মৃত্যুর পরও ​গিনেস বুকে ঠাঁই পেল সাভারের সেই রানী

sver-rani4
❏ মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২১ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর, সাভার- সাভারের আশুলিয়ায় একটি খামারে বেড়ে ওঠা বামন গরু রানিকে নিয়ে আলোচনার যেন শেষ নেই। গিনেস বুকে বিশ্বের সবচাইতে ছোট গরুর স্বীকৃতি পেতে যাওয়া রানি বেঁচে থাকতে ছিল সেলিব্রেটি।

দেশ ছাড়িয়ে রানিকে নিয়ে খবর আসে বিশ্ব মিডিয়ায়। কিন্তু হঠাৎ খবর আসে রানির মৃত্যুর। তারপর শুরু হয় আবারও আলোচনা। এই রেশ শেষ না হতেই এবার মরে যাওয়া রানিকে স্বীকৃতি দিলো গিনেস বুক কর্তৃপক্ষ।

সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) রাতে সাভারে চারিগ্রাম এলাকার শেকড় এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের সিইও মো. আবু সুফিয়ান এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

এর আগে বিকেল ৪টার দিকে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস কর্তৃপক্ষ তাকে ই-মেইলের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বলে জানান।

আবু সুফিয়ান বলেন, ‘রানি আমাদের সবার অনেক আদরের ছিল। প্রাণী হলেও রানিকে আমরা পরিবারের একজন করে নিয়েছিলাম। কিন্তু গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ডে যখন রানির নাম উঠতে আর কিছু দিন বাকী তখনই আমরা তাকে হারিয়েছি। রানির মৃত্যু কোনো ভাবেই ওই সময় মেনে নিতে পারিনি আমরা।

​‘তবে অবশেষে গিনেস বুক কতৃপক্ষ তাদের নিয়ম-কানুন মেনেই রানিকে বিশ্বের সবচেয়ে ছোট গরুর স্বীকৃতি দিয়েছে। আমরা সত্যিই অনেক আনন্দিত। তবে রানি বেঁচে থাকলে এই আনেন্দর মাত্রা কয়েক গুণ বেড়ে যেত। আমাদের শেকড় ফার্মে রানিকে দেখতে ভিড় জমাতো সাধারণ মানুষ ও সংবাদকর্মীরা। আমরা রানিকে কোলে নিয়ে ছবি তুলেই এই মুহূর্তটা উদযাপন করতে পারতাম।’

মরে যাওয়ার পরও গিনেস বুক কিভাবে রানিকে রেকর্ডের স্বীকৃতি দিয়েছে, জানতে চাইলে আবু সুফিয়ান বলেন, ‘ওদের কাছে আমরা রানির পোস্টমর্টেম রিপোর্ট পাঠিয়েছিলাম। ওরা মূলত দেখেছে, আমরা হরমোন জাতীয় ইনজেকশন পুশ করে রানিকে বামন করেছিলাম কি না? কিন্তু এ ধরণের কোন কিছু তারা রিপোর্টে পায়নি। তিন দিন আগে ওরা রানিকে বিশ্বের সবচেয়ে ছোট গরুর স্বীকৃতি দিয়েছে। কিন্তু ই-মেইল করেছে আজ।’

সাভারে চারিগ্রাম এলাকার শিকড় এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের খামারে থাকা বিশ্বের সবচেয়ে ছোট গরু হিসেবে রানীকে নিয়ে হইচই পড়ে যায়। বক্সার ভুট্টি জাতের খর্বাকৃতির সেই গরুটির ওজন ছিল ২৬ কেজি আর উচ্চতা ২০ ইঞ্চি, দুটি দাঁতও ছিল। রানীর বয়স হয়েছিল দুই বছর।

গিনেজ বুকে এর আগের রেকর্ড অনুযায়ী বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ গরুটি ছিল ভারতের কেরালা রাজ্যের। চার বছর বয়সী ওই গরু উচ্চতায় ২৪ ইঞ্চি, আর ওজন ছিল ৪০ কেজি

আরও পড়ুন :

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন