শ্মশানের জায়গা দখল করে নানা স্থাপনা নির্মাণ করছে দুর্বৃত্তরা

Cox's Bazar news
❏ মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ৭, ২০২১ চট্টগ্রাম

শাহীন মাহমুদ রাসেল, কক্সবাজার প্রতিনিধি: কক্সবাজারের উখিয়ার দারোগা বাজার সংলগ্ন এলাকায় হিন্দু সম্প্রদায়ের দুইশ’ বছরের পুরানো শ্মশান জবর দখল করে স্থাপনা নির্মাণ করেছে একটি প্রভাবশালী মহল।

দখলকারীদের উচ্ছেদের দাবিতে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। সমাবেশ থেকে অবিলম্বে শ্মশানভূমি ফিরিয়ে দেওয়া না হলে আসন্ন দুর্গোৎসব উদযাপন বন্ধসহ মাসব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

মঙ্গলবার (৭ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টায় উপজেলা সদর স্টেশনে আয়োজিত সমাবেশ থেকে উখিয়া সদরে আসন্ন শারদীয় দুর্গাপূজা স্থগিত রাখা, মন্দিরে কালো পতাকা উত্তোলন, গণস্বাক্ষর কর্মসূচি, মন্দিরে সান্ধ্যকালীন আরতি বন্ধ রাখা, মন্দিরে মন্দিরে এলাকাভিত্তিক প্রতিবাদ সমাবেশ, জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন ও সমাবেশ, উখিয়া সদরে মহাসমাবেশ, প্রতীকী অনশন, প্রধানমন্ত্রী বরাবর গণস্বাক্ষর সম্বলিত স্মারকলিপি প্রদান, উখিয়া সদর স্টেশনের আরকান সড়কে প্রতীকী দাহক্রিয়া, জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ, কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কে অবরোধ-বিক্ষোভ সমাবেশ এবং এরমধ্যে হিন্দু সম্প্রদায়ের কোনো নারী-পুরুষ বা শিশু পরলোক গমন করলে তাকে শ্মশানের পরিবর্তে আরকান সড়কে দাহক্রিয়া সম্পন্ন করার কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, উখিয়া দারোগা বাজার সংলগ্ন শ্মশানভূমি দুইশ’ বছর ধরে হিন্দু সম্প্রদায় সৎকার কাজে ব্যবহার করে আসছিল। শ্মশানটি সরকারি খাসজমি হিসেবে আরএস খতিয়ানে চূড়ান্তভাবে নথিভুক্ত। কিন্তু স্থানীয় জাগির মুন্সির ছেলে সাহাব, মোসলেম উদ্দিন, কফিল উদ্দিন, টুনু, শাহীনসহ দুর্বৃত্তরা মিলে দীর্ঘদিন ধরে শ্মশানের জায়গা দখল করে নানা স্থাপনা নির্মাণ অব্যাহত রেখেছে। বর্তমানে শ্মশানের জায়গা সঙ্কুচিত হওয়ায় সৎকারকাজ সম্ভব হচ্ছে না। এ নিয়ে প্রশাসন ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কাছে অভিযোগ করার পরও জবর দখলদারদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

সমাবেশে আগামী ২০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে দখলকারীদের স্থাপনা উচ্ছেদপূর্বক আইনি ব্যবস্থা নেওয়া না হলে আসন্ন দুর্গোৎসব উদযাপন বন্ধসহ মাসব্যাপী নানা কর্মসূচির ঘোষণা দেওয়া হয়।

পরে বিভিন্ন দাবি সম্বলিত একটি স্মারকলিপি উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন আহমদের মাধ্যমে জেলা প্রশাসককে পাঠানো হয়। স্মারকলিপি গ্রহণ করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, দ্রুততম সময়ের মধ্যে এ সমস্যার সমাধান করা হবে। উভয় সম্প্রদায়ের মধ্যে সোহার্দ্য বজায় রাখতে এ সময় বড় ধরনের কর্মসূচি থেকে বিরত থাকার জন্য তিনি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রতি আহ্বান জানান।

মৃদুল আইচের সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন উখিয়া উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি স্বপন শর্মা, সম্পাদক অ্যাডভোকেট রবীন্দ্র দাশ রবি, শ্মশান পরিচালনা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রতন কান্তি দে, উপজেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সুমন শর্মা, বাংলাদেশ গীতা শিক্ষা কমিটি উখিয়া উপজেলা শাখা সভাপতি বেবী প্রভা দে, ছাত্র মহাজোটের সঞ্জীব দাশ, জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক অজিত শর্মা, হিন্দু পরিষদ উপজেলা আহ্বায়ক বাবুল শর্মা, দিলীপ শর্মা, পিকলু দে, স্থানীয় ইউপি সদস্য খুরশিদা করিম, সিদুল শর্মা, উখিয়া উপজেলার প্রধান পুরোহিত হারাধন চক্রবর্তী। এরপর উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে মানববন্ধন ও সমাবেশ হয়।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন