ভোটে জিতলে জনতার সেবায় নিজেকে উৎসর্গ করব: প্রতিবন্ধী আরিফ

arif
❏ মঙ্গলবার, নভেম্বর ৯, ২০২১ দেশের খবর, রংপুর

সাইফুল ইসলাম মুকুল, রংপুর- দ্বিতীয় দফায় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের শেষ মুহূর্তের প্রচারণা জমে উঠেছে। এ নির্বাচনে রংপুরের পীরগঞ্জের কাবিলপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ৩ নম্বর ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য পদে বৈদ্যুতিক পাখা প্রতীকে নির্বাচন করছেন শারীরিক প্রতিবন্ধী আরিফ মিয়া । নিজের জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী ইউপি সদস্য পদপ্রার্থী এই প্রতিবন্ধী আরিফ মিয়া

তিনি বলেন, শারীরিক প্রতিবন্ধকতা আমার এগিয়ে যাওয়ার অনুপ্রেরণা। আমার নির্বাচনী এলাকা কাবিলপুর ইউপির ৩ নম্বর ওয়ার্ডে ২ হাজার ৮০০ জন ভোটার। আমি অধিকাংশ ভোটারের সঙ্গে দেখা করেছি। তারা নিজেদের টাকা খরচ করে আমার পক্ষে প্রচার চালাচ্ছেন।

তিনি আরও বলেন, আমি অবিবাহিত। বিয়েও করব না। নির্বাচিত হলে জনতার সেবায় নিজেকে উৎসর্গ করব। আর নির্বাচনে আমার প্রতিদ্বন্দ্বী আরও তিন প্রার্থী রয়েছেন। তারপরও জয়ের সম্ভাবনা দেখছি। কারণ, জনগণ আমার সরলতা এবং শারীরিক কারণে আমাকে অনেক ভালোবাসেন। পৃথিবীতে উচ্চতায় সবচেয়ে ছোট জনপ্রতিনিধি হব। কেননা আমার ওজন ১৭ কেজি। আর উচ্চতা ৩২ ইঞ্চি।

কাবিলপুর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের ভোটার রউফ মিয়া বলেন, আরিফ প্রতিবন্ধী ও ক্ষুদ্রাকৃতির হলেও তার মন মানসিকতা খুব ভালো। তার কোনো অর্থনৈতিক লোভ-লালসা নেই। তাই আমরাও চাই আরিফ আমাদের ভোটে মেম্বার নির্বাচিত হয়ে এলাকার মানুষের পাশে দাঁড়াক।

এলাকার আরেক ভোটার সুজন মিয়া বলেন, যারা আমাদের ওয়ার্ডে সদস্য প্রার্থী তাদের মধ্যে শিক্ষিত প্রার্থী আরিফ। তিনি সকলের সঙ্গে মিশেন। এলাকায় তরুণদের ভালো জনপ্রিয়তাও অর্জন করেছেন তিনি।

ইউপি নির্বাচনে সদস্য পদে অংশগ্রহণ করে সবার মনোযোগ কেড়েছেন আরিফ। শুধু ইউনিয়ন নয়, পুরো উপজেলাজুড়েই আরিফকে নিয়ে চলছে আলোচনা-পর্যালোচনা।

জানা গেছে, ২০১৪ সালে উপজেলার চতরা ইকলিমপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এসএসসি পাস করেন। এরপর তিনি চতরা বিজ্ঞান ও কারিগরি কলেজে ভর্তি হন। তবে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়ার আগেই পড়াশোনায় ইতি টানেন আরিফ।

দ্বিতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে পীরগঞ্জ উপজেলার ১৫টির মধ্যে ১০টি ইউনিয়নে আগামী ১১ নভেম্বর ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এই ১০ ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ৯০ জন ও সাধারণ ওয়ার্ড সদস্য পদে ৪২২ এবং সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ১৩৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।