• আজ বুধবার, ১৬ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ১ ডিসেম্বর, ২০২১ ৷

বিরক্তিকর পায়ের দুর্গন্ধ কাটানোর ঘরোয়া উপায়

Lifestyle desk
❏ সোমবার, নভেম্বর ১৫, ২০২১ লাইফস্টাইল

লাইফস্টাইল ডেস্ক: আমাদের ত্বকে আছে অসংখ্য ঘামগ্রন্থি। জুতা পরা অবস্থায় অনেকেরই পা ঘামে। ঘামের সঙ্গে পানি, লবণ, তেল বা চর্বিজাতীয় পদার্থ ও বিপাকীয় আরও অনেক পদার্থ বের হয়। পায়ের ত্বকে থাকা হাজারো জীবাণু ঘর্মাক্ত পায়ের স্যাঁতসেঁতে পরিবেশে এসব নিঃসরণ গ্রহণ করে নানা উচ্ছিষ্ট তৈরি করে। এগুলোর মধ্যে ‘আইসোভ্যালেরিক অ্যাসিড’ নামে একধরনের ফ্যাটি অ্যাসিড অন্যতম। এর জন্যই পায়ে দুর্গন্ধ হয়।

আসলে ঘেমে যাওয়া পায়ে খুব দ্রুত ব্যাকটেরিয়া জন্মাতে শুরু করে, যার ফলে পায়ে প্রচণ্ড দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়। যে কারণে প্রতিনিয়তই  অস্বস্তিকর পরিস্থিতিতে পড়তে হয় যাদের এ সমস্যা আছে। মোজায় পারফিউম বা পাউডার মেখেও সমস্যার সমাধান হয় না। এক্ষেত্রে বেশ কয়েকটি ঘরোয়া উপায় আছে, যা কাজে লাগিয়ে এই অস্বস্তিকর পরিস্থিতি থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। জেনে নিন পায়ের দুর্গন্ধ কাটানোর কয়েকটি সহজ ঘরোয়া উপায়-

১. নিয়মিত পা পরিষ্কার রাখুন। বাইরে থেকে ঘরে ফিরে ভালো করে পা ধুয়ে নিন।

২. ভালোভাবে পা মুছে, ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিন।

৩. মাঝে মধ্যে জুতাগুলোকে রোদে দিন। একই মোজা না ধুয়ে পর পর দুদিন ব্যবহার করবেন না।

৪. জুতার ভেতরে কিছুটা বেকিং সোডা ছিটিয়ে নিন। বেকিং সোডার অ্যাসিডিক উপাদান পা পরিষ্কার রাখতে সহায়তা করে এবং পায়ে ব্যাকটেরিয়া জন্মাতে বাধা সৃষ্টি করে। এতে করে পা অতিরিক্ত ঘেমে যাওয়া এবং পায়ে বিশ্রী দুর্গন্ধ হওয়ার সমস্যা আর থাকে না।

৫. বাড়িতে ফিরে কুসুম গরম জলেতে লবণ মিশিয়ে তার মধ্যে অন্তত ১৫ মিনিট পা ডুবিয়ে রাখুন। এতে পায়ে ব্যাকটেরিয়া জন্মাতে পারে না। ফলে পায়ে দুর্গন্ধ হওয়ার সমস্যা থেকেও রেহাই পাওয়া যাবে।

৬. সবসময় সুতি মোজা ব্যবহার করুন।

৭. যাদের এমন সমস্যা হয়, তাদের ঘন ঘন চা বা কফি না খাওয়াই ভাল।

৮. মশলাদার বা স্পাইসি খাবারদাবার এড়িয়ে চলুন।

৯. সপ্তাহে অন্তত একবার জুতার ভিতরে সুগন্ধি পাউডার দিয়ে, ভাল করে কাপড় দিয়ে মুছে নিন।