• আজ বুধবার, ২৩ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ৮ ডিসেম্বর, ২০২১ ৷

নাঈমের হত্যাকারীর ফাঁসি চাইলেন মেয়র তাপস

tapost n23
❏ বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২৫, ২০২১ ফিচার

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- ১০ দফা দাবি আদায়ে দুপুর থেকেই ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মূল ফটক আটকে বিক্ষোভ করেছিল নটরডেম কলেজের শিক্ষার্থীরা।

পরে বিকেল সোয়া ৪টার দিকে নগর ভবনের মূল ফটকে এসে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। এ সময় তিনি শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দেন।

একইসঙ্গে তিনি শিক্ষার্থী নাঈমের হত্যাকারী গাড়িচালকের ফাঁসি দাবি করেন। তিনি বলেছেন, নাঈম আমার সন্তানতুল্য। আমি আমার সন্তানের খুনির ফাঁসি চাই।

মেয়রের আশ্বাসে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা নগর ভবনের মূল ফটক ছেড়ে চলে যায়। ফলে প্রায় আড়াই ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর নগর ভবনের সামনের রাস্তায় পুনরায় যান চলাচল শুরু হয়।

এ সময় শিক্ষার্থীরা ডিএসসিসি ময়লার গাড়ির ধাক্কায় মৃত্যু হওয়া নাঈম হাসানের নামে গুলিস্তান মোড়ে একটি ফুটওভার ব্রিজ করার দাবিও জানায়। দাবির পরিপ্রেক্ষিতে মেয়র তাপস শিক্ষার্থীর উদ্দেশে বলেন, ডিএসসিসির নিজস্ব অর্থায়নেই গুলিস্তান মোড়ে একটি ফুটওভার ব্রিজ করে দেওয়া হবে।

এর আগে ১০ দফা দাবি পূরণে ৪৮ ঘণ্টা সময় দেয় নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থীরা। এ সময়ের মধ্যে দাবি পূরণ না হলে ফের সড়কে নামার ঘোষণা দিয়েছেন তারা। দুপুর পৌনে ২টা নাগাদ তারা তাদের দাবি জানিয়ে গুলিস্তান ও মতিঝিলের সড়ক ছেড়ে চলে যান।

দুপুর সোয়া ২টার দিকে নগর ভবনের গেট আটকে তারা উই ওয়ান্ট জাস্টিস স্লোগান দিতে থাকে। এ সময় শিক্ষার্থীরা নগর ভবনের সামনের রাস্তা পুরোপুরি বন্ধ করে দেয়। এতে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

উল্লেখ্য, বুধবার (২৪ নভেম্বর) বেলা ১১টায় ডিএসসিসি ময়লার গাড়ির ধাক্কায় নাঈম হাসান (১৭) নামে নটরডেম কলেজের এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। তিনি কলেজের মানবিক শাখার ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী। ওই ঘটনার পর থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় বিক্ষোভ করে দুর্ঘটনায় জড়িত প্রকৃত আসামির বিচারের দাবি জানিয়ে আসছেন শিক্ষার্থীরা।