ঢাকার মিডফোর্ডে বিপুল পরিমাণ নকল ওষুধসহ গ্রেপ্তার ৩

atok 3n4
❏ রবিবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২১ ফিচার

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- নকল ওষুধ বিক্রির অভিযোগে রাজধানীর পুরান ঢাকার কোতোয়ালি থানার মিটফোর্ড এলাকায় অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন ফার্মেসি ও গোডাউন থেকে বিপুল পরিমাণ নকল ওষুধ জব্দসহ তিনজনকে আটক করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা লালবাগ বিভাগ।

আটকরা হলেন- মেডিসিন ওয়ার্ল্ড ফার্মেসির ফয়সাল আহমেদ (৩২), লোকনাথ ড্রাগের সুমন চন্দ্র মল্লিক (২৭) ও রাফসান ফার্মেসির মো. লিটন গাজী (৩২)।

রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ডিবির যুগ্ম-কমিশনার (দক্ষিণ) মাহবুব আলম এসব তথ্য জানান।

মাহবুব আলম বলেন, সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে জনগণ যে এসব ভুয়া ওষুধ খেয়ে প্রতারিত হচ্ছে, সেখানে জনগণেরও একটি দায়বদ্ধতা আছে। যেসব দোকানে ওষুধ বিক্রয় করা হয় সেসব দোকানের ওষুধের নিবন্ধন নম্বর ও বৈধ ওষুধের তালিকা ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে দেওয়া থাকে। ওষুধ কিনতে যাওয়ার সময় এসব তালিকা দেখার অধিকার সাধারণ ক্রেতাদের আছে। নকল ও ভুয়া ওষুধ সেবন থেকে বিরত থাকতে ফার্মেসিতে গিয়ে ক্রেতাদের অবশ্যই তালিকাগুলো দেখা উচিত বলে মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি বলেন, যারা নকল ওষুধ বিক্রি ও উৎপাদন করছে তাদের বিরুদ্ধে আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি। সামনে তাদের বিরুদ্ধে আমরা আরও কঠোর ব্যবস্থা নেবো। ইউনানি ও হোমিওপ্যাথির লাইসেন্স নিয়ে যারা অবৈধ ওষুধ তৈরি করছে তাদের তালিকা আমরা তৈরি করেছি। তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, রাজধানীর মিটফোর্ড মার্কেটটি ওষুধের পাইকারী বাজার হওয়ায় নকল ওষুধ উৎপাদন ও বাজারজাতকারী চক্র সমগ্র দেশব্যাপী নকল ওষুধ ছড়িয়ে দিতে মিটফোর্ড ওষুধ মার্কেটকে ক্যামোফ্লাজ হিসেবে ব্যবহার করে আসছে। গ্রেপ্তারকৃত আসামিরা মিটফোর্ড মার্কেটের পাইকারী ব্যবসায়ী হিসেবে সমগ্র দেশব্যাপী নকল ওষুধ ছড়িয়ে দিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে।

ডিবির যুগ্ম পুলিশ কমিশনার বলেন, গ্রেপ্তারকৃতরা অধিক লাভের আশায় এসব দেশি ও বিদেশি নামি দামি ব্র্যান্ডের ওষুধ ও ক্রিম তাদের সহযোগীদের নিকট হতে সংগ্রহ করে মিটফোর্ড এলাকায় বাজারজাত করে আসছিল। নকল ওষুধ প্রতিরোধে জনগণকে সচেতন হতে হবে। ওষুধ কেনার আগে সেটি রেজিস্টার্ড কিনা তা দেখতে হবে।

নকল ওষুধ উৎপাদন, মজুদ ও বাজারজাতকারীদের শনাক্ত করে তাদেরকে গ্রেপ্তার অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা। তিনি বলেন, গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে কোতয়ালী থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

গোয়েন্দা লালবাগ বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. রাজীব আল মাসুদ নির্দেশনায় কোতয়ালী জোনাল টিমের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ সাইফুর রহমান আজাদের নেতৃত্বে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক এটিএম কিবরিয়ার খার এবং ড্রাগ সুপার মোহাম্মদ মওদুদ আহমেদগণের সমন্বয়ে যৌথভাবে এ অভিযানটি পরিচালিত হয়।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন