🕓 সংবাদ শিরোনাম

ইউনেস্কো পুরস্কার জিতলো দেড়শ বছরের পুরনো দোলেশ্বর হানাফিয়া মসজিদঢাকার পর শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর হচ্ছে চট্টগ্রামেও‘ভাই কবরে ,খুনি কেন বাহিরে’ শ্লোগানে শিক্ষার্থীদের কফিন মিছিলশিশুকে ডায়াবিটিস থেকে দূরে রাখতে কী কী সতর্কতা অবলম্বন করবেনদক্ষিণ-পূর্ব এশিয়াকে তৈরি থাকার বার্তা দিল ”হু”বুড়িগঙ্গায় ’সাকার ফিশ’র দখলে, হুমকিতে দেশীয় মাছরোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির থেকে ধারালো অস্ত্রসহ আটক-৫করতোয়ার তীরে নিথর পড়ে ছিলো মস্তকহীন নবজাতক!গাজীপুরে দুই শিশুকে ‘হত্যার’ পর ফ্যানে ঝুলে আত্মহত্যার চেষ্টা মা’য়ের!ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ: জাহাজ চলাচল বন্ধ; সহস্রাধিক পর্যটক আটকা সেন্টমার্টিনে

  • আজ রবিবার, ২০ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ৫ ডিসেম্বর, ২০২১ ৷

মাহবুব তালুকদার ‘শালীনতা বহির্ভূত’ কথা বলেছেন: সিইসি

cec n2
❏ সোমবার, নভেম্বর ১৫, ২০২১ ফিচার

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- ইউপি নির্বাচন নিয়ে মাহবুব তালুকদারের মন্তব্য শালীনতা বহির্ভূত- এমনটি বলেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা।

সোমবার ১৫ নভেম্বর) বিকেলে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশন ভবনের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। সম্মেলনে সিইসি গত দুই ধাপের ইউপি নির্বাচনের সার্বিক পরিস্থিতি তুলে ধরেন।

স্থানীয় সরকারের সাম্প্রতিক নির্বাচন নিয়ে রোববার সংবাদ সম্মেলন করেন জ্যেষ্ঠ নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, প্রকৃতপক্ষে নির্বাচন এখন আইসিইউতে থাকার মতো অবস্থায়। আর এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসেবে গণতন্ত্র লাইফ সাপোর্টে রয়েছে।

মাহবুব তালুকদার সম্পর্কে সিইসি বলেন, উনি যে কথাগুলো ব্যবহার করেছেন সেগুলো শালীনতা বহির্ভূত। আইসিইউ, লাইফ সাপোর্ট- এ কথাগুলো শালীন মনে করি না।

তিনি বলেন, কমিশনের প্রত্যেক সদস্যের উচিত নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সহোযোগিতা করা। কিন্তু সেই জায়গায় বসে এমন সব মন্তব্য কাম্য নয়। তাছাড়া তিনি এমন সব কথা মাঝে মধ্যে বলেই থাকেন। তার অনুপস্থিতিতে সে বিষয়ে কথা বলতে চাই না।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সিইসি বলেন, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে একটি মৃত্যুও স্বাভাবিক না। আমরা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়ে বলেছি, নির্বাচনী এলাকায় যারা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সহিংসতা করে তাদের রোধ করতে কঠোরভাবে দায়িত্ব পালন করতে।

তিনি বলেন, আমাদের জায়গা থেকে শতভাগ পাওয়ার (ক্ষমতা) প্রয়োগ করতে পারছি। কিন্তু যারা মারামারি করছে সেটা আসলে তাদের ব্যাপার। তবে আমরা পুলিশ বাহিনীকে নির্দেশনা দিয়েছি কেউ যদি নির্বাচনের সময় কোন সহিংসতা করে তাহলে অবশ্যই তাদের আইনের আওতায় আনতে হবে।

সিইসি বলেন, গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী সারাদেশে নির্বাচনি সহিংসতায় প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। তবে এসব প্রাণহানির ঘটনার সবগুলো নির্বাচনি সংঘর্ষের কারণে হয়েছে কি না, তা অনুসন্ধানের দাবি রাখে। এর মধ্যে মাত্র কয়েকটি ঘটনা ভোটকেন্দ্রে বা ভোটের দিন ঘটেছে। কোনো ঘটনা নির্বাচনি তফসিল ঘোষণার আগেই ঘটেছে। আবার কোনোটি রাতের আঁধারে ঘটেছে। এসব হত্যার মোটিভ কী, তা তদন্তের বিষয়।

লিখিত বক্তব্যে সিইসি বলেন, ইউপি নির্বাচনকে ঘিরে কয়েকটি স্থানে হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। তার কোনোটিই প্রত্যাশিত ও কাম্য নয়। গণমাধ্যমগুলো এসব ঘটনার ওপর বিশ্লেষণমূলক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। তাতে দেখা গেছে, এর পেছনে ছিল নির্বাচনকে সামনে রেখে আধিপত্য বিস্তার, বংশীয় প্রভাব, ব্যক্তিগত শত্রুতা, রাজনৈতিক কোন্দল ইত্যাদি। ফলে এসব সহিংসতা ও প্রাণহানির কারণ অনুসন্ধানের দাবি রাখে।

এসময় নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলাম, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদত হোসেন চৌধুরী, ইসি সচিব মো. হুমায়ুন কবির খন্দকার এবং ইসির যুগ্মসচিব এস এম আসাদুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।