🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ শুক্রবার, ১৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ২ ডিসেম্বর, ২০২২ ৷

মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী শক্তিরা স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতেও ষড়যন্ত্র করছে: তথ্যমন্ত্রী

hasan 7
❏ মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ১৪, ২০২১ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেছেন, “সাম্প্রতিক কিছু ঘটনাপ্রবাহ প্রমাণ করে, যে আন্তর্জাতিক শক্তি বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতা করেছে তারাই আমাদের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর বছরে নানা ধরণের ষড়যন্ত্র করছে।”

মঙ্গলবার (১৪ ডিসেম্বর) সকালে বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে রাজধানীর রায়েরবাজার বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, “১৯৭১ সালে আমাদের বিজয়ের পূর্বমুহুর্তে পাকিস্তানি সামরিক বাহিনীর দোসর আল বদর, আল শামস, রাজাকাররা যখন বুঝতে পেরেছে তাদের পরাজয় নিশ্চিত, তখন তারা জাতিকে পঙ্গু করার উদ্দেশ্যে আমাদের বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করেছে। শুধু ঢাকায় নয়, সারা দেশের জেলা শহর সহ সব জায়গা থেকে ধরে ধরে হত্যা করা হয়েছে। কয়েক হাজার বুদ্ধিজীবীকে হত্যা করা হয়েছে।”

তিনি বলেন সরকার ক্ষমতায় আসার পর স্বাধীনতাবিরোধী ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার কাজ শুরু করেছেন। ইতোমধ্যে বেশ কয়েকজনের ফাঁসি কার্যকর হয়েছে। কারাবন্দি আছেন অনেকে। এছাড়া স্বাধীনতায় বিরোধীতা করা অনেকে বিদেশে পালিয়ে আছেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ১৯৭১ সালে রাজাকার-আলবদররা মিলে দেশের বুদ্ধিজীবীদের নির্মমভাবে হত্যা করেছে। যেসব দেশ বাংলাদেশের স্বাধীনতা চাইনি তাদের সঙ্গে ষড়যন্ত্র করে সূর্যসন্তানদের হত্যা করেছে রাজাকার-আলবদররা। তারাই বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে।

হাছান মাহমুদ বলেন, মুক্তিযুদ্ধবিরোধী ও বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের বিচার হয়েছে। এখনো যারা দেশের বাইরে পালিয়ে রয়েছেন তাদের ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চলছে। সেখানে পালিয়ে রয়েছে সেসব রাষ্ট্র থেকে সহযোগিতা না করায় তাদের ফিরিয়ে আনা সম্ভব হচ্ছে না। তবে সরকারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

শহীদদের পূর্ণাঙ্গ তালিকা তৈরির কাজ চলছে উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, ১৯৭১ সালে রাজাকার-আলবদরদের হাতে নিহত হওয়া সব শহীদদের একটি খসড়া তালিকা তৈরি করা হয়েছে। বর্তমানে পূর্ণাঙ্গ তালিকা তৈরির কাজ চলছে।