🕓 সংবাদ শিরোনাম

শিশুকে ডায়াবিটিস থেকে দূরে রাখতে কী কী সতর্কতা অবলম্বন করবেনদক্ষিণ-পূর্ব এশিয়াকে তৈরি থাকার বার্তা দিল ”হু”বুড়িগঙ্গায় ’সাকার ফিশ’র দখলে, হুমকিতে দেশীয় মাছরোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির থেকে ধারালো অস্ত্রসহ আটক-৫করতোয়ার তীরে নিথর পড়ে ছিলো মস্তকহীন নবজাতক!গাজীপুরে দুই শিশুকে ‘হত্যার’ পর ফ্যানে ঝুলে আত্মহত্যার চেষ্টা মা’য়ের!ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ: জাহাজ চলাচল বন্ধ; সহস্রাধিক পর্যটক আটকা সেন্টমার্টিনেআখেরী মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হলো নীলফামারীর তিনদিন ব্যাপী ইজতেমাবঙ্গবন্ধুর শাসনব্যবস্থা নিয়ে গবেষণা করতে মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রীর আহ্বানভোটে হেরে ক্ষোভ মেটাতে রাস্তায় বেড়া দিলেন প্রার্থী, ভোগান্তিতে পুরো গ্রাম!

  • আজ রবিবার, ২০ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ৫ ডিসেম্বর, ২০২১ ৷

বিশ্বে প্রথম সাগরে বিলাসবহুল পর্যটন স্পট বানাচ্ছে সৌদি আরব

saudi n234n24n
❏ মঙ্গলবার, অক্টোবর ১৯, ২০২১ আন্তর্জাতিক

আব্দুল্লাহ আল মামুন, সৌদিআরব প্রতিনিধি: সৌদিআরব বহিঃবিশ্বের পর্যটকদের আকর্ষণ করতে নানা কৌশল অবলম্বন করে চলেছে। এবার তারই ধারাবাহিকতায় সাগরে তেল কেন্দ্রকে কাজে লাগিয়ে ‘দ্যা আরআইজি’ প্রজেক্টের উদ্বোধন করা হলো।

তেল কেন্দ্রভিত্তিক বিশ্বে প্রথম এ ধরণের পর্যটন কেন্দ্র চালু করছে সৌদি। স্থানীয় সময় শনিবার (১৫ অক্টোবর) দেশটির পাবলিক ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড (পিআইএফ) এ ধরণের প্রজেক্ট চালু করার ঘোষণা দিয়েছে।

আরব নিউজের প্রতিবেদন সূত্রে জানা যায় যে, আরব উপসাগরের দেড় লাখ বর্গমিটারের বেশি বিস্তৃত এলাকাজুড়ে থাকছে এই বিশাল আয়োজন। এই প্রজেক্টের আওতায় পর্যটকদের জন্য সব ধরণের আধুনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এই প্রজেক্ট ঘোষণার আগে পর্যটকরা চাইলেও সেখানে যেতে পারতেন না। পর্যটন কেন্দ্রিক এই প্রজেক্টে ব্যয় হবে চারশ বিলিয়ন ডলার। দেশের জনগণ এবং সৌদি সরকারের অর্থায়নে নির্মিত হবে এই পর্যটন কেন্দ্র।

পিআইএফ জানিয়েছে, ২০২১ সাল থেকে ২০২৫ সালের মধ্যেই এই প্রকল্পের কাজ শেষ হবে। এর আওতায় তিনটি বড় হোটেল, রেস্টুরেন্ট, হেলিপ্যাড এবং অ্যাডভেঞ্চার সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম থাকবে। বিনোদনের জন্যও থাকবে বড় আয়োজন।

পিআইএফ আরও জানিয়েছে, বেশ কয়েকটি বড় প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য প্রকল্পগুলো হচ্ছে, কিদ্দিয়া ইন্টারটেইনমেন্ট সিটি, দ্যা রেড সি প্রজেক্ট, আমালা, আলউলা, কিং সালমান পার্ক এবং রিয়াদ স্পোর্টস বৌলিভার্ড।

২০২৪ সালের মধ্যে ১০ কোটি পর্যটকের সম্ভাবনা দেখছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। দীর্ঘদিনের ইতিহাসে সৌদি আরবে শুধু হজ ও উমরাহকেন্দ্রিক পর্যটন ব্যবস্থা ছিল, এই নতুন প্রজেক্টের মাধ্যমে সৌদিআরব পর্যটন খাত এক ধাপ এগিয়ে যাবে।