• আজ বুধবার, ২৩ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ৮ ডিসেম্বর, ২০২১ ৷

দীর্ঘদিনের সংঘাত শেষে শান্তি ফিরলো শাহজাদপুরের চর-বর্ণিয়া গ্রামে

Sirajgonj news
❏ শনিবার, অক্টোবর ১৬, ২০২১ রাজশাহী

রাজিব আহমেদ রাসেল, শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি: দীর্ঘদিনের সংঘাত শেষে শান্তি ফিরলো সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরের গালা ইউনিয়নের চর-বর্ণিয়া গ্রামের হাজারো মানুষের মাঝে। শনিবার এক শালিস বৈঠকের মাধ্যমে উভয়পক্ষ দীর্ঘদিনের বিরোধ মিমাংসায় একমত হয়।

জানা যায়, শনিবার (১৬ অক্টোবর) সকাল ৯টায় শাহজাদপুর উপজেলার গালা ইউনিয়নের গোবিন্দপুর প্রাইমারি স্কুল প্রাঙ্গনে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বাতেনের সভাপতিত্বে শালিস শুরু হয়ে দুপুর ১টায় শেষ হয়।

শালিস বৈঠকে উভয়পক্ষের সম্মতিতে প্রধানবর্গ হিসেবে উপস্থিত থেকে শালিস পরিচালনা করেন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোঃ মোতালেব খান, মোঃ আব্দুস সাত্তার সরদার, মোঃ মাজেম মাষ্টার, মো: আব্দুল হাই সরকার, মোঃ আব্দুর রাজ্জাক, মোঃ নিজাম উদ্দিন, ও মোঃ আব্দুল কাদের মাষ্টার। এসময় শালিস বৈঠকে মোঃ আব্দুল হক ও আব্দুল বাতেন উভয় পক্ষের শতাধিক মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

পরে শালিস বৈঠকে স্থানীয় চেয়ারম্যান ও জনপ্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে উভয়পক্ষ গ্রামে শান্তি প্রতিষ্ঠায় একমত হয়। পরে উপস্থিত বিচারকদের সামনেই উভয় পক্ষের লোকজন একে অপরের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন ও কোলাকুলি করেন।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ৪ জুন চর-বর্ণিয়া গ্রামের স্থানীয় দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় ইউনুস আলী নামের এক কিশোরের মৃত্যু হয়। এই মৃত্যুকে কেন্দ্র করে পরবর্তীতে চর-বর্ণিয়া গ্রামের উভয় পক্ষের মাঝে প্রতিনিয়ত অপৃতিকৃর ঘটনা ঘটতে থাকতো। গ্রামের মানুষ গ্রেফতার আতঙ্ক ও প্রতিপক্ষের হামলার ভয়ে এলাকায় যেতে পারতো না।

এই ঘটনাগুলোকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের শতাধিক মানুষের নামে একটি হত্যা মামলা সহ, হামলা, লুটপাট, ছিনতাই ও শ্লীততাহানীর মতো ঘটনার বেশকয়েকটি মামলা উভয় পক্ষের গ্রামে বসবাসের জন্য প্রধান অন্তরায় হয়ে দাঁড়ায়।

এই বিষয়ে আব্দুল হক পক্ষের আখের শেখ বলেন, আর কতোদিন একে অপরের সাথে বৈরিতা রাখবো। আমরা এলাকায় শান্তি চাই, এজন্যই স্থানীয় শালিস বৈঠকের রায় আমরা মেনে নিয়েছি।

শালিস বৈঠকের বিষয়ে আব্দুল বাতেন পক্ষের পলাশ জানান, শালিসে যে সিদ্ধান্ত হয়েছে আমরা নির্দিধায় মেনে নিয়েছি। আশা করি গ্রামে এখন থেকে সবাই মিলিতভাবো সুখে শান্তিতে বসবাস করতো পারবো।

এই বিষয়ে গালা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও শালিস বৈঠকের সভাপতি আঃ বাতেন বলেন, এই গ্রামের দুই পক্ষের দীর্ঘদিনের বিবাদের কারণে হাজারো মানুষ এতোদিন গ্রাম ছাড়া ছিল। তাদের গ্রামটি স্থানীয় জনসাধারনের কাছে আতঙ্ক হিসেবে বিবেচিত হতো। উভয় পক্ষের সাথে আমি আলোচনা করে শালিস বৈঠকে বসার ব্যবস্থা করি।

তিনি আরো জানান, উভয় পক্ষের আন্তরিকতার ফলেই আজ একটি ফলপ্রসু শালিস অনুষ্ঠিত হলো। আমরা আশা করছি আজ থেকে চর-বর্ণিয়া গ্রামে শান্তি প্রতিষ্ঠা হবে এবং উভয় পক্ষ একে অপরের সাথে ভাতৃত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রেখে চলবে।