🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ শুক্রবার, ১৪ মাঘ, ১৪২৮ ৷ ২৮ জানুয়ারি, ২০২২ ৷

পাবনায় গুলিতে চেয়ারম্যান প্রার্থী নিহতের ঘটনায় থানায় মামলা

pabna n23
❏ রবিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০২১ দেশের খবর, ফিচার, রাজশাহী

আব্দুল লতিফ রঞ্জু, পাবনা প্রতিনিধি: পাবনা সদর উপজেলার ভাঁড়ারা ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে গোলাগুলিতে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ইয়াসিন আলম (৪০) নিহতের ঘটনায় মামলা দায়ের হয়েছে।

শনিবার (১১ ডিসেম্বর) রাতে নিহতের বাবা মোজাম্মেল হক মোজা বাদী হয়ে পাবনা সদর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গুলিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী নিহতের ঘটনায় তার বাবা মোজাম্মেল খান মোজা বাদী হয়ে ৩৪ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ৪০/৫০ জনের নামে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

তিনি আরো জানান, পুলিশ ঘটনা তদন্তে কাজ করছে। তদন্তের সার্থে আসামীদের নাম বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন তিনি। এর আগে ঘটনার দিনই অস্ত্রসহ দুইজনকে আটক করা হয়েছে। আটক দুইজনকে কারাগারে পাঠানো হবে। মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে রোববার সকালে স্বজনদের হস্তান্তর করা হয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, শনিবার সকালে ভাড়ারা ইউনিয়নের চারা বটতলার ইন্দারা মোড় কালুরপাড়া এলাকায় সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আবু সাঈদ খান ও তার লোকজন এবং ভাড়ারা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য, বিদ্রোহী প্রার্থী ঘোড়া প্রতীকের সুলতান মাহমুদের লোকজনও বের হয়। বিদ্রোহী প্রার্থীর সাথে আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থী সুলতান মাহমুদের আপন চাচাতো ভাই আনারস প্রতীকের ইয়াছিন আলম জড়ো হলে উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটে।

এ সময় উভয়পক্ষের ১২ জন গুলিবিদ্ধসহ কমপক্ষে ২৫ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে কয়েক জনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজের নেয়ার সময়ে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ইয়াছিন আলম নাটোরের বনপাড়ায় মারা যান। এ ঘটনায় নির্বাচন কমিশন থেকে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন স্থগিতও করা হয়েছে।