• আজ সোমবার, ২১ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ৬ ডিসেম্বর, ২০২১ ৷

অবশেষে খোঁজ মিলেছে একসাথে ‘রহস্যজনকভাবে উধাও’ তিন কিশোরীর

উধাও কিশোরী
❏ শুক্রবার, নভেম্বর ১৯, ২০২১ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকাঃ ‘টিকটক আসক্ত’ তিন বোনের একসাথে উধাও হবার পর গত ২৪ ঘন্টায় শত জল্পনা-কল্পনা আর সম্ভাব্য সব আশংকার অবসান ঘটেছে।

অবশেষে খোঁজ মিলেছে রাজধানীর আদাবরে খালার বাসা থেকে আকস্মিক উধাও হয়ে যাওয়া কিশোরী তিন বোনের।

কিশোরীদের খোঁজ পাবার পরে পরিবারের সাথে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীও।

এর আগে তিন কিশোরীর সন্ধান না পেয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন কিশোরীদের খালা। পুলিশকে তিনি ঐ কিশোরীদের আচরণ ও টিকটক আসক্তির কথা জানিয়ে উদ্বিগ্নতা প্রকাশ করেন।

অভিযোগের গুরুত্ব বিবেচনায় তিন কিশোরীর অবস্থান শনাক্তে মাঠে নামে পুলিশ ও র‌্যাবের একাধিক টিম।

বৃহস্পতিবার থেকে শুক্রবার টানা অভিযান চালিয়ে ঘুম হারাম হয় আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর। সম্ভাব্য সকল সুত্র ও তথ্য প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে চলে উদ্ধার অভিযান।

শেষ অবধি আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী জানলেন, খালার বাসা থেকে অভিমান করেই কাউকে কিছু না জানিয়ে যশোরে বাবার কাছে চলে গিয়েছে ঐ তিন বোন। এবং দিব্যি ভালোও আছে তারা!

শুক্রবার সন্ধ্যায় র‌্যাবের পক্ষ থেকে পাঠানো এক বার্তায় বলা হয়, ‘আদাবর থেকে নিখোঁজ তিন বোনের অবস্থান শনাক্ত করেছে র‌্যাব। তারা যশোরে অবস্থান করছে।’ পুলিশের পক্ষ থেকেও দাবি করা হয়, পুলিশ ওই তিন বোনের অবস্থান শনাক্ত করেছে। তারা যশোরে রয়েছে। উভয় সংস্থাই বলছে, তাদের ঢাকায় এনে শনিবার আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলন করে বিস্তারিত জানানো হবে।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে তিন বোন মোসাম্মৎ রোকেয়া (১৮), জয়নব আরা (১৭) ও ছোট বোন খাদিজা আরা (১৬) শেখেরটেক পিসিকালচার এলাকার খালার বাসা থেকে বের হয়। সারাদিনে তারা বাসায় না ফেরায় তাদের খালা সাজিদা নওরীন নানা আশঙ্কার কথা চিন্তা করে আদাবর থানায় জিডি করেন।

তিন বোন বাসা থেকে বের হওয়ার সময়ে তাদের বিভিন্ন শিক্ষা সনদ, নগদ টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে গেছে। তারা মারাত্মক রকমভাবে টিকটকে আসক্ত ছিল বলেও তাদের খালা জানিয়েছিলেন।

কিশোরীদের খালা সাজিদা নওরীন জানিয়েছিলেন, মা মারা যাবার পর বাবা বিয়ে করে আর খোঁজ নিতেননা ঐ তিনবোনের। এমনকি বাবার সাথে কোনপ্রকার যোগাযোগও ছিলোনা তাদের। এমন পরিস্থিতিতে তাদের খালা ভাবতেও পারেনি তিন বোন তাদের বাবার কাছে যেতে পারেন। উলটো নানা বিপদের আশঙ্কাই প্রকাশ করছিলেন তিনি।

ওই তিন বোনের মধ্যে রোকেয়া ঢাকার একটি কলেজে একাদশ শ্রেণির ছাত্রী। জয়নব ও খাদিজা এবার এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে। তারা একটি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার পর নিখোঁজের ঘটনা ঘটে ।

র‌্যাব ও পুলিশের কর্মকর্তারা বলছেন, পরিবারের তথ্য ছিল- তিন বোনই টিকটকে আসক্ত। তারা টিকটক চক্রের খপ্পরে পড়েছিল কি-না-সেই সন্দেহে দ্রুত তাদের অবস্থান শনাক্তের চেষ্টা চলে। তবে তিনজনের কেউই কোনো এন্ডরোয়েড ডিভাইস না নেওয়ায় অবস্থান শনাক্ত করতে বেগ পেতে হয়।

র‌্যাব-২ এর অপারেশন অফিসার ফজলুল হক বলেন, ওই তিন বোনের অবস্থান শনাক্ত করেছে র‌্যাব। তারা যশোরে তাদের বাবার কাছে রয়েছে। পারিবারিক কলহের কারনে তারা ঢাকাতে খালার বাসাতে থাকতো।

কিন্তু আকস্মিক সেদিন কাউকে কিছু না বলেই বাবার কাছে চলে গিয়েছিল তারা। শনিবার তাদের ঢাকায় ফিরিয়ে আনা হবে।

এদিকে পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তিন বোনকে যশোরের কোতয়ালী থানা এলাকা থেকে ঢাকার আদাবর থানা পুলিশ উদ্ধার করেছে। তিনজনই এখন কোতয়ালী থানা পুলিশের হেফাজতে রয়েছে। ​

পুলিশের মোহাম্মদপুর জোনের অতিরিক্ত উপ কমিশনার মৃত্যুঞ্জয় দে সজল বলেন, ওই তিন বোনকে শুক্রবার রাতের মধ্যেই ঢাকায় ফিরিয়ে আনার কার্যক্রম শুরু হয়েছে। তাদের উদ্ধারের বিষয়ে শনিবার সংবাদ সম্মেলন করে বিস্তারিত জানানো হবে।

পারিবারিক সূত্র জানায়, ওই তিন কন্যার মা তিন বছর আগে মারা যান। এরপর তাদের বাবা অন্যত্র বিয়ে করে গ্রামের বাড়ি যশোরে বসবাস করছেন। এ নিয়ে বাবার সঙ্গে দূরত্ব সৃষ্টি হলে তারা ঢাকায় খালাদের বাসায় থাকছিলেন।

আগের সংবাদ 

একসাথে রহস্যজনক ‘উধাও’ তিনকিশোরী! নেপথ্যে ‘টিকটক আসক্তি’!