বিএনএ ওসমানী শাখার মানবিকতা, শিক্ষাজীবন নিয়ে অনিশ্চয়তা কাটলো স্বর্ণা ও সুমাইয়ার

Sylhet news
❏ সোমবার, নভেম্বর ৮, ২০২১ সিলেট

আবুল হোসেন, সিলেট প্রতিনিধি: বাংলাদেশ নার্সেস এসোসিয়েশন (বিএনএ) সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল শাখার নেতৃবৃন্দের মানবিকতায় শিক্ষাজীবন নিয়ে অনিশ্চয়তা কাটলো নার্সিংয়ের দুই শিক্ষার্থীর। আর্থিক অনটনের কারণে পড়ালেখা বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হওয়া এই দুই শিক্ষার্থীর দায়িত্ব নিয়েছেন বিএনএ ওসমানী শাখার নেতৃবৃন্দ।

ওই দুই শিক্ষার্থীর মধ্যে একজনের পড়ালেখার খরচ এবং অন্যজনের পড়ালেখার খরচের পাশাপাশি হোস্টেলে থাকা ও খাওয়ারও দায়িত্ব নিয়েছেন তারা।

সোমবার (৮ নভেম্বর) আনুষ্ঠানিকভাবে এই দুই শিক্ষার্থীর দায়িত্ব নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিএনএ সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল শাখার সাধারণ সম্পাদক ইসরাইল আলী সাদেক।

জানা যায়, ঢাকার মহাখালিস্থ ইউনিভার্সেল নার্সিং কলেজের বিএসসি ২য় বর্ষের ছাত্রী স্বর্ণা আক্তার গত ৮ অক্টোবর বিএনএ ওসমানী শাখার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বরাবর আর্থিক সহায়তা চেয়ে একটি আবেদন করেন। আবেদনে তিনি উল্লেখ করেন, তার বাবার উপার্জনের একমাত্র অবলম্বন ছিল একটি বাস। বাসটি দুর্ঘটনায় পতিত হওয়ায় বাসসহ সর্বস্ব হারিয়েছে তার পরিবার। তার মাও জঠিল রোগে আক্রান্ত।

করোনা ও দীর্ঘ লকডাউনে তার পরিবার আজ নি:স্ব। এই অবস্থায় দ্বিতীয় বর্ষের টিউশন ফি ৫০ হাজার টাকা বকেয়া জমেছে। আর শিক্ষাজীবন শেষ করতে হলে তৃতীয় ও চতুর্থ বর্ষে ৭০ হাজার ৫০ হাজার টাকা করে আরও ১ লাখ ৪১ হাজার টাকা প্রয়োজন। সবমিলিয়ে বিএসসি নার্সিং পড়ালেখা সম্পন্ন করতে হলে প্রয়োজন ১ লাখ ৯১ হাজার টাকা। এই টাকার সংস্থান না হলে তার শিক্ষাজীবন থেমে যাওয়ার শঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

এই আবেদনের প্রেক্ষিতে সোমবার বিএনএ ওসমানী শাখার নেতৃবৃন্দ আনুষ্ঠানিকভাবে স্বর্ণার পড়ালেখার দায়িত্ব গ্রহণ করেন। সোমবার ঢাকায় গিয়ে স্বর্ণার হাতে তার দ্বিতীয় বর্ষের টিউশন ফি ৫০ হাজার টাকা তুলে দেন বিএনএ ওসমানী হাসপাতাল শাখার সাধারণ সম্পাদক ইসরাইল আলী সাদেক।

এছাড়া তৃতীয় ও চতুর্থ বর্ষের পড়ালেখার খরচ পর্যায়ক্রমে দেয়ার আশ্বাস দেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন- বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নার্সিং কর্মকর্তা মো. সুজন, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল বিএনএ’র সাংগঠনিক সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, বাংলাদেশ বেসিক গ্র্যাজুয়েট স্টুডেন্ট নার্সেস’ এসোসিয়েশন (বিবিজিএসএনএ) এর সভাপতি ইমরানুল হক হিমেল প্রমুখ।
এদিকে, গত ৯ অক্টোবর শরীয়তপুর জেলার ডামুড্যা উপজেলার সিড্যা গ্রামের উম্মে সুমাইয়া নামের এক শিক্ষার্থী পড়ালেখার জন্য আর্থিক সহায়তা চেয়ে বিএনএ সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল শাখার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে আবেদন করেন।

আবেদনে তিনি উল্লেখ করেন, ভর্তি পরীক্ষায় পাশ করলেও পরিবারের আর্থিক সামর্থ্য না থাকায় তিনি বেসরকারি কোন নার্সিং কলেজে ভর্তি হতে পারছেন না। অথচ ছোটবেলা থেকেই তার স্বপ্ন ছিল পড়ালেখা করে একজন নার্স হওয়ার।
সুমাইয়ার আবেদনের প্রেক্ষিতে তার পড়ালেখার ব্যবস্থা করেছে বিএনএ ওসমানী হাসপাতাল শাখা। সোমবার (৮ নভেম্বর) সুমাইয়াকে সিলেটের আল-আমিন নার্সিং কলেজে বিএসসি নার্সিংয়ে ভর্তি করে দেয়া হয়েছে। তার ভর্তি, কলেজের বেতন, পরীক্ষা ফিসহ পড়ালেখার যাবতীয় খরচ এবং হোস্টেলে থেকে থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা করে দিয়েছে বিএনএ ওসমানী হাসপাতাল শাখার নেতৃবৃন্দ।

এ প্রসঙ্গে, বিএনএ সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল শাখার সাধারণ সম্পাদক ইসরাইল আলী সাদেক বলেন, ‘আমাদের শক্তি হচ্ছে ঐক্য, সততা ও সাহস। ইচ্ছা থাকলে আমরা এভাবেই একে অন্যের দু:সময়ে পাশে দাঁড়াতে পারি। কাউকে সহযোগিতা করতে চাইলে সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন উদার মানসিকতা। এটা আবারও প্রমাণ করলো সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নার্সিং কর্মকর্তারা। আমাদের ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্ঠায় স্বর্ণা ও সুমাইয়া তাদের শিক্ষাজীবন শেষ করে নার্সিং কর্মকর্তা হিসেবে মানুষের সেবায় আত্মনিয়োগ করবে- এমন প্রত্যাশা আমাদের।’