• আজ বুধবার, ১৬ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ১ ডিসেম্বর, ২০২১ ৷

মৃত্যুর ১৩ বছর পর মুক্তি পাচ্ছে মান্নার শেষ ছবি

manna n24
❏ রবিবার, নভেম্বর ১৪, ২০২১ বিনোদন

বিনোদন ডেস্ক- মান্নার ছবি মানেই হিট। প্রযোজকরা তাকে নিয়ে লগ্নি করতে ভরসা পেতেন। ২০০৮ সালের ১৭ ফেব্রয়ারি মৃত্যুর মধ্য দিয়ে চলচ্চিত্রের সফল এক নায়কের পরিসমাপ্তি ঘটে। মৃত্যুর এক যুগেরও বেশি সময় পর মুক্তি পেতে যাচ্ছে ঢালিউডের জনপ্রিয় এই নায়কের শেষ সিনেমা। নাম ‘জীবন যন্ত্রণা’। সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী বছরের ২৬ মার্চ সিনেমাটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে।

এই সিনেমার কাজ শুরু হয়েছিল ২০০৫ সালে। তখন এর নাম ছিল ‘লীলামন্থন’। সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন জাহিদ হোসেন। কিছু অংশের কাজ বাকি থাকতেই নায়ক মান্না মারা যান। এ কারণে এর কাজ থমকে যায়।

পরবর্তীতে আবারও শুরু হয় সিনেমাটির কাজ। সব শেষ করে ২০১১ সালে এটি জমা দেওয়া হয় সেন্সর বোর্ডে। কিন্তু ‘লীলামন্থন’ নামের জন্য সিনেমাটি আটকে যায়। এক দশক আটকে থাকার পর অবশেষে নাম পরিবর্তন করে ছাড়পত্র পেল এই সিনেমা।

‘জীবন যন্ত্রণা’ প্রযোজনা করেছেন খোরশেদ আলম খসরু। তিনি জানান, গত অক্টোবরের শেষ সপ্তাহে সেন্সর বোর্ড সিনেমাটি দেখেছে। মুক্তিযুদ্ধের গল্পে নির্মিত এই সিনেমা মুক্তিতে এখন আর বাধা নেই।

সিনেমাটিতে মান্নার সঙ্গে আরও অভিনয় করেছেন মৌসুমী, পপি, শাহনূর, মুক্তি, দীঘি, বাপ্পারাজ, আলীরাজ, আনোয়ারা, শহিদুল আলম সাচ্চু, মিশা সওদাগর প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, ১৯৬৪ সালে টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে জন্ম নেন মান্না। তার আসল নাম এস এম আসলাম তালুকদার। উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় পাস করার পরই ১৯৮৪ সালে তিনি ‘নতুন মুখের সন্ধানে’র মাধ্যমে চলচ্চিত্রে আসেন। এরপর থেকে একের পর এক চলচ্চিত্রে অভিনয় করে নিজেকে সেরা নায়ক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেন। তিনি ২০০ এর অধিক সিনেমায় অভিনয় করেন। মান্না বঞ্চিত মানুষের কথা সিনেমার পর্দায় সুনিপুণভাবে তুলে ধরেছেন।

নব্বই দশকে অ শ্লী ল চলচ্চিত্র নির্মাণের ধারা শুরু হলে যে কজন প্রথমেই এর প্রতিবাদ করেছিলেন,তাদের মধ্যে নায়ক মান্না ছিলেন অন্যতম। রীতিমতো যু দ্ধ করেছেন অ শ্লী ল চলচ্চিত্রের বিরুদ্ধে। এসব চলচ্চিত্রের নির্মাতাদের সঙ্গে লড়াই করে শেষ পর্যন্ত জয়ী হয়েছিলেন।

দা ঙ্গা, লুট তরাজ, তে জী, আম্মাজান, আব্বাজান প্রভৃতি চলচ্চিত্রে চমৎকার অভিনয় এর মাধ্যমে জনপ্রিয়তার চূড়া ছুঁয়েছিলেন মান্না। তাঁর অভিনীত আম্মাজান চলচ্চিত্রটি বাংলাদেশের সর্বাধিক ব্যবসাসফল ও জনপ্রিয় চলচ্চিত্রগুলোর মধ্যে অন্যতম।

মান্না শুধু চলচ্চিত্র অভিনেতাই ছিলেন না, তাঁর প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান থেকে যতগুলো ছবি প্রযোজনা করেছেন, প্রতিটি ছবি ব্যবসাসফল হয়েছিল। ছবিগুলো হচ্ছে লুট ত রাজ, লাল বাদশা, আব্বাজান, স্বামী স্ত্রীর যু দ্ধ, দুই বধু এক স্বামী, মনের সাথে যু দ্ধ, মান্না ভাই ও পিতা মাতার আমানত।

মৃত্যুর পূর্বপর্যন্ত তিনি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

২০০৮ সালের ১৭ই ফেব্রুয়ারি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মাত্র ৪৪ বছর বয়সে মান্না মৃত্যুবরণ করেন বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় এই নায়ক।