🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ বুধবার, ১৬ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ১ ডিসেম্বর, ২০২১ ৷

গাজীপুরে হত্যা করে পিকআপ ছিনতাইয়ের ঘটনায় ৫জন গ্রেফতার

Gazipur news
❏ রবিবার, সেপ্টেম্বর ৫, ২০২১ ঢাকা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, সময়ের কণ্ঠস্বর: পাঁচদিন আগে নিজের পিকআপ নিয়ে বাসা থেকে বের হয়ে আর ফেরেননি সেলিম সরদার (৩৩)। নিখোঁজের পরদিন দুপুরে গাজীপুর নগরের বাসন থানার বারবৈকা মধ্যপাড়া এলাকা থেকে অচেনা একটি মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। লাশের পরিচয় না পেয়ে পুলিশ বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করে। এরপর ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠালে খবর পেয়ে স্বামীর লাশ সনাক্ত করেন ফাতেমা আক্তার।

নিহত সেলিম কুষ্টিয়ার দৌলতপুর থানার পশ্চিম উদয়নগর মো. শাহ জামাল সরদারের ছেলে। নিহতের পরিচয় জেনে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় পুলিশ গাজীপুর ও হবিগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে অভিযানে চালিয়ে শনিবার পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে।

গ্রেফতাররা হলো- হবিগঞ্জের বাহুবল থানার দৌলতপুর এলাকার আবদুল বাসেদের ছেলে মারুফ হোসেন (৩০), একই থানার চারিগাঁও এলাকার মৃত রমিজ আলীর ছেলে আবদুল আহাদ (৩৪), ময়মনসিংহের ধোবাউড়া থানার সানন্দাখীলা এলাকার হারেস আলীর ছেলে এনামুল (২২), শেরপুর সদরের টিকারচর এলাকার মৃত মোতালিবের ছেলে আমিনুল (২৪) এবং টাঙাইলের গোপাল্পুর থানার খড়রিয়া এলাকার রফিজ মন্ডলের ছেলে শামীম (২৪)। তারা গাজীপুরের শ্রীপুর, টঙ্গীর এরশাদনগর বস্তি, তেলিপাড়া ও বাসন এলাকায় ভাড়া থেকে নানা অপরাধ করে বেড়াত।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার  রেজওয়ান আহমেদ জানান, আসামীরা সেলিমকে হত্যার দায় স্বীকার করে বলেছে, গত ৩১ আগস্ট রাত ১১টার দিকে ভোগরা মোড় থেকে মাওনা যাওয়া উদ্দেশে গ্রেফতার শামীম ও মারুফ ১৩শ টাকায় নিহত সেলিমের পিকআপ ভাড়া করে। মিক্সার মেশিন গাড়িতে উঠানোর কথা বলে সেলিমকে বাসন থানার শাহ আলম বাড়ী এলাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে পাঁচজন মিলে গলায় গামছা প্যাঁচিয়ে সেলিমকে হত্যার পর হাত-পা বেঁধে মরদেহ ফেলে পিকআপ নিয়ে পালিয়ে যায়। জিজ্ঞাসাবাদে তারা আরও ৬টি পিকআপ ছিনতাইয়ের কথা স্বীকার করেছে। তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে মোট সাতটি পিকআপ উদ্ধার করা হয়েছে।