• আজ শুক্রবার, ২২ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ৬ আগস্ট, ২০২১ ৷

স্বামীর লাশ পুঁতে তার ওপর আড়াই মাস রান্না করেন স্ত্রী


❏ শনিবার, জুলাই ১৭, ২০২১ ঢাকা

সময়ের কণ্ঠস্বর, মুন্সিগঞ্জ- খাবারের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে স্বামীকে হত্যা, তারপর রান্নাঘরে লাশ মাটিতে পুঁতে সেখানেই দুইমাস ১৪দিন রান্না চালিয়ে গেছেন স্ত্রী। লোমহর্ষক এই ঘটনা ঘটেছে মুন্সিগঞ্জের সদর উপজেলার পূর্বশীলমন্দি এলাকায়।

এই অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে সন্দেহভাজন আকলিমা আকলিমা আক্তার ও রিয়াজ নামে একজনকে। নিহত আরাফাত মোল্লার মাটিচাপা দেহাবশেষও উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (১৬ জুলাই) সন্ধ্যা ৬টার দিকে মৃতের লাশ উদ্ধার করে মুন্সিগঞ্জ সদর থানা পুলিশ। এর আগে এইদিন সকাল ১১টায় আকলিমাকে আটক করা হয়।

আরাফাত পূর্বশীলমন্দি এলাকার দুখাই মোল্লার ছেলে। আকলিমা-আরাফাত পরিবারে চারটি সন্তান রয়েছে।

পুলিশ সূত্র জানায়, চলতি বছরের গত ২মে আরাফাত নিখোঁজ রয়েছেন জানিয়ে ১৫ মে সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন আকলিমা। পরবর্তীতে ৩০ মে একটি মামলা করেন। মামলার পর তদন্ত চালায় পুলিশ। তদন্তের একপর্যায় শুক্রবার সকালে আকলিমার সঙ্গে এক প্রতিবেশীর কথোপকথনের ভিডিও পুলিশের হাতে আসে।

পুলিশের হাতে আসা ভিডিওতে দেখা যায়, আকলিমাই আরাফাতকে হত্যা করে ঘরের পাশের রান্নাঘরে পুঁতে রাখার বিষয়টি বলছেন প্রতিবেশীর কাছে। পরে বেলা ১১টার দিকে আকলিমাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পরকীয়াকে কেন্দ্র করে তিনি ঘুমের ওষুধ খাইয়ে স্বামীকে হত্যা করেছেন বলে পুলিশের কাছে স্বীকার করেন।

পরে আকলিমাকে ঘটনাস্থলে নেয়া হলে মরদেহ পুঁতে রাখার স্থান দেখিয়ে দেন তিনি। বিকেল ৬টার দিকে ঘটনাস্থল থেকে মাটি খুঁড়ে দেহাবশেষ উদ্ধার করা হয়।

এ সময় ঘটনাস্থল উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) সুমন দেব, সদর সার্কেল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিনহাজ উল ইসলাম, সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু বকর ছিদ্দিক, ওসি (তদন্ত) রাজিব হোসেন খান।

এ বিষয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ওপ্রশাসন) সুমন দেব বলেন, আরাফাত নিখোঁজের কথা বলে তার স্ত্রী মুন্সীগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। তদন্তের স্বার্থেই আমরা তার স্ত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদ করি এবং আমাদের ইন্টাগেশনে আরাফাতের স্ত্রী স্বীকার করেন যে তিনি ও আরেকজন সহযোগী মিলে আরাফাতকে মেরে তাদের রান্না ঘরে মাটির নিচে পুঁতে রেখেছেন। তার স্বীকারোক্তি মোতাবেক তাকে ঘটনাস্থল নিয়ে আসি এবং তার দেখানো স্থান থেকে আরাফাতের লাশ উদ্ধার করি। আকলিমা ও তার সহযোগী রিয়াজকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন