🕓 সংবাদ শিরোনাম

স্ত্রীর তালাকে স্বামীর ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যাসংক্রমণ বাড়লে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আবার বন্ধ: শিক্ষামন্ত্রীশরীয়তপু‌রে বে‌পরোয়া কিশোর গ্যাং, হাত বাড়া‌লেই মিল‌ছে মাদক!বিএনপির কোনো পরিকল্পনা সার্থক হবে না: শাজাহান খানকর্ণফুলীতে ধান ক্ষেত থেকে রিক্সা চালকের লাশ উদ্ধারঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে চালু হবে ২০২৬ সালেমালয়েশিয়ায় গার্মেন্টস কারখানার বাংলাদেশী মালিকসহ ৪৫ জন রিমান্ডে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে ই-ট্রাফিক প্রসিকিউশন কার্যক্রম উদ্বোধনসংকুচিত হচ্ছে বনাঞ্চল: টেকনাফে ফের বন্য হাতির অস্বাভাবিক মৃত্যুদেশে বিনিয়োগ করুন: প্রবাসীদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী

  • আজ শনিবার, ১০ আশ্বিন, ১৪২৮ ৷ ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ৷

ইমামের সঙ্গে গৃহবধূকে রাতভর বেঁধে রাখল গ্রামবাসী


❏ মঙ্গলবার, জুলাই ২৭, ২০২১ রাজশাহী

সময়ের কন্ঠস্বর ডেস্ক: অবৈধ সম্পর্কের অভিযোগে এক গৃহবধূ ও স্থানীয় মসজিদের ইমামকে রাতভর বিদ্যুতের খুঁটিতে বেঁধে রাখায় শহিদুল ইসলাম স্বপন (৩৫) নামের এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

গতকাল সোমবার ১৫১ ধারায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের ভবানীপুর গ্রামে বাড়ির পাশ থেকে আটক হন স্বপন। এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে তাকে আটক করা হয়েছে বলে দাবি করেছে পুলিশ।

এলাকাবাসীর দাবি, গত রোববার দিনাগত রাত ১টার দিকে উপজেলার সদর ইউনিয়নের একটি গ্রামে এক গৃহবধূর বাড়িতে ঢোকেন ওই ইমাম। বিষয়টা জানাজানি হলে গ্রামবাসী ওই গৃহবধূসহ ইমামকে আটক করে রাস্তার পাশে বিদ্যুতের খুঁটিতে রাতভর বেঁধে রাখে। সকালে স্থানীয় কয়েকজন প্রতিবাদ করায় তাদের বাঁধনমুক্ত করা হয়। পরে গ্রামপ্রধানরা সালিস করেন বিষয়টি নিয়ে। দুই পরিবারের কাছ থেকে তারা লিখিত মুচলেকা নিয়ে বিষয়টি সমাধান করেন।

জানা গেছে, সমাধানের পর গৃহবধূর পরিবার ইমামের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ না করায় তাকে পুলিশে না দিয়ে চাকরিচ্যুত করা হয়। একই সঙ্গে তাকে গ্রাম থেকে বের করে দেওয়া হয়। ওই ইমাম পাশের চাটমোহর উপজেলার পার্শ্বডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা।

ওই ঘটনায় গ্রামে গতকাল সকাল থেকেই মানুষের মধ্যে নানা জল্পনা-কল্পনা শুরু হয়। প্রকাশ্যে খুঁটির সঙ্গে একজন নারীকে বেঁধে রাখা নিয়ে গ্রামের কয়েকজন মানুষ প্রতিবাদ করে বিচার দাবি করেন। এ অবস্থায় সোমবার দিবাগত রাতে ওই এলাকার যুবক স্বপনকে আটক করে পুলিশ।

স্বপনের চাচা গুলজার হোসেন বলেন, ‘গ্রামের এক গৃহবধূ ও ইমাম আটকের ঘটনায় পুলিশ স্বপনকে এর আগে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। পরে রাতে তাকে আটক করে নিয়ে যায়। কিন্তু কোনো অভিযোগে তাকে আটক করে নিয়ে যায়, তা জানি না। তবে স্বপন ওই ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী মাত্র। সে ওই গৃহবধূকে বেঁধে রাখার ঘটনার সঙ্গে জড়িত নয়।’

ভবানীপুর গ্রামের বাসিন্দা ও সদর ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক বলেন, ‘শুনেছি স্বপনকে ধরে নিয়ে গেছে পুলিশ। তবে কেন নিয়ে গেছে বিষয়টি জানা নাই।’

ভাঙ্গুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফয়সাল বিন আহসান বলেন, ‘স্বপনকে আটকের সঙ্গে গৃহবধূ ও ইমামের ঘটনার কোনো সম্পর্ক নেই। এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতেই স্বপনকে ১৫১ ধারায় আটক করা হয়েছে।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন