• আজ বৃহস্পতিবার, ১২ কার্তিক, ১৪২৮ ৷ ২৮ অক্টোবর, ২০২১ ৷

দেড় বছর পর খুললো ঢাবির হল, শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ

du n34n2
❏ মঙ্গলবার, অক্টোবর ৫, ২০২১ ফিচার, শিক্ষাঙ্গন

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- মহামারী করোনাভাইরাসের প্রাদু্র্ভাবে দেড় বছর বিরতির পর খুলল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলো।

মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) আবাসিক হলগুলোতে স্নাতক চতুর্থ বর্ষ ও স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থীরা এক ডোজ টিকা নেওয়ার সনদ দেখিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে হলে উঠতে শুরু করেছেন। ফুল ও চকলেট দিয়ে হল প্রশাসনও তাদের স্বাগত জানাচ্ছে।

দীর্ঘদিন পর হলে প্রবেশ করতে পেরে উচ্ছ্বসিত শিক্ষার্থীরাও। তাদের সঙ্গে কথা বললে তারা নিজেদের দ্বিতীয় আবাসে ফেরায় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম সিন্ডিকেট হল খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তে চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে অনুষ্ঠিত ওই সভায় উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামান সভাপতিত্ব করেন।

প্রভোস্ট কমিটির সুপারিশ নিয়ে প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ফাইনাল ও মাস্টার্সের শিক্ষার্থীরা ৫ অক্টোবর সকাল ৮টা থেকে অন্তত এক ডোজ টিকা নেওয়ার সনদ ও হলের বৈধ কাগজপত্র দেখানো সাপেক্ষে আবাসিক হলে ওঠানোর জন্য সুপারিশ করা হয়। একইসঙ্গে ২৬ সেপ্টেম্বর থেকে এ দুই বর্ষের শিক্ষার্থীরা বিভাগের সেমিনার ও কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি ব্যবহার করতে পারবে। তবে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে।

শিক্ষা পরিষদের সভা থেকে নতুন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসাকেন্দ্রে টিকার ব্যবস্থা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সবার জন্য লোগো সংবলিত একটি মাস্কের ব্যবস্থা করার যে প্রস্তাব এসেছিল, তাও সিন্ডিকেটে অনুমোদিত হয়।

এ ছাড়া হল ও ক্যাম্পাস খোলার পর স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে পালনীয় বিষয়গুলো নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের করা নীতিমালা ‘স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউরের’ (এসওপি) কঠোর প্রতিপালনের সিদ্ধান্তও সিন্ডিকেটে অনুমোদন দেওয়া হয়।

হলের উঠার পর স্বাস্থবিধি মানতে শিক্ষার্থীদের কিছু নিয়ম মানতে হবে। নিয়মগুলো হলো-

* কক্ষের বাইরে গেলে সবাইকে বাধ্যতামূলকভাবে নিয়মিত ও সার্বক্ষণিক সঠিক নিয়মে নাক-মুখ ঢেকে মাস্ক পরতে হবে।

* স্বাস্থ্যবিধি পালনের জন্য সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা রাখতে হবে।

* স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী পরস্পরের কাছ থেকে কমপক্ষে ১ মিটার (৩ ফুট) দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।

* কোনো কক্ষের মেঝেতে শোয়া যাবে না। এক বিছানায় একাধিক ব্যক্তি শোয়া যাবে না। কেবল আবাসিক শিক্ষার্থীরা হলে অবস্থান করতে পারবে।

* কোনো বহিরাগত বা বাহির থেকে আসা কাউকে কক্ষে অবস্থান করতে দেওয়া যাবে না। প্রয়োজনসাপেক্ষে কক্ষে ও কক্ষের বাহিরে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করতে হবে।

* শিক্ষার্থীদের নিজ নিজ কক্ষ এবং প্রয়োজনীয় আশপাশ সবসময় নিজ দায়িত্বে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে এবং এক্ষেত্রে হল প্রশাসন সহযোগিতা করবে।

* হল ডাইনিং, ক্যান্টিন, মেস, দোকান, সেলুন, টিভি রুম, অডিটোরিয়াম, অতিথিকক্ষ, পাঠাগার, মসজিদ ও উপাসনালয়ে ভিড় করা যাবে না। এসব স্থানে সামাজিক দূরত্ব মেনে মাস্ক ব্যবহার করতে হবে।

* ডাইনিংয়ে পালাক্রমে খেতে হবে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত অতিথি কক্ষে শিক্ষার্থীদের সমাবেশ বন্ধ থাকবে।

* বেড়ানো ও ঘোরাঘুরি থেকে বিরত থাকতে হবে এবং সভা-সমাবেশ, রেস্তোরাঁ, পার্টি ও গণপরিবহন এড়িয়ে চলতে হবে।