মির্জাপুরে স্কুল ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগ

Mirzapur news
❏ বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ৭, ২০২১ ঢাকা

মো. সানোয়ার হোসেন, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার জামুর্কী ইউনিয়নের পল্লী জনতা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রীকে অপহরণ করে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর বাবা বাদি হয়ে গত ১১সেপ্টেম্বর আদালতে মামলা দায়ের করেছেন। মামলাটি আদালত তদন্তের জন্য জেলা গোয়েন্দা সংস্থাকে (ডিবি) দায়িত্ব দিয়েছেন।

মামলা সুত্রে জানা গেছে, টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার জামুর্কী ইউনিয়নের চকুরিয়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে সাফি মিয়া (১৮) দীর্ঘদিন যাবত বাদীর মেয়েকে স্কুলে যাতায়াতের সময় প্রেমের প্রস্তাব দিত। প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় গত ৯ সেপ্টেম্বর বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে অভিযুক্ত সাফি একই এলাকার রফিকুলের স্ত্রী শাহিনুর বেগম (৪৫),সিরাজ মৌলভীর ছেলে আবু মিয়া (৫২),আব্দুর রফের ছেলে আব্দুর রহমানের সহযোগিতায় অপহরণ করে। পরে তার বন্ধুর বাড়িতে নিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

এ বিষয়ে ধর্ষণের শিকার কিশোরীর বাবা জানান, এলাকায় সাফি ও তার পরিবার প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলতে সাহস পায়না। ঘটনার প্রত্যক্ষ স্বাক্ষী সেকান্দরের ছেলে মোক্তার হোসেন ও লুৎফর রহমানের ছেলে নাঈম তালুকদারকে হুমকি দেওয়ায় তারা পলাতক রয়েছেন।
অভিযুক্ত সাফি পলাতক থাকায় যোগাযোগ করা যায়নি। আব্দুর রহমানের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, মেয়ের বাবা আমরা একই পরিবার। সামাজিক দ্বন্দ্বের কারণে  আমাকে মামলায় জড়ানো হয়েছে।

জামুর্কী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রুবেল চৌধুরী জানান, সাফির দাবী ওই স্কুল ছাত্রীর সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। এ কারণে সে স্বেচ্ছায় চলে গেছে। তবে পরিবারে সাথে বনিবনা না হওয়ায় তারা আদালতে মামলা করেছেন।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল জেলা গোয়েন্দা সংস্থা (ডিবি)’র উপ-পরিদর্শক মো. ওবায়দুর রহমান জানান, মামলাটি তদন্তধীন আছে। তদন্ত পূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন