• আজ বুধবার, ১২ মাঘ, ১৪২৮ ৷ ২৬ জানুয়ারি, ২০২২ ৷

চালক ঘুমাচ্ছিল, বাস চালাচ্ছিল হেলপার: এনায়েত উল্যাহ

bus n23
❏ বুধবার, ডিসেম্বর ২৯, ২০২১ ঢাকা, দেশের খবর

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- রাজধানীর খিলক্ষেতে হোটেল লা মেরিডিয়ানের সামনে দ্রুতগতিতে ওভারটেক করতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে এনা পরিবহনের একটি বাস আইল্যান্ড ভেঙে পাশের লেনের মাইক্রোবাসের ওপরে উঠে যাওয়ার ঘটনায় বাসচালককে আটক করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

মঙ্গলবার (২৮ ডিসেম্বর) মহাখালী বাস টার্মিনাল থেকে তাকে আটক করা হয়। আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‍্যাব-১ এর অধিনায়ক (সিও) লে. কর্নেল আব্দুল্লাহ আল মোমেন।

তিনি বলেন, খিলক্ষেতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে এনা পরিবহনের একটি বাস আইল্যান্ড ভেঙে পাশের লেনের মাইক্রোবাসের ওপরে উঠে যাওয়ার ঘটনায় বাসচালককে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জানতে চাইলে এনা পরিবহনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক খন্দকার এনায়েত উল্যাহ সংবাদমাধ্যমকে জানান, এ ঘটনার পর চালকের সঙ্গে তার কথা হয়নি। টার্মিনালে যারা ছিল, তাদের কাছ থেকে ঘটনা শোনার পর ধারণা করছেন, হয়তো চালক ঘুমাচ্ছিলেন। বাসটি চালাচ্ছিলেন হেলপার শাওন।

সড়ক বিভাজক ভেঙে সড়কের বিপরীত লেনে বাস চলে যাওয়ার ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

এ বিষয়ে খন্দকার এনায়েত জানান, বাসটি তার কোম্পানির অধীনে চললেও তিনি এর মালিক নন। তারপরও সব দায়দায়িত্ব নেবেন। ক্ষতিগ্রস্ত মাইক্রোবাসকে ক্ষতিপূরণ দিতে রাজি আছেন।

খন্দকার এনায়েত সড়ক পরিহন মালিক সমিতির মহাসচিব। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যবহারকারীরা অভিযোগ করছেন, খন্দকার এনায়েতের ক্ষমতার জোরেই তার কোম্পানির বাসগুলো সড়কে বেপরোয়া চলে।

এ অভিযোগের জবাবে তিনি বলেন, ক্ষমতার জোর থাকলে তো মামলা হতো না। চালক আটক হতো না।

তিনি আরও জানান, বাসটি আগের রাতে সিলেট থেকে এসেছে। চালক সারারাত বাস চালিয়েছে। টার্মিনালের লোকজনের কাছে শুনেছেন, চালক সকালে হয়তো বাসায় ঘুমাতে গিয়েছিলেন। চাবি পেয়ে হেলপার শাওন খালি বাস নিয়ে টার্মিনাল থেকে বের হয়। দুর্ঘটনার সময় বাসে যাত্রী ছিল না। শাওন ঘটনার পর থেকে পলাতক। তাই আসলে কী ঘটেছিল তা এখনও জানতে পারেননি।

এদিকে এ ঘটনায় খিলক্ষেত থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে উপপরিদর্শক সাবরিনা মৌরী জানিয়েছেন। তাঁর দেওয়া তথ্যমতে, মাইক্রোবাসের মালিক শাহাদৎ হোসেন। মাইক্রোটি ঢাকা থেকে নরসিংদী যাচ্ছিল। দুর্ঘটনার সময় মাইক্রোবাসে চারজন যাত্রী ছিলেন।