🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ বৃহস্পতিবার, ৫ কার্তিক, ১৪২৮ ৷ ২১ অক্টোবর, ২০২১ ৷

ভবানীপুরে বিপুল ভোটে এগিয়ে মমতা

momota n3
❏ রবিবার, অক্টোবর ৩, ২০২১ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- পশ্চিমবঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী থাকতে হলে তাকে জিততেই হবে। ভবানীপুরের উপনির্বাচনে মমতা ব্যানার্জির জয় নিয়ে অবশ্য কোনো সংশয় নেই তৃণমূল শিবিরের। চিন্তা শুধু ব্যবধানের অঙ্ক নিয়ে। উপনির্বাচনী প্রচারপর্বে মমতা থেকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়— সবার বক্তব্যেই ফিরে ফিরে এসেছে এই ব্যবধানের প্রসঙ্গ।

উপনির্বাচনে কম মানুষ ভোট দিতে আসেন, এটা জেনেই তৃণমূল এ বার জোর দিয়েছিল ‘ভোট দিতে আসুন’ ডাকে।

বৃহস্পতিবার ভোটদানের ভালো হার সে দিক থেকে খানিকটা আশ্বস্ত করেছে রাজ্যের শাসকদলকে। আজ রবিবার চলছে ভোট গণনা। প্রথম ১২ রাউন্ডের ভোটগণনায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৩৪ হাজার ৯৭০ ভোটে এগিয়ে গেছেন। বাকি দুই কেন্দ্রেও এগিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস।

প্রত্যাশামতোই ভবানীপুরের উপনির্বাচনে অনেকটাই এগিয়ে গেলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রথম ১২ রাউন্ডের ভোটগণনায় মুখ্যমন্ত্রী ৩৪ হাজার ৯৭০ ভোটে এগিয়ে গেছেন। ভবানীপুরে যার উপর ভোট পরিচলনার দায়িত্ব দিয়েছেন মমতা, রাজ্যের মন্ত্রী সেই ফিরহাদ হাকিমের দাবি, ৫০ থেকে ৮০ হাজার ভোটে জিতবেন মমতা।

রাজ্যের বাকি দুই কেন্দ্র মুর্শিদাবাদের জঙ্গিপুর ও সামসেরগঞ্জেও এগিয়ে তৃণমূল। জঙ্গিপুরে ২২ হাজারেরও বেশি ব্যবধানে। আর সামসেরগঞ্জে পাঁচ হাজার ১৩১ ভোটে এগিয়ে তৃণমূল প্রার্থী।

প্রথম থেকেই এগিয়ে

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রথম রাউন্ড থেকেই এগিয়ে। যত বেশি রাউন্ডের ভোট গণনা হয়েছে, ততই ব্যবধান বাড়িয়ে নিয়েছেন তিনি।

মোট ২১ রাউন্ডের গণনা হবে। তার মধ্যে ১২ রাউন্ডের গণনা শেষ। মমতা ১২ রাউন্ডের গণনায় পেয়েছেন ৪৮ হাজার ৮১৩টি ভোট। বিজেপি প্রার্থী প্রিয়ঙ্কা টিবরেওয়াল পেয়েছেন ১৩ হাজার ৮৪৩ ভোট। সিপিএমের প্রার্থী শ্রীজীব বিশ্বাস পেয়েছেন এক হাজার ৬৫৫টি ভোট।

ভবানীপুর তৃণমূলের শক্ত ঘাঁটি। আগে দুইবার মমতা এখান থেকে জিতেছেন। কিন্তু গত বিধানসভা নির্বাচনে তিনি নন্দীগ্রামে লড়েছিলেন এবং শুভেন্দু অধিকারীর কাছে হেরে যান। ভবানীপুরে জিতেছিলেন শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। তিনি মমতার জন্য ইস্তফা দেন। উপনির্বাচন হয়। সেই উপনির্বাচনের ফলাফলে দেখা যাচ্ছে, গত বিধানসভা নির্বাচনে শোভনদেব যে ব্যবধানে জিতেছিলেন, তার চেয়েও বেশি ভোটে জিতছেন মমতা।

ভোটবিশেষজ্ঞ ও অধ্যাপক বিশ্বনাথ চক্রবর্তী বলেছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এখনো পর্যন্ত ৮১ দশমিক নয় শতাংশ ভোট পেয়েছেন। এই হার চলতে থাকলে তিনি রেকর্ড ভোটে জিতবেন।

বিজেপি-র অবস্থা

বিজেপি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে প্রার্থী করেছিল যুব প্রার্থী প্রিয়ঙ্কা টিবরেওয়ালকে। প্রিয়ঙ্কা প্রচারে কোনো ফাঁকি দেননি। বিজেপি নেতারাও নন। প্রচারের শেষদিনে তো বিজেপি-র ৮০ জন নেতা প্রচার করেছেন। তারা ভবানীপুরের অলি গলিতে গিয়েছেন। কিন্তু ভোটের প্রথম ১২ রাউন্ডের ফলাফল দেখাচ্ছে, প্রিয়ঙ্কা কোনো চ্যালেঞ্জই ছুঁড়ে দিতে পারেননি মুখ্যমন্ত্রীকে। তাকেও জামানত বাঁচানোর জন্য লড়তে হচ্ছে।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন