🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ শুক্রবার, ১৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ২ ডিসেম্বর, ২০২২ ৷

মালয়েশিয়ায় অতি বৃষ্টিপাতে বন্যা, সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি

male n24
❏ শনিবার, ডিসেম্বর ১৮, ২০২১ আন্তর্জাতিক

আশরাফুল মামুন, মালয়েশিয়া: মালয়েশিয়ায় প্রবল বৃষ্টির কারণে সৃষ্ট বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। দুই, দিনের টানা বৃষ্টিতে মালয়েশিয়ার পূর্ব উপকূল, মধ্য ও উত্তরাঞ্চলের বেশ কয়েকটি নিম্নাঞ্চল এলাকায় বন্যা সতর্কতা জারি করেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

দেশটির বিভিন্ন জায়গায় যোগাযোগব্যবস্থা ভেঙে পড়ায় অচল হয়ে পড়েছে জনজীবন। কিছু কিছু জায়গায় সড়ক পানিতে তলিয়ে গেছে। বন্যার পানিতে ভেসে গেছে সড়কে থাকা কিছু গাড়ি। রাজধানী কুয়ালালামপুরসহ এর আশেপাশের বেশ কিছু এলাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। এতে জনগণের স্বাভাবিক চলাফেরা ব্যাহত হচ্ছে।

শনিবার (১৮ ডিসেম্বর) মালয়েশিয়ার আবহাওয়া বিভাগ সৃষ্ট বন্যা পরিস্থিতিতে মালয়েশিয়ার পূর্ব উপকূল, মধ্য ও উত্তরাঞ্চলের বেশ কয়েকটি নিম্নাঞ্চলের জন্য বন্যা সতর্কতা জারি করেছে।

শুক্রবার সকাল থেকে অবিরাম ভারী বর্ষণের ফলে সেলাঙ্গরের শাহ আলম ও ক্লাংয়ের বেশ কিছু আবাসন এলাকা প্লাবিত হয়েছে। রাত ৯টার দিকে শাহ আলম এলাকায় বন্যার পানি বাড়তে শুরু করে এবং তামান শ্রী মুদা, কোটা কেমুনিং এবং এমনকি কেসাস হাইওয়েতে ক্লাংয়ের দিকে বেশ কয়েকটি বাড়িতে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। সবশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত আবাসিক এলাকায় পানির উচ্চতা হাঁটুর ওপরে ছিল।

আল ইসলাহ মসজিদ, আল-উবুদিয়া মসজিদ, এসকে তেলোক গং, এসকে জোহান সেটিয়া, বালাই এমপিকেকে এসজি পিনাং, এসএমকে পুলাউ ইন্দাহ, এসআরএ পুলাউ ইন্দাহ, বালাই এমপিকেকে পেরিগি নানাস, বালাই এমপিকেকে বুকিত নাগা, এসকে এসজি বিজাই, এসআরএ পাদাং জাওয়া ক্লাং, এসকে জালান কেবুন, এমপিকেকে কমিউনিটি হল কেজি লোম্বং, এসআরএ এসজি সেরডাং, দেওয়ান পিপলস হল, এসআরএ পেকান কাপার, এসআরএ কেজি ডেলেক, কেজি ডেলেক এমপিকেকে হলো প্লাবিত হয়েছে।

এদিকে, টানা বৃষ্টির কারণে মালয়েশিয়ার নেগ্রি সেম্বিলান রাজ্যের ২৯টি এলাকার মোট ২৭৪ ভুক্তভোগীকে পাঁচটি অস্থায়ী আশ্রয়কেন্দ্রে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। স্থানীয় ফায়ার অ্যান্ড রেসকিউ সার্ভিসেস বিভাগের সহকারী পরিচালক অপারেশন আহমেদ মুখলিস মোখতার জানান, শুক্রবার (১৭ ডিসেম্বর) রাত ১০টা থেকে একটানা বৃষ্টির কারণে তাদের বাড়িঘর প্লাবিত হওয়ার পরে ১১২ বাসিন্দাকে স্থানীয় লুকুটের কেজি পায়া কমিউনিটি হলে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

এছাড়া শনিবার সিলিয়াউ হিলিরের একটি সুরাউতে ৮৭ জন, কেরু হিলিরের অন্য একটি সুরাউতে ৪২ জন এবং তেলুক কেমাং-এর কেজি পারমাটাং পাসির কমিউনিটি হলে ২৯ জনকে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

এদিকে ক্ষতিগ্রস্তদের “খাদ্য এবং অন্যান্য প্রয়েজনীয় জিনিসের সাহায্য করতে জরুরি ভিওিতে সরকারের হস্তক্ষেপ চেয়েছেন ক্লাং এমপি চার্লস সান্তিয়াগো।

একটি ফেসবুক পোস্টে, আলোর গাজা পুলিশ বলেছে, অবিরাম বৃষ্টির কারণে কাছাকাছি একটি নদী শহরে প্লাবিত হয়েছে।

সরকারি সংবাদ সংস্থা বার্নামা জানিয়েছে, মালয়েশিয়ার আবহাওয়া পরিষেবা বিভাগ কেলান্তান এবং পাহাং-এ অবিরাম ভারী বৃষ্টিপাতের কারনে আবহাওয়া অধিদপ্তর সতর্কতা জারি করেছে।

কেলান্তানের গুয়া মুসাং অঞ্চলটি সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হবে। পাহাং, ক্যামেরন হাইল্যান্ডস, লিপিস, জেরান্টুট, মারান এবং কুয়ানতানেও ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

কেদাহ, পেনাং, কেলান্তান, তেরেঙ্গানু, পাহাং, সেলাঙ্গর, কুয়ালালামপুর, পুত্রাজায়া, নেগেরি সেম্বিলান এবং মেলাকা-এর জন্য একটি বৃষ্টি ঝড়ের সতর্কতা জারি করেছে।

বার্নামা আরও রিপোর্ট করেছে যে আশেপাশের এলাকায় গুদাম এবং কন্টেইনার ডিপোতে পোর্ট ক্ল্যাং কর্তৃপক্ষের কার্যক্রম বিরূপভাবে প্রভাবিত হয়েছে এবং অ্যাক্সেস রাস্তার ক্ষতির কারণে আরও খারাপ হয়েছে।

বন্দর কর্তৃপক্ষ টার্মিনাল অপারেটর, ফরওয়ার্ডিং এজেন্ট, হোলিয়ার কোম্পানি এবং পণ্য ক্লিয়ারিংয়ের দায়িত্বে থাকা সরকারী সংস্থাগুলিকে একসাথে কাজ করার জন্য এবং পণ্যগুলি তাদের নির্ধারিত গন্তব্যে সময়মতো পৌঁছানো নিশ্চিত করার আহ্বান জানিয়েছে।