• আজ সোমবার, ৩ মাঘ, ১৪২৮ ৷ ১৭ জানুয়ারি, ২০২২ ৷

খালেদাকে নিয়ে আইনের ‘বিকৃত’ ব্যাখ্যা দিচ্ছেন আইনমন্ত্রী: রিজভী

rijvi n24m
❏ বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ৩০, ২০২১ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বিদেশ পাঠানোর বিষয়ে আইনমন্ত্রী বিদ্যমান আইনের ‘বিকৃত’ ব্যাখ্যা দিচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়ার পাকস্থলী থেকে রক্তক্ষরণ হচ্ছে, তার ডাক্তাররা বলেছেন, তার জীবন অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। যেকোনও সময়ে একটা বড় বিপদ ঘটে যাবে।”

বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব এই মন্তব্য করেন। জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মহানগর দক্ষিণের উদ্যোগে একাদশ নির্বাচনের ভোট কারচুপির তৃতীয় বর্ষপূর্তি উপলক্ষে এই মানববন্ধন হয়।

মানববন্ধনের প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, দেশের বরণ্যে আইনজীবীরা বলছেন যে, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক আইনের অপব্যাখ্যা দিচ্ছেন। আইনমন্ত্রী গতকাল বলে দিয়েছেন যে, আইনে বিদেশে যাওয়ার সুযোগ নাই। আইনমন্ত্রী আইনের বিকৃত ব্যাখ্যা দিচ্ছেন।”

খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার কথা তুলে ধরে রিজভী বলেন, ‘যেকোনও সময়ে একটা বড় বিপদ ঘটে যাবে। তারপরেও এতো পাষাণ, এতো পাথর, এতো নির্দয় এই প্রধানমন্ত্রী আর তার আইনমন্ত্রী।”

রিজভী বলেন, ‘আইনমন্ত্রী এটাতো আপনার নিজের কথা না। আইনের বিধানে আছে। কিন্তু শেখ হাসিনা আপনাকে যা শিখিয়ে দিয়েছেন আপনি সেই কথাই বলছেন।’

তিনি বলেন, ‘আজকে কেন এ দিবসটি পালন করতে হচ্ছে। তিন/চার বছর আগেতো পালন করিনি। আওয়ামী লীগ প্রতি মুহূর্তে উন্নয়নের কথা বলে। তারা বলে বেড়ায় উড়াল সেতু, ফ্লাইওভার কত কথা। কিন্তু আসল উন্নয়নের কথা বলে না। তারা জোর করে ১২ বছর ক্ষমতায় আছে। এ ১১/১২ বছরে ১১ লাখ কোটি টাকা পাচার হয়েছে। একজন এমপি পাপুল তিনি মানব পাচার করেন। আর একজন মন্ত্রী টাকলা মুরাদ তিনি অশ্রাব্য কথা বলেন। আর আমরা দেখলাম শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ৩০ ডিসেম্বর দিনের ভোট রাতে পাচার হয়ে গেল। ’

রিজভী বলেন, ‘গোটা জাতি আজকে তাদের ভোট চোর বলে স্লোগান দিচ্ছে। তারপরও ওরা গলাবাজি করে। যুগ যুগ ধরে প্রচলিত চোরের মায়ের বড় গলা। আজকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের অনেক বর্তমান ও সাবেক কর্মকর্তার নামে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে, ব্যাংকে তাদের টাকা ফ্রিজ করেছে। বাংলাদেশের অনেক টাকা ডলারে পরিণত করে মার্কিন ফেডারেল রিজার্ভে জমা আছে, সেটা ফেরত নিতে বলেছে আমেরিকা। ধিক্কার জানিয়েছে। তারপরও প্রধানমন্ত্রী তাদের গালাগালি করছেন। ’

প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রশ্ন রেখে বিএনপির এ নেতা বলেন, ‘আপনার দেশে কী গুম হয় না? তাহলে ইলিয়াস আলী কোথায়? আপনার দেশে বন্দুকযুদ্ধে মারা যায় না? তাহলে ছাত্র নেতা জনি কোথায়? প্রধানমন্ত্রী আপনি অন্যদেশকে গালাগালি করেন। আপনার নিজের দেশে, জনপদের পর জনপদ, রাস্তাঘাট, ফুটপাতের আলপনা শুধু রক্তের আলপনা, শুধু রক্তের ছাপ। আর আপনি বড় বড় কথা বলেন। ’

রিজভী বলেন, ‘আজকে মরে যাওয়ার পর লাশেরও কোনো গ্যারান্টি নেই। আপনারা জানেন এ ৩০ ডিসেম্বরের যে প্রহসনের নির্বাচন, নিশিরাতের নির্বাচন, সেই নির্বাচনের আগে মারা যাওয়া নেতার লাশের বিরুদ্ধে তারা মামলা দিয়েছিল। হজ করতে গেছে তার নামে মামলা দিয়েছিল। প্যরালাইসিস রোগীর নামে মামলা দিয়েছে। অর্থাৎ নিশিরাতের ভোট করার প্রস্তুতি হিসেবে এসব গায়েবি মামলা, লাশের বিরুদ্ধে মামলা, এ মামলাগুলো তারা করেছে। ’