🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ শুক্রবার, ১৪ মাঘ, ১৪২৮ ৷ ২৮ জানুয়ারি, ২০২২ ৷

অবশেষে বিকালের ফ্লাইটে ঢাকায় ফিরছেন মুরাদ

murad n23
❏ রবিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০২১ ফিচার

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- কানাডায় প্রবেশে ব্যর্থ হওয়ার পর ভিসা না থাকায় সংযুক্ত আরব আমিরাতেও যেতে পারেননি তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রীর পদ হারানো ডা. মুরাদ হাসান। ফলে দেশেই ফিরতে হচ্ছে এই সংসদ সদস্যকে।

দুবাই বিমানবন্দর হয়ে রোববার বিকেলে দেশে ফেরার কথা রয়েছে তার। এমিরেটস এয়ারলাইনসের ইকে ৫৮৬ ফ্লাইটে তিনি ঢাকা ফিরছেন বলে নিশ্চিত করেছে সরকারের ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র।

মুরাদকে বহনকারী ফ্লাইটটি রোববার (১২ ডিসেম্বর) বিকেল ৪টা ৫৫ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের কথা রয়েছে।

শুরুতে এমিরেটসের অন্য আরেকটি ফ্লাইটে (ইকে ০৫৮২) ঢাকা ফেরার প্রস্তুতি নিয়েছিলেন সমালোচনার মুখে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে পদত্যাগে বাধ্য হওয়া মুরাদ হাসান। ওই ফ্লাইটে এলে সকাল ৮টা ২০ মিনিটে তার ঢাকা পৌঁছানোর কথা ছিল। কিন্তু শেষ মুহূর্তে কেন তিনি ফ্লাইট পরিবর্তন করেছেন, সেই কারণ অবশ্য জানা যায়নি।

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাতে ঢোকার চেষ্টা প্রস্তুতির কথা শনিবার নিশ্চিত করেছে একটি সূত্র, কিন্তু ভিসা না থাকায় দুবাইয়ে ইমিগ্রেশন পেরিয়ে দেশটিতে প্রবেশ করতে ব্যর্থ হন মুরাদ।

এদিকে মুরাদ হাসান যাতে দেশে ফিরতে না পারেন, এজন্য বিমানবন্দর সড়কে বিক্ষোভ করেছেন কয়েকজন। বিমানবন্দর এলাকার মূল ফটকের বাইরের সড়কে প্রায় ৩০-৪০ জন নিজেদের আওয়ামী লীগের কর্মী দাবি করে মুরাদকে রুখে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

বিক্ষোভে অংশ নেওয়া বিএম জহিরুল নামে একজন বলেন, মুরাদ বেশ কিছুদিন বিকৃত কথাবার্তা বলছিল। ইসলাম ও নারীবিদ্বেষী ছিল। সে প্রতিনিয়ত দাবি করতো, তার এসব বেফাঁস কথাগুলোর বিষয় নাকি প্রধানমন্ত্রীও অবগত আছেন। তার এই মন্তব্য নারী সমাজকে অপমান করেছে। আওয়ামী লীগ ও শেখ হাসিনাকে বিব্রত করেছে। আমরা চাই উনার সম্পদ বাজেয়াপ্ত করা হোক। তাকে দেশের ভেতরে ঢুকতে না দেওয়া হোক।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিমানবন্দর থানার একজন এসআই জানান, কিছু লোক প্ল্যাকার্ড নিয়ে দাঁড়িয়েছিল। তারা ১১টার দিকে চলে যায়। তারা বলেছে, বিকেলে আবার আসবে।

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নাতনিকে নিয়ে মুরাদ হাসানের মন্তব্যের ব্যাপারে সমালোচনার মধ্যেই এক চিত্রনায়িকাকে নিয়ে একটি টেলিফোন আলাপ ফাঁস হয় গত রোববার। তখন তীব্র নিন্দার মুখে তিনি ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম চলে যান।

এরপর গত সোমবার রাত প্রধানমন্ত্রী তাকে প্রতিমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগের নির্দেশ দেন। পরদিন মঙ্গলবার তিনি পদত্যাগ পত্র পাঠান। পদত্যাগের পর মুরাদ হাসান সামাজিক মাধ্যমে একটি পোস্ট দিয়েছিলেন এবং তাতে তিনি লিখেছিলেন, যদি তার কোনো ভুল হয় তাহলে যেন ক্ষমা করা হয়।

এরপর বৃহস্পতিবার রাতে কানাডার উদ্দেশে ঢাকা ছাড়ের মুরাদ। তবে টরন্টোর পিয়ারসন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর দিয়ে সেখানে ঢুকতে ব্যর্থ হন তিনি। ফলে তাকে আবার দুবাই ফিরে আসতে হয়।