🕓 সংবাদ শিরোনাম

শিশুকে ডায়াবিটিস থেকে দূরে রাখতে কী কী সতর্কতা অবলম্বন করবেনদক্ষিণ-পূর্ব এশিয়াকে তৈরি থাকার বার্তা দিল ”হু”বুড়িগঙ্গায় ’সাকার ফিশ’র দখলে, হুমকিতে দেশীয় মাছরোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির থেকে ধারালো অস্ত্রসহ আটক-৫করতোয়ার তীরে নিথর পড়ে ছিলো মস্তকহীন নবজাতক!গাজীপুরে দুই শিশুকে ‘হত্যার’ পর ফ্যানে ঝুলে আত্মহত্যার চেষ্টা মা’য়ের!ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ: জাহাজ চলাচল বন্ধ; সহস্রাধিক পর্যটক আটকা সেন্টমার্টিনেআখেরী মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হলো নীলফামারীর তিনদিন ব্যাপী ইজতেমাবঙ্গবন্ধুর শাসনব্যবস্থা নিয়ে গবেষণা করতে মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রীর আহ্বানভোটে হেরে ক্ষোভ মেটাতে রাস্তায় বেড়া দিলেন প্রার্থী, ভোগান্তিতে পুরো গ্রাম!

  • আজ রবিবার, ২০ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ৫ ডিসেম্বর, ২০২১ ৷

পাকিস্তানি সেনাদের গুলিতে ভারতীয় জেলে নিহত

india m
❏ সোমবার, নভেম্বর ৮, ২০২১ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- সমুদ্রে আন্তর্জাতিক জলসীমা লঙ্ঘনের পর পাকিস্তানি বাহিনীর গুলিতে এক ভারতীয় জেলে নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হয়ে হাসপাতালে চিকিত্‍সাধীন আরও এক জেলে।

গত শনিবার (৬ নভেম্বর) বিকেলে ভারতের গুজরাটের ওখা বন্দরের কাছে পাকিস্তানের মেরিটাইম সিকিউরিটি এজেন্সি’র (পিএমএসএ) গুলিতে ওই ভারতীয় জেলে নিহত হন।

পাকিস্তানের এমন আচরণে ক্ষুব্ধ ভারত। কূটনৈতিকস্তরে নিজেদের জেলে হত্যা নিয়ে সোচ্চার নয়াদিল্লি। ইতিমধ্যেই ভারতের পক্ষ থেকে একটি এফআইআর দায়ের করা হয়েছে।

জানা গেছে, নিহত ওই জেলের নাম শ্রীধর রমেশ চামরে (৩২), তিনি মহারাষ্ট্রের বাসিন্দা ছিলেন। গতকাল রবিবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

গণমাধ্যমটি বলছে, গত শনিবার বিকেলে পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য গুজরাটের ওখা বন্দরের কাছে আন্তর্জাতিক জলসীমায় সতর্ক না করেই ভারতীয় জেলেদের ওপর গুলি চালায় পাকিস্তানের মেরিটাইম সিকিউরিটি এজেন্সি। গুলিতে ঘটনাস্থলেই এক জেলে নিহত হন। এ ঘটনায় আহত হন আরও এক জেলে। বর্তমানে গুজরাটের একটি হাসপাতালে আহত ওই জেলের চিকিৎসা চলছে।

ভারতের সরকারি সূত্র থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, শনিবার বিকেলে জলপরী নামক একটি নৌকা নিয়ে গুজরাটের সমুদ্রে মাছ ধরতে যান সাত ভারতীয় জেলে। ভুলবশত তারা আন্তর্জাতিক জলসীমার কাছাকাছি পৌঁছে যেতেই নৌকা লক্ষ্য করে গুলি চালাতে শুরু করে পাকিস্তানের মেরিটাইম সিকিউরিটি এজেন্সির সদস্যরা। গুলিতে ঘটনাস্থলেই এক জেলে নিহত হন।

সংবাদমাধ্যমগুলোর দাবি, সমুদ্রের পানির ওপর কাঁটাতারের বেড়া দেওয়া সম্ভব না হওয়ায়, কেউ আন্তর্জাতিক জলসীমার কাছাকাছি চলে আসলে তাকে প্রথমে সতর্ক করার নিয়ম রয়েছে। এক্ষেত্রে ভুক্তভোগী ভারতীয় ওই জেলেদের দাবি, কোনো ধরনের সতর্কবার্তা দেওয়া ছাড়াই পাকিস্তানের বাহিনী তাদের ওপর গুলি চালায়।