• আজ সোমবার, ২১ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ৬ ডিসেম্বর, ২০২১ ৷

সিনহার সাজা বিচার বিভাগের জন্য সুখকর নয়: আইনমন্ত্রী

anisul n2
❏ মঙ্গলবার, নভেম্বর ৯, ২০২১ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- ঋণ জালিয়াতি ও অর্থ আত্মসাতের মামলায় সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহাকে পৃথক দুটি ধারায় ১১ বছরের কারাদণ্ড দেওয়ার বিষয়ে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ‘অবশ্যই আমি বলব, বিচার বিভাগের জন্য এটা কোনো সুখকর দিন নয়। কিন্তু এটাও সঠিক, অন্যায় করলে তার বিচার হবে।’

মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) সচিবালয়ে আইন মন্ত্রণালয়ে নিজ দফতরে রায়ের প্রতিক্রিয়ায় সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

আইনমন্ত্রী বলেন, আমরা ১৯৭৫ সালে থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত কী দেখেছি—এই দেশে জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্যা করলেও একটা মামলা হয় না। এ সংস্কৃতি থেকে আমরা বেরিয়ে এসেছি। পর্যায়ক্রমে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলা, জেল হত্যা মামলা, মানবতাবিরোধী ও যুদ্ধাপরাধীর বিচার এবং অন্যান্য যেসব দুর্নীতির বিচার হয়েছে সেসবের মাধ্যমে প্রমাণ হয়েছে দেশে আইনের শাসন আছে। অন্যায় করলে আদালত এবং আইন তার নিজস্ব গতিতে চলে। অন্যায়ের বিচার হবে এবং প্রতিরোধ হবে।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বাংলাদেশে ইতিহাসে কোনো বিচারপতি এ রকম অন্যায় করেননি। যে কারণে বিচার করার প্রয়োজন হয়নি। অন্যায় হলে নিশ্চয়ই বিচার হতো। পৃথিবীতে অনেক নজির আছে। যুক্তরাজ্যের ইতিহাসে-ফ্রেঞ্চ রেভল্যুশনেও দেখবেন, সেটা এখানে বড় কথা নয়। সেটাকে উদাহরণ হিসেবেও আনা উচিত না। কথা হচ্ছে, অন্যায় করলে বিচার হবেই। প্রমাণিত হচ্ছে, কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়, এটা অত্যন্ত প্রয়োজন ছিল।

আইনমন্ত্রী আরও বলেন, আই অ্যাম নট ভেরি হ্যাপি। কারণ বিচার বিভাগের সঙ্গে তিনি সম্পৃক্ত ছিলেন, তিনি প্রধান বিচারপতি ছিলেন। আমি একজন আইনজীবী, বিচার বিভাগের সঙ্গে সারাজীবনই সম্পৃক্ত। আমার জন্য এটা সুখকর হতে পারে না।

‘তবে এ রায়ে এটাই প্রমাণ হয়েছে যে, কেউই আইনের ঊর্ধ্বে নয়। রাষ্ট্রের উচ্চপদে থাকলে তাকে কর্মকাণ্ডের হিসাব দিতে হবে। দৃষ্টান্ত স্থাপন হলো যে, সবারই স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা পালন করা উচিত।’

চার কোটি টাকা আত্মসাৎ ও পাচারের মামলায় সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাকে মঙ্গলবার ১১ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। পাশাপাশি ৪৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে তাকে।

ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪-এর বিচারক শেখ নাজমুল আলম মঙ্গলবার বেলা ১১টা ৩ মিনিটে আলোচিত মামলাটির রায় পড়া শুরু করেন। রায় ঘোষণা করেন দুপুর সোয়া ১টার দিকে।

১৮২ পৃষ্ঠার রায়ে বলা হয়, অর্থ পাচারের দায়ে সিনহাকে ৭ বছর কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। জরিমানা করা হয়েছে ৪৫ লাখ টাকা। সেই সঙ্গে অর্থ আত্মসাতের দায়ে ৪ বছর কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। আদালত বলেছে, সাজা চলবে একসঙ্গে। ফলে সিনহাকে কারাগারে থাকতে হবে ৭ বছর।