🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ শনিবার, ৩ আশ্বিন, ১৪২৮ ৷ ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ৷

নঈম নিজামসহ ১১ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মিরপুরে মানববন্ধন


❏ শনিবার, সেপ্টেম্বর ৪, ২০২১ ঢাকা, দেশের খবর

স্টাফ রিপোর্টার, সময়ের কণ্ঠস্বর- বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজাম, কালের কণ্ঠ সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলনসহ ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়ার চার সম্পাদক ও সিনিয়র সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও হয়রানীমুলক মানহানি মামলার প্রতিবাদ ও মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টায় মিরপুরে বসবাসরত সকল সম্পাদক ও সাংবাদিকবৃন্দের সমন্বয়ে গঠিত সম্মিলিত সাংবাদিক জোটের আয়োজনে এ মানববন্ধন করা হয়।

এর আগে, বাংলাদেশ প্রতিদিন, কালের কণ্ঠ, বাংলা নিউজ, নিউজ টোয়েন্টিফোর টেলিভিশনে অনুসন্ধানীমূলক সংবাদ প্রকাশের ঘটনায় চট্টগ্রামের আদালতে হুইপ শামসুল হক চৌধুরী বাদী হয়ে গত ১৮ আগস্ট বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক ও নিউজটোয়েন্টি ফোরের সিইও নঈম নিজাম, কালের কণ্ঠের সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন, ইংরেজি দৈনিক ডেইলি সানের সম্পাদক ইনামুল হক চৌধুরী, বাংলানিউজের সম্পাদক জুয়েল মাজহার, বাংলাদেশ প্রতিদিনের সাংবাদিক সাইদুর রহমান রিমনসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে চট্টগ্রামে ৫০০ কোটি টাকার মানহানি মামলা দায়ের করেন।

প্রতিবাদ সভায় সময়ের কণ্ঠস্বর ও মুভিবাংলা টেলিভিশনের স্টাফ রিপোর্টার রাজু আহমেদ তার বক্তব্যে দাবি করেন, এদেশে কোনো দুর্নীতি বা অপরাধের সুনির্দিষ্ট প্রমাণের ভিত্তিতে অনুসন্ধানী সংবাদ প্রকাশিত হলে সেই সাংবাদিককে প্রায়শই হামলা, মামলা, হয়রানীসহ নানা অজুহাতে নাজেহাল করা হয়। যদি এমনটিই হতে থাকে তাহলে এদেশ থেকে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা বা অপরাধবিষয়ক সাংবাদিকতা তুলে দেয়া উচিত। ৪৮ ঘন্টা সময়ের মধ্যে দেশের ১১ জন সিনিয়র সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার না করলে দেশব্যাপী কঠোর আন্দোলন কর্মসুচী গড়ে তোলা হবে। সাংবাদিক নির্যাতন বন্ধে সুনির্দিষ্ট আইন প্রনয়নসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার এখনই যথোপযুক্ত সময়।

আওয়ার নিউজ টুয়ন্টিফোর ডটকমের স্টাফ রিপোর্টার শাহিনুর ইসলাম নয়ন বলেন, মিথ্যা ও হয়রানীমমুলক মামলা-হামলা করে সাংবাদিকদের কণ্ঠরোধ করার এই অপপ্রয়াস কখনোই সফল হবেনা। অনতিবলম্বে এই হয়রানীমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।

দৈনিক সময়ের আওয়াজ ও অনলাইন নিউজ পোর্টাল প্রতিদিনের ডাকের সম্পাদক মোঃ সোহাগ দাবি করেন, এদেশের মূলধারার সাংবাদিকেরা তথা আমরা দেশের একশ্রেনীর কুচক্রীমহলের নিকট জিম্মি। সংবাদ সংগ্রহে গেলেই তাদের ভয়ে আমাদের সাংবাদিকদের মাঝে একটি অজানা আতংক ও ঝুঁকির সম্ভাবনা তাড়া করে বেড়ায়। স্বাধীন সাংবাদিকতা নিশ্চিত করতে দেশে এমনটি চলতে দেয়া যায় না, দেয়া হবে না।

সিনিয়র সাংবাদিক মনিরুজ্জামান মনি বলেন, ‘তাদের সাথে একাত্বতা প্রকাশ করলে সঙ্গী, আর বিরোধিতা করলেই জঙ্গী’ এমনটা চলতে দেয়া হবে না। দেশে স্বাধীন সংবাদিকতার পরিবেশ তৈরী করতে এদেশের সকল জেলা-উপজেলা তথা দেশের সকল সাংবাদিকদের এক হয়ে কাজ করতে হবে।

ইংরেজী দ্যা এক্সাম্পল পত্রিকার সম্পাদক ও সিনিয়র সাংবাদিক মিজানুর রহমান মোল্ল্যা বলেন, সাংবাদিকতা পেশাটা ঝুঁকিপূর্ণ পেশা, ঝুঁকির কথা জেনেই এই পেশায় আশা। হামলা মামলা হলে বুঝবেন আপনি সঠিক পথেই আছেন, মামলার কারণে জেলে গেলে নিজে ভেবে নিবেন আপনি এখন কিছুদিনের জন্য বিশ্রামে আছেন এবং আপনার পেশাগত চলার পথ আরো মশৃন হচ্ছে।। যারা মামলা হামলাকে ভয় পান তাদের সাংবাদিকতা পেশায় না আসাই ভালো।

সিনিয়র সাংবাদিক এস এম জহিরুল ইসলাম বলেন, আমাদের মাঝে মতের মিল-অমিল থাকতেই পারে। কিন্তু সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে হামলা মামলা হলে সম্মলিতভাবে প্রতিবাদ করে তাদের রুখতে হবে। ১১ সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে চট্টগ্রামের আদালতে হুইপ শামসুল হক চৌধুরী কর্তৃক দ্বায়েরকৃত ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে।

দৈনিক বাংলাদেশ সংবাদ পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক ও প্রকাশক বাহাউদ্দীন তালুকদার বলেন, যতদিন সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে এসব মিথ্যা চক্রান্ত মূলক মামলা প্রত্যাহার না করা হবে ততদিন আমাদের আন্দোলন চলবে।

এ প্রতিবাদ সভায় সোনালী খবর পত্রিকার সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনির, রিপোর্টার দীন ইসলাম, সংবাদ প্রতিদিনের স্টাফ রিপোর্টার ভুঁইয়া কামরুল হাসান সোহাগ, সকালের সময়ের স্টাফ রিপোর্টার মাজেদুর রহমান সাজু ও ফটো সাংবাদিক এস এম আর শহীদ, প্রতিদিনের বাংলাদেশের স্টাফ রিপোর্টার এনামুল হক ইমন, নতুন বার্তার বিশেষ প্রতিবেদক মনিরুজ্জামান মনি, সাংবাদিক সোহাগ হাসান, সময়ের আওয়াজ পত্রিক সহ-সম্পাদক রিয়াজ খান, আসিফ আহমেদ প্রান্ত, মুভি বাংলা টেলিভিশনের স্টাফ রিপোর্টার আমিনুল ইসলাম বাবু, সিএন বাংলার সম্পাদক এস এম ইমন, জাগো কন্ঠের প্রকাশক মোঃ মুবিন, সাংবাদিক এস এম জীবন, শহিদুল ইসলাম, এশিয়ান টেলিভিশনের রিপোর্টার শাহারিয়ার মাসুম, চঞ্চল মাহমুদ ও আমিনুল ইসলাম রিপন প্রমুখসহ প্রায় দুই শতাধিক সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন