• আজ শনিবার, ৩ আশ্বিন, ১৪২৮ ৷ ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ৷

সংবাদ স‌ম্মেলনে ডে‌কেও স‌ঠিক কাগজপত্র দেখা‌তে পা‌রে‌নি জ‌মি দাতা!

Shariyatpur news
❏ রবিবার, আগস্ট ২২, ২০২১ ঢাকা

নয়ন দাস, শরীয়তপুর প্র‌তি‌নি‌ধি: শরীয়তপুর সদর উপ‌জেলার পালং ৬০নং মৌজায় জ‌মির মা‌লিকানায় সম্প‌ত্তির প‌রিমানের চে‌য়েও জা‌লিয়া‌তির মাধ্য‌মে অ‌তি‌রিক্ত জ‌মি রেজিস্ট্রি করার ঘটনায় সংবাদ প্রকাশের প্র‌তিবা‌দে সংবাদ স‌ম্মেলন ক‌রে‌ছে জ‌মির দাতা প‌রি‌তোষ ব‌ণিক।

রোববার (২২আগষ্ট) শরীয়তপুর এসআই‌টি কার্যাল‌য়ে এ সংবাদ স‌ম্মেলনের আয়োজন করা হয়। গত ২০ আগষ্ট জন‌প্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল সম‌য়ের কন্ঠস্বরসহ বি‌ভিন্ন গণমাধ্য‌মে শরীয়তপু‌রে কাগজপ‌ত্র জা‌লিয়া‌তি ক‌রে অ‌তি‌রিক্ত জ‌মি রেজিস্ট্রি করার অ‌ভি‌যোগ শি‌রোনা‌মে সংবাদ প্রকাশ হয়।

লি‌খিত বক্ত‌ব্যে প‌রি‌তোষ ব‌ণিক ব‌লেন, আমি আমার মাতা ও পিতার ওয়া‌রিশ সূত্রে মা‌লিকানাধীন সম্প‌ত্তির ১৫.৮১ শতাংশ বি‌ক্রি ক‌রে‌ছি। গত ১৯ শে আগষ্ট আমা‌কেসহ দ‌লিল লেখক নরুল হক মিয়াকে নি‌য়ে ক‌য়েক‌টি প‌ত্রিকায় বিভঅ‌ন্তি মূলক নিউজ প্রকাশ করা হ‌য়ে‌ছে। এ‌তে আমা‌কে সামা‌জিক ভা‌বে ক্ষ‌তিগ্রস্থ্য করা হ‌য়ে‌ছে। য‌দিও উক্ত সংবাদ প্রস‌ঙ্গে সংবা‌দিক‌দের সাম‌নে বি‌ভিন্ন বিষ‌য়ে উপস্থাপনা করলেও জ‌মি প‌রিমা‌নের ১৫.৮১ শতাংশ রে‌জি‌স্ট্রি ঘটনায় অ‌তি‌রিক্ত ৬.০৬ শতাংশ জ‌মি স‌ঠিক কাগজপত্র দি‌তে পা‌রেন নাই প‌রি‌তোষ ব‌ণিক।

ঘটনার বিবর‌ণে প্রকাশ, গত ১৯ জুলাই পালং ৬০নং মৌজার ৯৫০ নং দা‌গের ১৫.৮১শতাংশ জ‌মি সদর উপ‌জেলা দ‌লিল শনাক্তকারী মো. নরুল হক মিয়া ও দ‌লিল লেখক খোকন বোপারীর মাধ্যমে একটি আম‌মোক্তার নামা দলিল (দলিল নম্বর- ৩১৬৫) রেজিস্ট্রি করা হয়। আম‌মোক্তার নামা দ‌লি‌ল দাতা শরীয়তপুর পৌরসভার নিরালা এলাকার মৃত কানাই লাল ব‌ণি‌কের ছে‌লে প‌রি‌তোষ ব‌ণিক গং ও আম‌মোক্তা নামা গ্র‌হিতা একই এলাকার জান শরীফ বেপারীর ছে‌লে ম‌নির হো‌সেন বেপারী‌ এবং সদর দলিল লেখক স‌মি‌তির সভাপ‌তি মো. নুরুল হক মিয়ার পরস্পর যোগসাজসে এসএ খতিয়ান এবং খাজনা রশিদ জালিয়াতির মাধ্যমে প্রকৃত তথ্য গোপন করে দলিল লেখক মো. খোকন বোপারী‌কে দিয়ে দলিলটি রেজিস্ট্রি করান।

মূলত ৯৫০ নং দা‌গে প‌রি‌তোষ ব‌ণি‌কের সর্ব‌শেষ নামজা‌রি, এসএ ও খাজনার র‌শিদ অনুযায়ী জ‌মির প‌রিমান র‌য়ে‌ছে ৯.৭৫ শতাংশ। কিন্তু দ‌লিল লেখক মো. নুরুল হক মিয়া ও সদর (ভারপ্রাপ্ত) সাব-‌রে‌জিষ্টার মো. জা‌হিদ হাচা‌ন অ‌বৈধ উপা‌য়ে জ‌মি হস্তান্তর ক‌রেছে ১৫.৮১ শতাংশ। কাগজপত্র ও মা‌লিকানার চে‌য়ে অ‌তি‌রিক্ত ৬.০৬ শতাংশ সম্প‌ত্তি বে‌শি হস্তান্তরের ঘটনায় বিপা‌কে প‌ড়ে‌ছে পা‌শের দা‌গের ক্রয়কৃত জ‌মির মা‌লিকরা। এ ঘটনায় প্র‌তিকার চে‌য়ে গত ১৭ আগষ্ট জেলা রে‌জিষ্টার কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাস‌কের বরাবর লি‌খিত অ‌ভি‌যোগ দা‌য়ের ক‌রে‌ছে এক ভুক্তভুগী। এ‌সব অ‌নিয়ম নি‌য়ে সংবাদ প্রকাশিত হয় বি‌ভিন্ন গণমাধ্যমে।

এ‌দি‌কে, ভূ‌মি রেজি‌স্ট্রেশন আইনের শর্ত ভঙ্গের বিষ‌য়ে জান‌তে চাই‌লে সদর উপ‌জেলা অ‌তি‌রিক্ত দায়িত্ব পালন করা জা‌জিরা উপ‌জেলা সাব-‌রে‌জিষ্টার ‌মো. জা‌হিদ হাসান ভুল স্বীকার ক‌রে সমাধা‌নের আশ্বাস দি‌য়ে‌ছেন।

এ বিষ‌য়ে জেলা রে‌জিষ্টার কর্মকর্তা অমৃত লাল মজুমদার ব‌লেন, রে‌জি‌স্ট্রি সংক্রন্ত যে সংবাদ প্রকাশ হয়ে‌ছে এবং আমার কার্যাল‌য়ে লি‌খিত অ‌ভি‌যো‌গের ভি‌ত্তি‌তে তদন্ত চল‌ছে। প্র‌য়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হ‌বে।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন