🕓 সংবাদ শিরোনাম

লালমনিরহাটে নকল বিল ভাউচারে স্কুলের টাকা আত্মসাৎ * সাতক্ষীরায় দুধের পরিমাণ বাড়িয়ে বিক্রি, ব্যবসায়ীকে দুই লাখ টাকা জরিমানা * রবীন্দ্রকাছারি বাড়িই হবে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সংস্কৃতি চর্চার ক্ষেত্র: সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী * বিএনপি বাড়াবাড়ি করলে ব্যবস্থা নেয়া হবে: তথ্যমন্ত্রী * ফরিদপুরে হাজিরা দিতে এসে আদালত প্রাঙ্গণে আসামীর মৃত্যু * ধান উৎপাদন বাড়াতে নানামুখী কার্যক্রম গ্রহণ করেছে সরকার * লাখাইয়ে বীজ ও সার বিতরণের উদ্বোধন * ২৬ শর্তে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি * ১০ টাকার টিকিট কেটে চোখ দেখালেন প্রধানমন্ত্রী * রসিক নির্বাচনে বিএনপির পর এবার সরে দাঁড়াল জামায়াত *

  • আজ মঙ্গলবার, ১৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ২৯ নভেম্বর, ২০২২ ৷

টাঙ্গাইলে ভোট চাইতে গিয়ে হামলার শিকার, পাঁচ নারীসহ আহত ১৮

tangail bhuapur
❏ রবিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০২১ ঢাকা, দেশের খবর

তোফাজ্জল, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি- চতুর্থ ধাপে অনুষ্ঠেয় টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার নিকরাইল ইউনিয়নে শনিবার (১১ ডিসেম্বর) দুপুরে ভোট চাইতে গিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী নৌকা প্রার্থীর কর্মীদের হামলায় উভয় পক্ষের পাঁচ নারীসহ অন্তত ১৮ ব্যক্তি আহত হয়েছেন।

আহতদের মধ্যে স্বতন্ত্র প্রার্থীর আনারস প্রতীকের সাত কর্মীকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের মধ্যে দুজনকে ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্স ও বিভিন্ন বেসরকারি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহতদের মধ্যে রয়েছেন- পলশিয়া গ্রামের আমিনা (৩৫), মোজলেফা বেগম (৩৫), আয়েশা আক্তার (৫০), সুখীতন বেগম (৭০), আব্দুর রাজ্জাক (৬০), সিরাজকান্দি গ্রামের রফিকুল (৫০) ও পুনর্বাসন এলাকার মাসুদ (২০)। তাদের মধ্যে আব্দুর রাজ্জাককে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। অন্যরা টাঙ্গাইল ও ভূঞাপুরের বিভিন্ন বেসরকারি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, নিকরাইল ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী আনারস প্রতীকের ১৮-২০ জন নারী কর্মী দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে শনিবার দুপুরে ওই ইউনিয়নের পলশিয়া গ্রামে যায়। এ খবর পেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী নৌকা প্রতীকের ৪০-৪৫ জন কর্মী মোটরসাইকেলযোগে হাতুড়ি নিয়ে তাদেরকে ঘেরাও করে। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়।

এক পর্যায়ে নৌকা প্রতীকের কর্মী মমিন সরকার, মোনায়েম সরকার, লিমন সরকার, নয়ন সরকার, সাদ্দাম হোসেন আকন্দ ও সাইফুল ইসলাম আকন্দের নেতৃত্বে অন্যরা হাতুড়ি ও লাঠি নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থীর নারী কর্মীদের উপর হামলা চালায়। ওই হামলা থামাতে গিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীকের কয়েকজন সমর্থক আহত হন।

এ বিষয়ে নিকরাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আব্দুল মতিন সরকার জানান, তার কর্মীরা সিরাজকান্দি এলাকায় নৌকার জন্য ভোট চাইতে গেলে প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীকের কর্মীদের হামলার শিকার হয়ে আনোয়ার (৩২) ও স্থানীয় ইউসুফের স্ত্রী ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছেন।

তিনি আরও জানান, সিরাজকান্দি ও পলশিয়া এলাকায় তার নৌকা প্রতীকের কর্মীদের বাড়ি থেকে বের হতে দিচ্ছেনা। তার কর্মী ইউসুফের বাড়িতে ও মনির হোসেনের দোকানে হামলা চালিয়েছে। স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মীরা ওই এলাকায় দা, লাঠি ও ফালা নিয়ে মহড়া দিচ্ছে।

নিরাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও আনারস প্রতীকের বিদ্রোহী প্রার্থী মাসুদুল হক মাসুদ জানান, শুক্রবার বিকালে পলশিয়া এলাকার নির্বাচনী জনসভায় নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মতিন সরকার উস্কানীমূলক বক্তব্য দিয়ে তার কর্মীদের ক্ষেপিয়ে তুলেছেন। তারই ধারাবাহিকতায় আনারস প্রতীকের কর্মীরা ভোট চাইতে গেলে নৌকা প্রতীকের কর্মীরা হাতুড়ি ও লাঠি নিয়ে হামলা করে তার নারী-পুরুষ কর্মীদের আহত করেছেন।

ভূঞাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল ওহাব জানান, শনিবার দুপুরে পলশিয়া ও সিরাজকান্দি এলাকায় প্রতিদ্বন্দ্বী দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছিল। এখন পরিস্থিতি সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এখনও পর্যন্ত কোন পক্ষই থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়নি। লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।