• আজ শনিবার, ৩ আশ্বিন, ১৪২৮ ৷ ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ৷

চাকরির বয়স স্থায়ীভাবে ৩২ না হলে আন্দোলন

news534
❏ রবিবার, আগস্ট ২২, ২০২১ ফিচার

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে প্রায় দুই বছর ধরে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। একই সাথে স্থগিত রয়েছে সব ধরনের চাকরির নিয়োগ পরীক্ষা। এ পরিস্থিতিতে স্থায়ীভাবে চাকরিতে যোগদানের বয়স ৩২ করার দাবি জানিয়েছেন চাকরিপ্রত্যাশীরা। দাবি বাস্তবায়ন না হলে লাগাতার আন্দোলনের হুমকিও দিয়েছেন তারা।

রোববার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তারা এই দাবি জানান। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন তানভির হোসেন।

তিনি বলেন, করোনার এই মহামারীর সময়ে আর্থসামাজিক অবস্থা স্থিতিশীল রাখতে বিভিন্ন খাতে প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছে সরকার। করোনার মধ্যে চাকরিতে যোগদানের জন্য অস্থায়ীভাবে ২১ মাস সময় বাড়ানো হলেও নির্ধারিত কিছু ব্যক্তি এ সুবিধা পাবেন। অন্যরা চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। বৈষম্যমূলক সরকারের ঘোষিত এ পদ্ধতি প্রত্যাখ্যান করে চাকরিতে যোগদানের বয়সসীমা স্থায়ীভাবে ৩২ বছরে উন্নীত করতে হবে।

সম্প্রতি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে বয়সের ক্ষেত্রে ২১ মাস ব্যাকডেট নিয়ে যে বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে তার ‘অসংগতি’ তুলে ধরেন আহছানউল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ আল মামুন।

তিনি বলেন, ২১ মাস যে ব্যাকডেটের কথা বলা হচ্ছে, তার মধ্যে ১৭ মাস এরই মধ্যে পেরিয়ে গেছে। চাকরিতে আবেদনের বয়স স্থায়ীভাবে ২ বছর বাড়িয়ে ৩২ বছর করলে সবাই তাদের হারিয়ে যাওয়া ২ বছর ফিরে পাবে।

ব্যাকডেট স্থায়ী সমাধান নয়, উল্লেখ করে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মারজিয়া মুন বলেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরুর সময়ে যাদের বয়স ২৬ বছর ছিল, তাদের এখন ২৭, ২৮ বছর। যাদের ২৮, ২৯ বছর ছিল তাদের ৩০ হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, ‘এখন ব্যাকডেট দিলে যাদের বয়স ৩০ পার হয়েছে, তাদের জন্য কোনো রকম উপকার হলেও যাদের বয়স এখন ২৭, ২৮ বা ২৯ তারা চরমভাবে বঞ্চিত ও বৈষম্যের শিকার হবেন। কেননা তারাও তাদের বয়স থেকে ২টি বছর হারিয়ে ফেলেছেন, যার কোনো ক্ষতিপূরণ ব্যাকডেট প্রক্রিয়ায় হচ্ছে না। এমনিতেও তারা এসব সার্কুলারে অ্যাপ্লাই করতে পারবেন।’

সংবাদ সম্মেলনে করোনাকালে চাকরির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ অনেক কমে গেছে উল্লেখ করে জানানো হয়, এ সময়ে চাকরির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ ৮৭ শতাংশ কমে ১৩ শতাংশে নেমে এসেছে। বেকারত্বের হার বেড়ে ২০ শতাংশ থেকে ৩৫ শতাংশ হয়েছে৷

চাকরিপ্রত্যাশী শিক্ষার্থী ওমর ফারুক বলেন, ‘সাধারণ শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে সরকারি চাকরিতে প্রবেশ বা আবেদনের বয়সসীমা ৩০ হলেও বিসিএস স্বাস্থ্য ও জুডিশিয়ারির ক্ষেত্রে ৩২ বছর। অন্যদিকে বিভিন্ন কোটার ক্ষেত্রে এই বয়সসীমা ৩২ বছর দেওয়া হয়।’

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন