আপু না বলে মা বলেন, সাবেক ছাত্রলীগ নেতাকে ইউএনও!


❏ মঙ্গলবার, অক্টোবর ৫, ২০২১ ফিচার

সময়ের কন্ঠস্বর ডেস্ক: কুমিল্লার বুড়িচং এ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাবিনা ইয়াছমিনকে আপা বলায় রাগান্বিত হয়ে মা ডাকতে বলার অভিযোগ করেছেন জামাল উদ্দিন (৪৫) নামে এক ব্যবসায়ী।

সোমবার (৪ অক্টোবর) দুপুরে বুড়িচং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) তার স্ট্যাটাসটি ভাইরাল হয়। ওই সেবাগ্রহীতা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাবিনা ইয়াসমিনের এমন আচরণে বিরক্ত হয়ে বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তুলে ধরেন।

সেবাগ্রহীতার নাম জামাল উদ্দিন (৪৬)। তিনি বুড়িচং উপজেলার ভরাসার বাজারের একজন ব্যবসায়ী এবং উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।

জামাল উদ্দিনের স্ট্যাটাসটি তুলে ধরা হলো- ‘সরকারি কর্মকর্তাকে সাধারণ জনগণের স্যার বলতে হবে, এটা কি বাধ্যতামূলক? এই বিষয়ে সরকারের কোনো আইন আছে কি?

ফ্যাক্ট: বুড়িচং উপজেলার uno(মহিলা) কে আপা বলার কারণে খুব রাগান্বিত হয়েছেন, এটা নাকি office address না, আপা না বলে মা ডাকতাম। আমি লজ্জিত। দেশটা কি মগের মুল্লুক?’

এ বিষয়ে জামাল উদ্দিনের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, সোমবার দুপুরে জন্ম নিবন্ধন সংক্রান্ত একটি কাজে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অফিসে যাই। এ সময় সমস্যা তুলে ধরে সমাধান চাওয়ার সময় ইউএনওকে আপা বলে সম্বোধন করি। এতে তিনি উত্তেজিত হয়ে যান। তখন তিনি আমাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, স্যার ডাকতে না পারলে মা ডাকবেন। এ ঘটনায় আমি বিব্রত হই। এ সময় সরকারি দফতরের কয়েকজন কর্মকর্তা ও রাজাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান উপস্থিত ছিলেন।

ঘটনার সত্যতা জানতে বুড়িচং উপজেলার ১ নম্বর রাজাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. মোস্তফার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ওইদিনের ঘটনা সত্য। স্যার না বলায় ইউএনও মহোদয় ক্ষেপে যান।

বুড়িচং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাবিনা ইয়াসমিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, উনি অফিসে এসেই আমাকে আপু বলে ডাকেন। উনি বয়স্ক মানুষ হওয়াতে আমি বিব্রত হই। তাই ইতিবাচক চিন্তা থেকেই ওনাকে আপু না বলে মা সম্বোধন করতে বলি।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন