• আজ মঙ্গলবার, ৪ মাঘ, ১৪২৮ ৷ ১৮ জানুয়ারি, ২০২২ ৷

আন্দোলনের মধ্যে দিয়েই খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবো: মির্জা ফখরুল

fokrul n24m
❏ শনিবার, জানুয়ারী ১, ২০২২ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে সুচিকিৎসার দাবিতে আন্দোলন আরো বেগবান হবে বলে মন্তব্য করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শনিবার (১ জানুয়ারি) রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের কবরে শ্রদ্ধা জানানোর পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন। এর আগে ছাত্রদলের ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সংগঠনটির নেতাকর্মীদেরকে নিয়ে জিয়াউর রহমানের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান মির্জা ফখরুল।

খালেদা জিয়ার মুক্তি ও চিকিৎসায় বিএনপির পদক্ষেপ কি হবে— এই প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আপনারা দেখছেন— আমরা আন্দোলন করছি। এই আন্দোলন আরো বেগবান হবে। আর নিঃসন্দেহে সেই আন্দোলনের মধ্যে দিয়েই আমরা খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবো।’

নির্বাচন কমিশন গঠনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে রাজনৈতিক দলগুলোর সংলাপকে ‘অর্থহীন’ অ্যাখায়িত করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমরা তো এই সংলাপকে অর্থহীন মনে করছি। আমরা মনে করি, বর্তমান যে রাজনৈতিক সংকট, সেটা নির্বাচন কমিশন গঠনের সংকট নয়, আইন তৈরি করারও সংকট নয়। নির্বাচনকালীন সময়ে কোন ধরনের সরকার থাকবে— সেটাই প্রধান সংকট।’

তিনি বলেন, ‘যদি আওয়ামী লীগ সরকারে থাকে তাহলে তো এই নির্বাচনের কোন মূল্যই হতে পারে না এবং কোনো অর্থই হতে পারে না। আমরা যেটা বলেছি— অবশ্যই নির্বাচনকালীন সময়ে একটা নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার থাকতে হবে, যারা নিরপেক্ষভাবে একটা ইসি গঠন করবে এবং তাদের পরিচালনায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।’

এর জন্য বিএনপি কোনো প্রস্তাব দেবে কি-না জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা তো প্রস্তাব দিয়েই রেখেছি। আমাদের প্রস্তাব তো সবার কাছে এবং প্রকাশ্য জনগণের কাছে ওপেন আছে।’

দেশবাসীকে ইংরেজি নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘নববর্ষে জাতীয়তাবাদী দল, জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।

‘আমরা প্রত্যাশা করি এই নববর্ষে জনগণ মুক্ত হবে, গণতন্ত্র মুক্ত হবে, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া মুক্তি পাবেন এবং দেশে অবশ্যই আমরা একটা জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হবো।’

ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে মির্জা ফখরুল এই অঙ্গসংগঠনের প্রতি প্রত্যাশা জানিয়ে বলেন, ‘বাংলাদেশের গণতন্ত্রের অতন্ত্র ও আপোষহীন নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া বন্দি অবস্থায় অত্যন্ত অসুস্থ অবস্থায় জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে রয়েছেন। সেই সময় ছাত্রদলের নেতারা আজকে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ করতে এসেছেন। পুষ্পার্ঘ অর্পণ ও মোনাজাত শেষে নেতাকর্মীরা শপথ নিয়েছেন। দেশনেত্রীকে মুক্তি এবং বিদেশে নিয়ে সুচিকিৎসার আন্দোলন আরও বেগবান করবে এবং ২০২২ সালে তারা সফল হবে।’

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে এত অল্পসংখ্যক নেতাকর্মীর প্রসঙ্গে ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল বলেন, ‘আজ ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। এ দিনটি উপলক্ষে সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের মাজারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করার অনুমতি চাওয়া হলে প্রশাসন থেকে মাত্র ৪০ জন নেতাকর্মী আসার অনুমতি দেয়।

‘বিএনপির প্রতিষ্ঠাতার মাজার, এখানে আমাদের শ্রদ্ধার জায়গা, ভালোবাসার জায়গা। এ জায়গার সঙ্গে আমাদের আবেগ জড়িয়ে রয়েছে। আমরা চাইনি এখানে কোনো বিশৃঙ্খলা হোক। এজন্য প্রশাসনের বেধে দেয়া নিয়মের মধ্যেই থেকেছি।’