• আজ শুক্রবার, ৭ মাঘ, ১৪২৮ ৷ ২১ জানুয়ারি, ২০২২ ৷

নির্বাচনের ৬দিন পরে কেন্দ্রে পাওয়া গেল ব্যালট বাক্স

vote 74
❏ শনিবার, জানুয়ারী ১, ২০২২ ঢাকা, দেশের খবর

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি- গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলায় ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠানের ৬দিন পরে কেন্দ্রে পাওয়া গেল ব্যালট বাক্স। খবর পেয়ে ওই কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা প্রিজাইডিং অফিসার বাক্সটি নিতে আসলে উত্তেজিত জনতা তাকে মারধর করে। পরবর্তীতে কোটালীপাড়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রিজাইডিং অফিসারকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে।

আজ শনিবার (১ জানুয়ারি) উপজেলার কান্দি ইউনিয়নে ৬নং ওয়ার্ডের ভোট কেন্দ্র কাচারীভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

জানাগেছে, গত ২৬ ডিসেম্বর কোটালীপাড়া উপজেলার কান্দি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনের ৬দিন পর প্রধান শিক্ষক চিন্ময় বসু বিদ্যালয়টির অফিস কক্ষে খুলে ব্যালট বাক্সটি দেখতে পেয়ে স্থানীয়দের জানালে পরাজিত মেম্বার প্রার্থীদের লোকজন বিদ্যালয় চত্ত্বরে এসে জড়ো হয়।

এদিকে এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী তুষার মধু বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তাই নির্বাচনের দিনে শুধুমাত্র মেম্বার পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনের দিন ৬নং ওয়ার্ডের কাচারীভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রিজাইডিং অফিসার ছিলেন উপজেলার কাজী মন্টু কলেজের প্রভাষক প্রভাষ চন্দ্র মন্ডল।

এই নির্বাচনে ৬নং ওয়ার্ডে সাধারণ মেম্বার পদে ৫জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এদের মধ্যে নুরুল হক হাওলাদার ৪৬৯ ভোট পেয়ে মেম্বার নির্বাচিত হয়েছেন। অপরদিকে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি মোঃ ফারুক বেপারী পেয়েছেন ৪০৯ ভোট।

মোঃ ফারুক বেপারী বলেন, প্রিজাইডিং অফিসার প্রভাষ চন্দ্র মন্ডল আমার প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী নুরুল হক হাওলাদারের কাজ থেকে টাকা খেয়ে আমাকে পরাজিত করেছেন। আমি এই ওয়ার্ডে পুনরায় ভোট গ্রহণের দাবি জানাচ্ছি।

এ ঘটনায় প্রিজাইডিং অফিসার প্রভাষ চন্দ্র মন্ডল কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, আমি কারো কাছে প্রভাবিত না হয়ে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ করেছি। এই ভোটে নুরুল হক হাওলাদার মেম্বার নির্বাচিত হয়েছেন। আমি ভোট কেন্দ্রে ৬টি ব্যালট বাক্স এনেছিলাম। ভোট গণনা শেষে চলে যাওয়ার সময় বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে একটি বাক্স ভুলে থেকে যায়। এই বাক্সটি আজকে নিতে আসলে পরাজিত মেম্বারদের লোকজন আমাকে মারধর করেন।

জয়ী মেম্বার প্রার্থী নুরুল হক হাওলাদার বলেন, গত ২৬ ডিসেম্বর কান্দি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কাচারীভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ ভোটে আমি জয়লাভ করেছি। আমি টাকা পয়সা দিয়ে কাউকে প্রভাবিত করিনি।

কোটালীপাড়া থানার এসআই আব্দুল করিম বলেন, কাচারীভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রিজাইডিং অফিসার প্রভাষ চন্দ্র মন্ডল ও একটি ব্যালট বাক্স উদ্ধার করে রিটানিং অফিসার ও উপজেলা কৃষি অফিসার নিটুল রায়ের কাছে পৌছে দিয়েছি।

এ বিষয়ে রিটানিং অফিসার ও উপজেলা কৃষি অফিসার নিটুল রায় কোন প্রকার মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।