🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ মঙ্গলবার, ১৫ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ৩০ নভেম্বর, ২০২১ ৷

অধ্যক্ষ দিয়েই চলছে ঝালকাঠি নার্সিং ইনস্টিটিউট !

Jhalokathi pic
❏ বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১১, ২০২১ বরিশাল

মো:নজরুল ইসলাম,ঝালকাঠি প্রতিনিধি : প্রয়োজনীয় শিক্ষক ও জনবল নিয়োগ ছাড়াই চলছে ঝালকাঠি নার্সিং ইনস্টিটিউট। এছাড়া রয়েছে যন্ত্রাংশের অভাব। দ্রুত এসব সমস্যার সমাধানের দাবি শিক্ষার্থীদের। ঝালকাঠি নার্সিং ইনস্টিটিউট এমন চকচকে দালান আর শ্রেণী কক্ষ মন কাড়বে যে কারো।

২০১৮ সালে তৈরী করা হয় এই ইনস্টিটিউট। তবে এখনও জনবল বলতে একজন অধ্যক্ষ ও একজন হিসাবরক্ষক। এ ছাড়া রয়েছে পরীক্ষাগারের প্রয়োজনীয় যন্ত্রাংশের ঘাটতি। এ অবস্থায় সরকারের কোটি কোটি টাকা ব্যায় করে ঝালকাঠি নার্সিং ইনস্টিটিউট করলেও তা এখনো কাজে আসছে না ।

এখানে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীরা জানান, মনমুগ্ধকর পরিবেশ হলেও পর্যাপ্ত শিক্ষক না থাকায় লেখাপাড়ায় সমস্যা হচ্ছে তাদের। নেই পর্যাপ্ত শিক্ষা কার্যক্রম।

শিক্ষার্থীরা আরো বলেন, শিক্ষক স্বল্পতা ও ক্লাস স্বল্পতাও রয়েছে, নেই পর্যাপ্ত শিক্ষা কার্যক্রম । আমাদের হাতে কলমে শিক্ষা দিতে হলে এখান থেকে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে নিয়ে যেতে হবে। এখানে গাড়ি আছে কিন্তু ড্রাইভার নেই। কেউ কেউ বলেন, স্টাফের দরকার, আমাদের নিজেদের কাজ করতে হচ্ছে স্টাফের স্বল্পতার কারণে।

নার্সিং ইনস্টিটিউটের একজন বলেন, আমাকে অফিস দেখতে হয়, একাডেমিক দেখতে হয়, প্রশাসনিক দেখতে হয় এবং হোস্টেলে মেয়েরা কি করে তাও দেখতে হয়। যার কারণে আমি নিজেই অনেকটা পেরেশান হয়ে গিয়েছি। আমার একার পক্ষে আসলে কতটা ভালো সার্ভিস দেয়া সম্ভব হবে যদি এরকম শূন্য থাকে। এ পরিস্থিতে দ্রুত জনবল দরকার।

তবে বিষয়টি অস্বীকার করে অধ্যক্ষ মোসাম্মৎ শাহিনুর বেগম বলছেন, লোকবল নিয়োগের বিষয়ে প্রক্রিয়া চলছে।

ঝালকাঠি নাসিং ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ মোসাম্মৎ শাহিনুর বেগম বলেন, চারজন দিয়েই আমরা শুরু করেছি। আমরা এখনো কোনও প্রতিকূলতার শিকার হইনি। কারণ আমরা ম্যানেজ করে যাচ্ছি। শিগগিরই আমরা বাকি জনবল পেয়ে যাব।

ঝালকাঠি নাসিং ইনস্টিটিউটের প্রায় ৩ একর জমির উপর নির্মিত এই ইনস্টিটিউটে লোকবল দরকার ২৫৮ জন।