• আজ বুধবার, ২৩ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ৮ ডিসেম্বর, ২০২১ ৷

কেরানীগঞ্জে গণঅনশন, বিক্ষোভ মিছিল

Keranigonj news
❏ শনিবার, অক্টোবর ২৩, ২০২১ ঢাকা

মাসুম পারভেজ, কেরানীগঞ্জ (ঢাকা)  প্রতিনিধি: সারাদেশে মন্দিরে হামলা, প্রতিমা ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ ও হিন্দুদের উপর সহিংসতার প্রতিবাদে ঢাকার কেরানীগঞ্জে গণঅনশন, গণঅবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ।

শনিবার (২৩ অক্টোবর) সকালে উপজেলা পরিষদের সামনে সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে এ কর্মসূচি পালন করেন তারা।

সমাবেশে কেরানীগঞ্জ উপজেলা বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা মদন কুমার সরকার বলেন, সারাদেশে হিন্দু নির্যাতন, জ্বালাও, পোড়াও, বাড়িঘর ভাংচুর, লুটপাট, প্রতিমা ভাংচুর নারী ধর্ষণ ও মৌলবাদিদের অত্যাচার নিপিড়ন সহ নানা নির্যাতন বন্ধে সরকারের কাছে আমাদের দাবি। আমরা হিন্দু সম্প্রদায়ের সুরক্ষা দাবি পেশ করছি। যার বাস্তবায়ন অতিদ্রুত করা হয় এবং বর্তমান ঘটনার প্রেক্ষাপট নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে আমরা বিচার চাই।

সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সুজন কুমার দাস বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এই দেশে ধর্মনিরপেক্ষতার বীজ বপন করেছিলেন। যেটা এখন আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান এসব পরিচয়ের থেকেও আমাদের বড় পরিচয় হচ্ছে আমরা এদেশের মানুষ। আমরা সনাতনী ধর্মালম্বী যারা আছি তারা ১৯৪৭ এর দেশ ভাগের সময় দেশ ত্যাগ করিনি, মুক্তিযুদ্ধের সময়ও দেশ ছেড়ে যাইনি। তার অর্থ এই যে আমরা এই দেশেই থাকতে চাই। তাহলে কেন আমাদের সঙ্গে এমনটা হচ্ছে। কেনই বা আমাদের ঘর বাড়ি জ্বালিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা পুজা উদযাপন পরিষদ কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট অনুপ বর্মন, সাধারন সম্পাদক অ্যাডভোকেট শেখর চন্দ্র, সাংগঠনিক সম্পাদক চন্ডী দাশ সরকার, উৎপল সরকার, কেরানীগঞ্জ মডেল থানা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি গোপল সরকার, সাধারন সম্পাদক নৃপেন বর্মন, সাংগঠনিক সম্পাদক জীবন শীল, প্রচার সম্পাদক সুমন ঘোষ, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক প্রদীপ সরকার, বাংলাদেশ নব কৃষ্ণভক্ত সংঘ (কেন্দ্রীয় কমিটি) সভাপতি মন্টু বর্মন, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক পি.কে বর্মন, সহকোষাধ্যক্ষ গোপাল সরকার, রতন মন্ডল, নৃত্য সরকার, যতন বর্মন, সমরেশ বর্মন, সুভ্রত বর্মন, সুধারাম বর্মন প্রমূখ।

উল্লেখ্য, কুমিল্লায় একটি পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন পাওয়াকে কেন্দ্র করে সম্প্রতি মন্দির ও হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর হামলায় দেশজুড়ে কমপক্ষে ছয়জন নিহত হয়েছে।

শারদীয় দুর্গাপূজা চলাকালে গত বুধবার (১৩ অক্টোবর) ভোরে কুমিল্লা শহরের নানুয়াদীঘির উত্তরপাড়ে দর্পণ সংঘের পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরীফ দেখা যায়। এরপর ধর্ম অবমাননার অভিযোগ তুলে ওই মণ্ডপে হামলা চালায় একদল লোক। সেখানে ব্যাপক ভাঙচুর চালানো হয়। সারাদেশেই এরপর হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর সাম্প্রদায়িক হামলা শুরু হয়।
পরবর্তীতে সারাদেশে অতিরিক্ত পুলিশ ও বিজিবি সদস্য মোতায়েন করা হয় এবং পুলিশের টহল জোরদার করা হয়।

এদিকে মণ্ডপে পবিত্র কোরআন রাখার ঘটনায় ধর্ম অবমাননার দায়ে অভিযুক্ত ইকবাল হোসেন সন্দেহে এক যুবককে কক্সবাজার সৈকত এলাকা থেকে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) রাত সোয়া ১০টার দিকে সৈকতের সুগন্ধা পয়েন্ট থেকে ওই যুবককে আটক করা হয়।

কুমিল্লা পুলিশের তথ্যের ভিত্তিতে তাকে আটক করা হয়েছে এবং আটক যুবক ইকবাল কিনা তা নিশ্চিত হতে, তার পরিচয় যাচাই-বাছাই চলছে।