• আজ সোমবার, ১০ মাঘ, ১৪২৮ ৷ ২৪ জানুয়ারি, ২০২২ ৷

অনৈতিক কাজের চেষ্টা: মাদ্রাসা শিক্ষকের বিশেষ অঙ্গ কেটে দিলেন ছাত্র!

nandail n324
❏ শনিবার, ডিসেম্বর ৪, ২০২১ ঢাকা, দেশের খবর

কামরুজ্জামান মিন্টু, স্টাফ রিপোর্টার- ময়মনসিংহের নান্দাইলে ছাত্রের সাথে অনৈতিক কাজে বাঁধা দেওয়ার পরও তা না মানায় ক্ষিপ্ত হয়ে মাদ্রাসা শিক্ষকের বিশেষ অঙ্গ নেইল কাটার দিয়ে কেটে দিয়েছে ছাত্র নিজেই।

আহত মাদ্রাসা শিক্ষককে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং ছাত্রকে আটক করেছে পুলিশ।

শুক্রবার সময়ের কন্ঠস্বরকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন নান্দাইল মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. বাবলু রহমান খান।

এর আগে বুধবার রাতে উপজেলার বেতাগৈর ইউনিয়নের পলাশিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বুধবার রাতে উপজেলার খারুয়া ইউনিয়নের টাওয়াইল গ্রামে অবস্থিত এক মাদ্রাসার মাঠে ওয়াজ মাহফিল চলছিল। ওই মাহফিলে অংশ নেন মাদ্রাসাশিক্ষক মো. আতাবুর রহমান। একই মাহফিলে ওয়াজ শুনতে যায় একই মাদ্রাসার ১৬ বছর বয়সী আবাসিক ওই ছাত্র। সভা চলার সময় রাতের খাবারের জন্য পূর্বপরিচিত ছাত্রকে বাড়িতে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন শিক্ষক আতাবুর রহমান।

থাকা হেফাজতে থাকা আটক মাদ্রাসাছাত্র জানায়, দাওয়াত রক্ষার জন্য সে তার শিক্ষকের সঙ্গে বাড়ি যাচ্ছিল। পথিমধ্যে শিক্ষক আতাবুর রহমান তাকে কাছে টেনে নিয়ে শরীরের বিভিন্ন অংশে হাত দিতে থাকেন। একপর্যায়ে সে বাধা দিলে শিক্ষক তাকে জোরপূর্বক বলাৎকারে উদ্যত হন। এ সময় সে তার পাঞ্জাবির পকেটে থাকা নেইল কাটার বের করে শিক্ষকের বিশেষ অঙ্গে আঘাত করে ঘটনাস্থল থেকে চলে যেতে থাকে। শিক্ষক রক্তাক্ত অবস্থায় চিৎকার করলে লোকজন ছুটে এসে ছাত্রকে ধরে ফেলেন। পরে পুলিশ এসে তাকে (ছাত্র) থানায় নিয়ে যায়।

তবে, আহত শিক্ষক ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকায় তার সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

এ বিষয়ে নান্দাইল মডেল থানার নান্দাইল মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমান আকন্দ সময়ের কন্ঠস্বরকে বলেন, মাদ্রাসাছাত্রের বিরুদ্ধে আহত মাদ্রাসা শিক্ষকের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। মামলা হলে তাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে আদালতে পাঠানো হবে।