আশপাশে মশার ওষুধ স্প্রে করা হবে।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন