• আজ মঙ্গলবার, ৬ আশ্বিন, ১৪২৮ ৷ ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ৷

করোনায় মাস্ক বিক্রি করে সংসারের হাল ধরেছেন আনোয়ার

Trishal news
❏ মঙ্গলবার, আগস্ট ১০, ২০২১ ময়মনসিংহ

মামুনুর রশিদ, ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি: করোনা মহামারীতে সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউনে আনোয়ারের মূল ব্যবসা বন্ধ। পরিবার পরিজন নিয়ে বিপাকে ছিল আনোয়ার। এই অবস্থায় পেশা পরিবর্তন করে সাময়িক ভাবে বেঁছে নিয়েছেন অস্থায়ী এই মাস্ক বিক্রির কাজ।

তার মাস্ক বিক্রির এ আয়োজন দেখলে মনে হবে বিভিন্ন রঙের ফুলের বাগানের মালিক হিসেবে দাঁড়িয়ে আছে তার মালি। এমন ভিন্ন পেশাটাকে ভালোই উপভোগ করছেন কিশোর আনোয়ার। বিভিন্ন দামের ও মানের এই মাস্ক গুলো বিক্রি হচ্ছে এখানে। সার্জিক্যাল, কাপড়ের বানানো মাস্ক ৫ টাকা থেকে ১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে মাস্ক গুলো।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতে সর্তকতার অংশ হিসেবে পূর্বের তুলনায় মাস্কের ব্যবহার ও চাহিদা দ্বিগুণ হারে বেড়েছে। এ কারণে মাস্কের বিক্রি বেড়েছে কয়েকগুণ। এমন অবস্থায় ত্রিশাল উপজেলার বিভিন্ন বাজারসহ বিভিন্ন পাড়া মহল্লার মোড়ে মোড়ে পসরা বসিয়ে অনেকেই দিয়েছেন মাস্কের দোকান। যাদের অধিকাংশ দোকানী আগে অন্য ব্যবসার সঙ্গে জড়িত ছিলেন।

ত্রিশাল উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান জানান, এই সময়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দোকান ছাড়া মানুষের জনসামগম বেশি হয় এমন হাটবাজার, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এটি শুধু ত্রিশালে নয় সারাদেশেই এমন কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। নিঃসন্দেহে এই কিশোরের পেশা পরিবর্তন করে মাস্ক বিক্রি প্রশংসনীয়। সেও এই মহামারী থেকে রক্ষায় তার পেশা দ্বারা করোনা মহামারীতে ভাল ভূমিকা রাখছে।

কিশোর আনোয়ার হোসেন উপজেলার বৈলর ইউনিয়নের হদ্দেরভিটা গ্রামের আতাহার আলী ছেলে। তারা ২ ভাই, ১ বোন, ভাইয়ের মাঝে সে ২য়। সে ত্রিশাল পৌর বাজারে ব্যবসায়ের পাশাপাশি ময়মনসিংহ নাসিরাবাদ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে (একাউন্টিং) সাবজেক্ট নিয়ে ২য় বর্ষে অধ্যয়নরত। সে ব্যবসার টাকা থেকে সংসারের পাশাপাশি নিজের পড়াশোনার খরচ বহন করেন।

আরও পড়ুন :
sherpur newsn2 শেরপুরে বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার

❏ সোমবার, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২১

Jamalpur new বাড়ি ভিটার জমির জন্য মরলেন দুই ভাই

❏ বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২১

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন