• আজ রবিবার, ১৭ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ১ আগস্ট, ২০২১ ৷

কোরবানীকে সামনে রেখে ব্যস্ত ত্রিশালের কামার কারিগররা

Trishal news
❏ শনিবার, জুলাই ১৭, ২০২১ ময়মনসিংহ

মামুনুর রশিদ  ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি: কয়েকদিন পরই ঈদুল আজহা। এ জন্য ব্যস্ত সময় পাড় করছেন ত্রিশালের বিভিন্ন কামারপট্টির কারিগররা। ঈদের চাহিদার কথা বিবেচনা করে দা, চাকু, কুরালসহ লোহার সরঞ্জাম তৈরিতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন তারা। বছরের এ সময় চাহিদা বেশি থাকায় কামাররা ভালো উপার্জন করে থাকেন।

যেহেতু কুরবানির পশু কাটাকুটিতে চাই ধারালো দাঁ, বটি, চাপাতি ও ছুরি। তাই কয়লার চুলায় দগদগে আগুনে গরম লোহার পিটাপিটিতে টুং টাং শব্দে মুখর হয়ে উঠেছে ময়মনসিংহের ত্রিশালের  কামার শালাগুলো।

এই ঈদে গরু, ছাগল কুরবানি পশু হিসেবে জবাই করা হয়। সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত কুরবানির পশু জবাই চলে। এসব পশুর গোশত কাটতে দা-বটি, ছুরি-ছোরা, চাপাতি ইত্যাদি ধাতব হাতিয়ার অপরিহার্য।

কয়েকজন কামারের সাথে আলাপ করে জানা যায়, পশুর চামড়া ছাড়ানো ছুরি ১০০ থেকে ২০০, দা ২০০ থেকে ৩৫০ টাকা, বটি ২৫০ থেকে ৫০০, পশু জবাইয়ের ছুরি ৩০০ থেকে ১ হাজার টাকা, চাপাতি ৫০০ থেকে ৮০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

কামারপট্টির মিলন কর্মকার এবং অতুল কর্মকার জানান, বংশানুক্রমিক ভাবে এ কাজ করছি। প্রতি বছরই কুরবানি ঈদের জন্য অপেক্ষায় থাকি। আর ভাবি আবার কখন আসবে সেই ঈদ। ঈদ মৌসুমে আমাদের মূল টার্গেট বছরের কয়েকটা দিন ভালো টাকা, ভালো উপার্জন করা।

ত্রিশালের স্থানীয় মাহাবুব আলম জানান, ঈদে কোরবানিতে নিজে পশু জবাইয়ের  জন্য দা, চাকু মেরামতের জন্য এসেছি। সল্প টাকায় কামারিরা অস্ত্রগুলি প্রস্তুত করে দিচ্ছেন।

সরেজমিন ত্রিশালের  বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে দেখা যায়, আসন্ন কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে অনেক ব্যস্ত সময় পার করছেন কামাররা। পশু জবাইয়ের সরঞ্জামাদি কিনতেও লোকজন ভিড় করছেন তাদের দোকানে। আগে যে সব দোকানে দুজন করে শ্রমিক কাজ করতো, এখন সে সব দোকানে ৫-৬ জন করে শ্রমিক কাজ করছেন।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন