• আজ মঙ্গলবার, ১২ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ২৭ জুলাই, ২০২১ ৷

মেলান্দহে এক বছরেও মেরামত হয়নি ভেঙে যাওয়া সড়ক, ঝুঁকি নিয়ে চলাচল

Jamalpur news
❏ বুধবার, জুলাই ১৪, ২০২১ ময়মনসিংহ

রকিব হাসান নয়ন, জামালপুর প্রতিনিধি: বন্যার পানিতে সড়ক ভেঙে যাওয়ায় বাঁশের সাঁকো দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে মেলান্দহের ঘোষেরপাড়া ইউনিয়নের পাঁচ গ্রামের মানুষ। বেলতৈল-চাড়ালকান্দি সড়কটি বন্যায় ভেঙে পড়লে স্থানীয় বাসিন্দারা বাঁশের সাঁকোটি তৈরি করেন। কিন্তু যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে ভুক্তভোগীরা। এলাকার মানুষের যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম সাঁকোটি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। বারবার সংস্কারের দাবি জানালেও এখনো কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

জানা যায়, গত বছরের বন্যায় সড়কটি ভেঙে পড়লে পরে উপজেলা চেয়ারম্যান সেখানে একটি সাঁকো তৈরি করে দেন। আগে যখন কাঁচা রাস্তা ছিল তখন ভাঙা জায়গায় ছোট সেতু ছিল। রাস্তা পাকা করার সময় ব্রিজটি ভেঙে ফেলা হয় বলে জানান এলাকাবাসী।

স্থানীয় বাসিন্দা রেজাউল করিম বুলবুল বলেন, সড়কটি পাকা করার ছয় মাসও টেকেনি। বন্যার সময় পানির চাপে সড়কটি ভেঙে যায়। এক বছর ধরে এই বাঁশের সাঁকো দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করছে মানুষ।

কৃষক খোকন মিয়া বলেন, বাঁশের সাঁকো দিয়ে কোনো ভ্যান বা অটোরিকশা চলাচল করতে পারছে না। এতে মালামাল আনা–নেওয়া করতে কষ্ট হচ্ছে।

ঘোষেরপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান ওবায়দুর রহমান বলেন, সাঁকোর ওপর দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে মানুষ। মাটি কেটে নতুন করে রাস্তা করে দিলে দুর্ভোগ কিছুটা কমবে।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী (এলজিইডি) মাজেদুর রহমান বলেন, বন্যায় সড়ক ভেঙে এ অবস্থা হয়েছে। ওই জায়গায় মাটি কেটে পুনরায় রাস্তা করা হলেও টিকবে না। প্রয়োজন সেতু নির্মাণের। তবে এই বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন