কেরানীগঞ্জে ভুল চিকিৎসায় পা হারালো শিশু

Keranigonj news
❏ বুধবার, অক্টোবর ৬, ২০২১ ঢাকা

মাসুম পারভেজ, কেরানীগঞ্জ(ঢাকা  প্রতিনিধি : ঢাকার কেরানীগঞ্জে এক পল্লী চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসায় অনিক নামের এক মাস বয়সী শিশুর পা কেটে ফেলতে হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। কথিত ডাক্তারের নাম নরেন্দ্রনাথ ওরফে কিশোর, তার পিতা হরিপদ সেও একজন পল্লী কবিরাজ।

ভুক্তভোগী ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের আব্দুল্লাহ্পুর মধ্যপাড়া গ্রামের বাসিন্দা আবুল বাসার ও সীমা দম্পতির ঘরে গত ৯ সেপ্টেম্বর জন্ম নেয় শিশু অনিক। জন্মের ছয় দিন পর এই শিশুটি কান্নাকাটি করায় তার পিতা পল্লী চিকিৎসক কিশোরের ফার্মেসীতে নিয়ে গেলে সে শিশুর পায়ে ট্রাইজন নামে ইনজেকশন পুশ করে, বলে আর কান্না করবে না ভালো হয়ে যাবে।

পরবর্তীতে একদিন পর শিশুর পা ফুলে গেলে শিশুর আত্মীয়স্বজন ও এলাকাবাসীর চাপের মুখে পল্লী চিকিৎসক ভুল চিকিৎসার কথা স্বীকার করে শিশুকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার মিটফোর্ড হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে শিশুটির অবস্থার অবনতি হলে (এনআইসিইউ প্রয়োজন হলে) উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ধানমন্ডির একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানকার চিকিৎসক জানান শিশু অনিকের ডান পায়ের হাড়ে পচন ধরেছে। এখন তার পা কাটা ছাড়া কোন উপায় নেই। অবশেষে গত ২৬ সেপ্টেম্বর শিশুটির পা কেটে ফেলা হয়। গতকাল বাসায় ফিরে শিশু অনিকের বাবা সাংবাদিকদের কাছে এ ঘটনার বিস্তারিত বর্ণনা করেন।

আরও জানা গেছে, এই পল্লীচিকিৎসকের দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানাধীন আবদুল্লাহপুর রসুলপুর রোড (কলাকান্দি চৌরাস্তা) বাজারের কদমপুর এলাকার একটি ফার্মেসি আছে পাশাপাশি তিনি কবিরাজি করেন। এ বিষয়ে পল্লী চিকিৎসক  কিশোরের সাথে মুঠোফোনে ফোন দিয়ে পাওয়া যায়নি।

কেরানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা.মশিউর রহমান বলেন, শিশুটিকে আমাদের কাছে নিয়ে আসলে আমরা সহায়তা করব। এ ছাড়া যে ভুয়া চিকিৎসকের জন্য শিশুটির অঙ্গহানি হয়েছে তার বিরুদ্ধে আমাদের পক্ষ থেকে উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

কেরানীগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাহাবুদ্দিন কবির বলেন, শিশু অনিকের পা হারানোর বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। যদি ওই শিশুর পরিবার কোনো আইনি সহায়তা চান, পুলিশের পক্ষ থেকে সব ধরনের সাহায্য করা হবে। এ ঘটনায় শিশু অনিকের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানা গেছে।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন